মঙ্গলবার, মার্চ ২৬

‘মসজিদে নমাজ পড়তে গিয়েছিল ছেলে, আর ফেরেনি, ওকে খুঁজে বার করুন,’ হাহাকার বৃদ্ধের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: সাপ্তাহিক নমাজ পড়তে শুক্রবার ক্রাইস্টচার্চের মসজিদে গিয়েছিলেন ফারহাজ আহসান। তার পর থেকেই তাঁর আর কোনও খোঁজ নেই। ফারহাজের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছেন তাঁর পরিবারের লোকজন। কোথায় গেলেন ফারহাজ?  বন্দুকবাজের এলোপাথাড়ি গুলিতে নিহত ৪৯ জনের মধ্যে তাঁর নাম নেই তো! এই ভাবনাই কুড়ে কুড়ে খাচ্ছে বৃদ্ধ মহম্মদ সায়েদুদ্দিনকে। সংবাদ মাধ্যমের কাছে তাঁর কাতর আর্তি, “ছেলে মসজিদ থেকে আর বাড়ি ফিরে আসেনি। পুলিশও স্পষ্ট করে কিছু জানাচ্ছে না। দয়া করে ওকে খুঁজে বার করুন।”

নিউজিল্যান্ডের সেন্ট্রাল ক্রাইস্টচার্চে নুর মসজিদ ও লিনউড মসজিদে বন্দুকবাজের হামলার পর থেকে খোঁজ মিলছে না অন্তত ১৭ জনের। তার মধ্যে ন’জন ভারতীয় বংশোদ্ভূত। অল ইন্ডিয়া মজলিস ই ইত্তেহাদুল মুসলিমিন-এর নেতা আসাদুদ্দিন ওয়াইসি বলেছেন, বন্দুকবাজদের হানায় দু’জন ভারতীয় নিহত হয়েছেন। আরও একজনের অবস্থা সংকটজনক। জাতিবিদ্বেষের কারণেই এই হামলা বলে গতকালই জানিয়েছেন পুলিশ। ধরা পড়েছে হামলার মূল চক্রী অস্ট্রেলীয় যুবক বেন্টন হ্যারিসন ট্যারান্ট-সহ চার জন।

ফারহাজ হায়দরাবাদের বাসিন্দা। তাঁর মতোই গতকাল মসজিদে গিয়েছিলেন হায়দরাবাদের বাসিন্দা আরও এক যুবক আহমেদ জাহাঙ্গির। গুলি লেগে তাঁর অবস্থা গুরুতর। তাঁকে দেশে ফিরিয়ে নিয়ে আসার জন্য সরকারের কাছে ভিসার আবেদন জানিয়েছেন তাঁর ভাই ইকবাল জাহাঙ্গির। ইকবালের কথায়, “আমার ভাইয়ের শারীরিক অবস্থা এখন কেমন সেই নিয়ে কোনও খবরই পাচ্ছি না। প্রশাসন সূত্রেও কিছু জানা যাচ্ছে না। সরকারের কাছে আমার আর্জি ভিসা পেলে নিউজিল্যান্ডে গিয়ে ভাইকে ফিরিয়ে নিয়ে আসতে পারি।”

আহমেদ জাহাঙ্গির

শুক্রবার স্থানীয় সময় বেলা ১টা ৪০মিনিট নাগাদ প্রথম হামলা হয় ক্রাইস্টচার্চের আল নুর মসজিদে। প্রায় ছ’মিনিট ধরে লাগাতার গুলি বর্ষণে প্রাণ যায় ৪২ জনের। আহন হন বহু। দ্বিতীয় হামলা হয় লিনউড মসজিদে। সেটি মসজিদ সিটি সেন্টারের পূর্ব দিকে অবস্থিত। এক প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছেন, মসজিদে প্রায় ১০০ জন প্রার্থনা করছিলেন। ব্রেন্টন ও তার সাঙ্গোপাঙ্গোদের ছোড়া গুলিতে নিহত হন ৭ জন।

ঘটনার পর টুইট করে নিহতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান আসাদুদ্দিন ওয়াইসি। নিহত ভারতীয়দের পরিবারকে সাহায্যের জন্য তেলঙ্গানা সরকারের কাছে আবেদন জানিয়েছেন জানিয়েছেন তিনি। টুইট করে আসাউদ্দিন বলেছেন, “নিখোঁজদের সন্ধান পেতে এবং তাঁদের পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করিয়ে দিতে সাহায্য করুক সরকার।” আসাউদ্দিনের টুইটের জবাবে রিটুইট করে সবরকম সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছেন তেলঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাওয়ের ছেলে কালভাকুন্তলা তারাকা রামা রাও।

হাই কমিশনার সঞ্জীব কোহলি এ দিন টুইট করে জানিয়েছেন, “এখন পর্যন্ত ৯ জন ভারতীয় বংশোদ্ভূত ব্যক্তির নিখোঁজ হওয়ার খবর মিলেছে। সরকারি ভাবে আরও বিশদ তথ্যের জন্য আমরা অপেক্ষা করছি। অত্যন্ত নক্ক্যারজনক ঘটনা। নিহতদের পরিবারের জন্য প্রার্থনা করছি। “
Shares

Comments are closed.