শুক্রবার, নভেম্বর ২২
TheWall
TheWall

আমেরিকা পারেনি, ভয়াবহ মাদক ফেনটানিল নিষিদ্ধ করলো চিন

দ্য ওয়াল ব্যুরো: নিষিদ্ধ মাদকের তালিকায় এ বার ফেনটানিলকে যোগ করল চিন। এই রাসায়নিক সিন্থেটিক ড্রাগ হিসেবে যেমন ব্যবহৃত হয়, এর অত্যধিক প্রয়োগে মৃত্যু পর্যন্ত ঘটতে পারে। বিশ্ব জোড়া ড্রাগ রিসার্চ কন্ট্রোলের ব্যাখ্যা অনুযায়ী কোনও রাসায়নিক যুদ্ধে ফেনটানিল ব্যবহার করা হলে কয়েক ঘণ্টায় মৃত্যু হতে পারে ৪০ থেকে ৫০ লক্ষ মানুষের।

আমেরিকা প্রথম এই ড্রাগ নিষিদ্ধ করার জন্য পদক্ষেপ নেয়। তবে এখনও সেই নির্দেশ সরকারি ভাবে জারি করতে পারেনি ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসন। চিনের প্রেসিডেন্ট শি চিনফিং জানিয়েছেন, ভয়াবহ এই রাসায়নিক অবিলম্বে নিষিদ্ধ করার জন্য সরকারি নির্দেশিকা জারি হয়েছে। সোমবার বেজিংয়ে সাংবাদিক সম্মেলন করে এই ড্রাগ নিষিদ্ধ করার কথা ঘোষণা করে চিনের নিরাপত্তা বিষয়ক মন্ত্রক, ন্যাশনাল হেলথ কমিশন ও ন্যাশনাল মেডিক্যাল প্রোডাক্টস অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের প্রতিনিধিরা।

রাসায়নিক ফেনটানিল আদতে কার্বন, হাইড্রোজেন, নাইট্রোজেন ও অক্সিজেনের একটি জৈব যৌগ বা অরগ্যানিক কম্পাউন্ড। বাণিজ্যিক ভাবে এর পরিচিতি রয়েছে ‘অ্যাক্টিক’, ‘ডিউরাজেসিক’ ও ‘ফেনটোরা’র মতো কয়েকটি নামে। ব্যথা কমাতে ও অ্যানাস্থেশিয়ায় খুব কাজে লাগে এই ফেনটানিল। তবে অবৈধ ভাবে একে হেরোইন ও কোকেনের সঙ্গে মিশিয়েও ব্যবহারের চল রয়েছে। বিশেষজ্ঞদের মতে, মরফিনের থেকে ৫০-১০০ গুণ শক্তিশালী ফেনটানিল, হেরোইনের থেকেও প্রায় ৫০ গুণ বেশি ক্ষতিকর প্রভাব রয়েছে এর। মাত্র দুই মিলিগ্রাম ওজনের ফেনটানিল এক জন মানুষকে মেরে ফেলার পক্ষে যথেষ্ট।

ফেনটানিলের মাত্রাতিরিক্ত নেশার কারণে গত বছর মার্কিন মুলুকে প্রায় ১৮,০০০ মানুষের মৃত্যু হয়েছিল। তারপরই এই ড্রাগকে নিষিদ্ধ করার জন্য আবেদন করে আমেরিকার সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন।

২০১৭ সালের মার্চে চার রকম ফেনটানিল ড্রাগ নিষিদ্ধ করেছিল চিন। চলতি বছর নিষিদ্ধ হলো মোট ২৫ রকমের ড্রাগ। চিনের ন্যাশনাল নারকোটিক কন্ট্রোল ব্যুরোর ডেপুটি হেড লিউ ইউয়েজিন জানিয়েছেন, নিঃসন্দেহে দেশের একটি গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ। রাসায়নিক যুদ্ধের ক্ষতিকর প্রভাব রুখতে এটি চিনের দায়িত্ববোধেরই পরিচয় দেয়।

Comments are closed.