রবিবার, সেপ্টেম্বর ১৫

উলট পুরাণ! এনআরএসে এ বার ফার্মাসিস্টকে পেটানোর অভিযোগ জুনিয়র ডাক্তারের বিরুদ্ধে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: এ যেন উলট পুরাণ!

যে এনআরএস হাসপাতালে রোগীর পরিজনদের হাতে মার খেয়েছিলেন জুনিয়র ডাক্তার, সেই হাসপাতালেই এ বার কর্তব্যরত ফার্মাসিস্টকে মারধরের অভিযোগ উঠল এক জুনিয়র ডাক্তারের বিরুদ্ধে। সূত্রের খবর, ক্রিটিক্যাল কেয়ারে ভর্তি রয়েছেন ওই ফার্মাসিস্ট।

আক্রান্ত ফার্মাসিস্ট জয়দেব কুণ্ডু

অভিযোগ, মঙ্গলবার দুপুরে ওপিডি ফার্মাসিতে হাজির হন এক জুনিয়ার ডাক্তার। কর্তব্যরত ফার্মাসিস্ট জয়দেব কুণ্ডুর কাছে ডায়াবেটিসের মেডিসিন লিসপ্রমিক্স চান তিনি। সে সময়ে প্রেশক্রিপশন দেখতে চান ওই ফার্মাসিস্ট। অভিযোগ এরপরেই শুরু হয় সমস্যা। ওই জুনিয়র ডাক্তার নাকি প্রেশক্রিপশন ছাড়াই ওষুধ দিতে বলেন ফার্মাসিস্টকে। ওষুধ দিতে রাজি না হওয়ায় কথা কাটাকাটি শুরু হয় দু’জনের মধ্যে। অভিযোগ, এরপরেই বছর ৪২-এর ফার্মাসিস্ট জয়দেব কুণ্ডুর উপর চড়াও হন ওই জুনিয়র ডাক্তার। অভিযোগ, জয়দেববাবুকে টেনে হিঁচড়ে মারধর করেন ওই জুনিয়র ডাক্তার। এরপরেই উদ্ধার করে আক্রান্তকে প্রথমে আইসিইউ এবং সিসিইউতে ভর্তি করা হয়। সূত্রের খবর, ঘাড়ে চোট পেয়েছেন ওই ফার্মাসিস্ট। আপাতত ভর্তি রয়েছেন ক্রিটিকাল কেয়ার ইউনিটে। তাঁর অবস্থা স্থিতিশীল হলেও আতঙ্কে রয়েছেন জয়দেববাবু।

প্রোগ্রেসিভ ফার্মাসিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের তরফে ইতিমধ্যেই ফেসবুকে একটি পোস্টও করা হয়েছে। সেখানে সাফ জানানো হয়েছে এই ঘটনার প্রতিবাদে যথেষ্ট শক্তিশালী ভাবেই সরব হবে ফার্মাসিস্টদের সংগঠন। পাশাপাশি অবিলম্বে অভিযুক্তকে গ্রেফতার করার এবং উপযুক্ত শাস্তির দাবিও জানিয়েছেন তাঁরা। শুধু তাই নয়। কদিন আগে ডাক্তাররা নিগৃহীত হওয়ায় কার্যত থমকে গিয়েছিল রাজ্যের স্বাস্থ্য পরিষেবা। প্রতিবাদের জন্য আন্দোলনে পথে নেমেছিলেন ডাক্তাররা। এ বার কর্তব্যরত ফার্মাসিস্টের মার খাওয়ার ঘটনায় উপযুক্ত ব্যবস্থা না নিলে বৃহত্তর আন্দোলনেরও হুঁশিয়ারি দিয়েছে ফার্মাসিস্টদের সংগঠন।

প্রোগ্রেসিভ ফার্মাসিস্টস’ অ্যাসোসিয়েশনের মুখপাত্র রামেশ্বর হালদার কথায়, “ডাক্তাররা যদি সেই পেশায় যুক্ত আর একজনের প্রতি এমন আচরণ করেন, সেটা মেনে নেওয়া যায় না। অভিযুক্ত গ্রেফতার না হলে আমরা বৃহত্তর আন্দোলনের পথে যাবো। আপাতত কর্তৃপক্ষকে অভিযোগ জানানো হয়েছে। তারা কী পদক্ষেপ নেয় সেটা দেখার অপেক্ষাতেই আছি।”

এ ব্যাপারে দ্য ওয়াল-এর তরফে এনআরএস-এর এমএসভিপি ড. সৌরভ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছিল। তিনি জানিয়েছেন, এ ধরনের একটি অভিযোগ জমা পড়েছে। গোটা ব্যাপারটা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

Comments are closed.