বুধবার, মার্চ ২০

#Breaking: সিবিআই অফিসারদের পুলিশ তুলে নিয়ে যাওয়ার পরেই রাজীব কুমারের বাড়িতে ঢুকলেন মুখ্যমন্ত্রী

দ্য ওয়াল ব্যুরো: কলকাতার পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারের বাড়িতে সিবিআইয়ের টিম পৌঁছে যাওয়াকে সাংবিধানিক অভ্যুত্থানের সঙ্গে তুলনা করল তৃণমূল কংগ্রেস। সেই সঙ্গে সিবিআইয়ের অফিসারদের কলকাতা পুলিশ এক প্রকার বলপ্রয়োগ করে সেখান থেকে সরিয়ে দেওয়ার পরে কমিশনারের বাড়ি পৌঁছে গেলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যার বার্তা সম্ভবত একটাই যে রাজীব কুমারের পাশে সর্বশক্তি দিয়ে দাঁড়ালেন মুখ্যমন্ত্রী।

শনিবার রাতে সিবিআই সূত্রকে উদ্ধৃত করে পিটিআই জানিয়েছিল, কলকাতার পুলিশ কমিশনারকে চিটফান্ড কাণ্ডে জিজ্ঞাসাবাদ করতে চাইছে সিবিআই। সেই খবর চাউর হতেই রবিবার সকালে টুুইট করে রাজীব কুমারের পাশে থাকার বার্তা দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই সঙ্গে বলেছিলেন, কলকাতার পুলিশ কমিশনার বিশ্বের অন্যতম সেরা অফিসার। বিজেপির সর্বোচ্চ স্তরের নেতারা প্রতিহিংসার রাজনীতি করছে। কিন্তু এর পর এ দিন সন্ধ্যায় রাজীব কুমারের বাড়ির বাইরে পৌঁছে যান ডেপুটি সুুপারিন্টেন্ডেন্ট তথাগত বর্ধনের নেতৃত্বে সিবিআইয়ের গোয়েন্দারা। কিন্তু তাঁদের বাধা দেয় কলকাতা পুলিশ। পরে সাংবাদিকদের ক্যামেরার সামনেই সিবিআই গোয়েন্দাদের টেনে-হিঁচড়ে গাড়িতে তোলেন কলকাতা পুলিশের কনস্টেবল-অফিসাররা। সিবিআই গোয়েন্দাদের নিয়ে যাওয়া হয় শেক্সপিয়র সরণি থানায়।

এর পর পরই লাউডন স্ট্রিটে রাজীব কুমারের সরকারি বাসভবনে পৌঁছে যান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানে পৌঁছন রাজ্য পুলিশের ডিজি বীরেন্দ্র, এডিজি আইনশৃঙ্খলা অনুজ শর্মা। পরে সেখানে পৌঁছন কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিমও।

ও দিকে পুলিশ কমিশনারের বাড়িতে সিবিআইয়ের গোয়েন্দারা পৌঁছোনোর পর তৃণমূলের প্রধান মুখপাত্র ডেরেক ও ব্রায়েন বলেন, “বিজেপি যেন সাংবিধানিক অভ্যুত্থান ঘটাতে চাইছে। সিবিআইয়ের চল্লিশ জন অফিসার কলকাতার পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারের বাড়ি ঘিরে ফেলেছে। কাল সংসদে এই বিষয়টি উত্থাপন করব। মোদীকে যেতেই হবে।”

আরও পড়ুন

#Breaking: রাজীব কুমারের বাড়ির সামনে থেকে টেনে-হিঁচড়ে সিবিআই আধিকারিকদের তুলে নিয়ে গেল কলকাতা পুলিশ

Shares

Comments are closed.