সোমবার, আগস্ট ২০

‘পাঁচ টাকা’ ছিনতাই করে ‘দশ বছরের’ জেল

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ধারণা ছিল প্রত্যেকের ভাগ্যে জুটবে অন্তত ৫ লক্ষ করে টাকা। কিন্তু বাস্তবে জুটলো মাত্র ১ টাকা করে। সঙ্গে খেসারত হিসেবে হয়তো ১০ বছরের জেলও। এমন কাণ্ডই ঘটেছে দিল্লিতে।

দিল্লির শাহদারাতে জ্যাকেট তৈরির কারখানা বছর ৪৩-এর এক ব্যবসায়ীর। তাঁর কাছেই ব্যবসার কারণে যাতায়াত ছিল ৩৫ বছরের ইফথিকার খালিদের। খালিদের মৌজপুরে একটা ছোট জ্যাকেট তৈরির কারখানা আছে। সেই সূত্রে প্রায়ই ওই ব্যবসায়ীর কারখানায় যেতে হতো খালিদকে। সেখানেই সে দেখে লাখ লাখ টাকার লেনদেন হচ্ছে কারখানায়। একটা বড় চামড়ার ব্যাগ নিয়ে যাতায়াত করতেন ওই ব্যবসায়ী। আর সেটা দেখেই এক ফাঁদ পাতে ইফথিকার।

সে পরিকল্পনা করে, বিশাল পরিমাণ টাকা নিয়ে বাড়ি ফেরার পথে ওই ব্যবসায়ীর কাছ থেকে টাকা লুঠ করবে সে। আর এই কাজের জন্য আরও চারজনকে নিয়ে একটা দল বানায় খালিদ। ২৬ মে খালিদ দেখে ওই ব্যবসায়ীর কারখানায় বড় টাকার লেনদেন হয়েছে। সেদিনই তাঁকে লুঠের পরিকল্পনা করে সে।

সেইমতো ওই ব্যবসায়ী বাড়ি ফেরার সময় রাত সাড়ে ৯ টা নাগাদ তিনটি মোটর বাইকে করে পাঁচজন তাঁর পথ আটকে দাঁড়ায়। ব্যবসায়ীর চোখে লঙ্কা গুঁড়ো ছিটিয়ে শূন্যে গুলিও চালায় তারা। কিন্তু ব্যবসায়ীর কাছ থেকে ব্যাগ ছিনিয়ে নিয়ে সেটা খুলে চক্ষু চড়কগাছ তাদের। কোথায় ২৫ লাখ? আছে কেবল একটা পাঁচ টাকার কয়েন।

ঘটনার আকস্মিকতায় তারা এতটাই ঘাবড়ে গিয়েছিল যে ওই ব্যবসায়ীর জামাকাপড় পর্যন্ত তল্লাশি করেনি তারা। নইলে ব্যবসায়ীর পকেটে থাকা হাজার দশেক টাকা অন্তত তারা পেত। ব্যবসায়ীর স্কুটারটি অবশ্য তারা নিয়ে যায়। কিন্তু চুরির অভিজ্ঞতা না থাকায় সেই স্কুটারটিও কোথাও বিক্রি করতে পারেনি। পুলিশ পরে সেটা উদ্ধার করে।

সিসিটিভি ফুটেজ দেখে শাহদারা জেলা পুলিশ বুধবার দুজনকে গ্রেফতার করে। তাদের জেরা করে বাকিদের ব্যাপারে খোঁজ চালাচ্ছে পুলিশ। শাহদারার ডেপুটি পুলিশ কমিশনার মেঘনা যাদব জানিয়েছেন, দুজনের বিরুদ্ধে অনেকগুলি ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। তার মধ্যে খুনের চেষ্টার অভিযোগও রয়েছে। তাই সর্বোচ্চ ১০ বছরের জেল হওয়ার সম্ভাবনা আছে ধৃতদের।

কিন্তু কোথায় গাফিলতি হলো খালিদের। ওই ব্যবসায়ীর বক্তব্য, গোঁড়াতেই গলদ করে ফেলেছে খালিদ। তাঁর মোটা ব্যাগ নিয়ে যাতায়াত করতে দেখে ভেবেছে তাতে টাকা আছে। কিন্তু তিনি কোনও দিনই টাকা নিয়ে যাতায়াত করতেন না। ব্যাগে থাকত জামাকাপড় ও টিফিন বক্স। তার জন্যই ব্যাগটা মোটা লাগত। সেটা দেখেই ভুল আন্দাজ করে খালিদ।

আর সেই ভুল আন্দাজের খেসারত দিতে হলো তাকে। ঠাই হলো শ্রীঘরে। এক টাকার বিনিময়ে হয়তো এ বার খাটতে হবে দশ বছরের জেল।

 

Shares

Leave A Reply