মঙ্গলবার, অক্টোবর ১৫

মহালয়ার দিনেই পার্থ-মেয়রের পুজো উদ্বোধন করলেন মমতা, দেখুন ছবি

দ্য ওয়াল ব্যুরো: পিতৃপক্ষের অবসানের সঙ্গেই ঢাকে কাঠি পড়ে গিয়েছে। কলকাতার বেশিরভাগ পুজো প্যান্ডেলেই শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি। তবে এর মধ্যেই উদ্বোধন হয়ে গিয়েছে বেশ কিছু পুজোর। শনিবার মহালয়ার দিনে কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিমের পুজো ‘চেতলা অগ্রণী’ ও শিক্ষামন্ত্রী তথা তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের ‘নাকতলা উদয়ন সংঘের’ পুজো উদ্বোধন করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এ দিন সন্ধ্যায় প্রথমে চেতলা অগ্রণীতে যান মমতা। সেখানে গিয়ে মা দুর্গার চক্ষুদান করেন তিনি। মুখ্যমন্ত্রীর তুলির ছোঁয়ায় চক্ষুদান হয়ে যেতেই উদ্বোধন হয়ে গেল কলকাতার অন্যতম সেরা এই পুজোর।

উদ্বোধনের পর সেখানে কিছু কথাও বলেন মমতা। মঞ্চে তাঁর সঙ্গে ছিলেন সাংসদ মালা রায়, রাজ্যের মন্ত্রী সুজিত বসু, সারেগামাপা খ্যাত অদিতি মুন্সী প্রমুখ।

এই পুজোর উদ্বোধনের পর মমতা যান পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের নাকতলা উদয়ন সংঘের পুজো উদ্বোধনে। ফিতে কেটে পুজোর উদ্বোধন করেন তিনি। ঘুরে দেখেন পুজো প্যান্ডেল। সঙ্গে অবশ্যই ছিলেন শিক্ষামন্ত্রী।

এ দিন নজরুল মঞ্চে তৃণমূলের মুখপত্র জাগো বাংলার শারদ সংখ্যা প্রকাশ অনুষ্ঠানেও যান মমতা। শারদ সংখ্যা প্রকাশের পর নিজের বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি বলেন, “আকাশের মুখ কালো। মাঝে মাঝে ভয়ের বর্ষা সবাইকে ভয় দেখাচ্ছে। আগে পুজো চার দিনে সীমাবদ্ধ থাকত। কিন্তু এখন অনেক আগে থেকেই মানুষ পুজোতে আনন্দ করতে শুরু করে দেয়।”

 

মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেন, “আমরা যখন বিরোধী দলে ছিলাম, আমি আর পার্থ চট্টোপাধ্যায় দু’জনে জাগো বাংলা শুরু করেছিলাম। আগামী দিনে আমাদের পরিকল্পনা জাগো বাংলা প্রতিদিন প্রকাশ করার। এই কাগজ কাউকে কুৎসা করে না। যে চেষ্টা করুক না কেন বাংলা থেকে কাউকে সরাতে পারবে না। জাগো বাংলা ভালো করে পড়ুন, বাংলাকে চিনুন। বাংলার মাটিকে রক্ষা করার দায়িত্ব আমাদের সকলের।”

 

Comments are closed.