সোনার মাস্ক! করোনা ঠেকাতে ৩ লাখ টাকার মুখোশে মুখ ঢাকলেন পুণের বাসিন্দা

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

    দ্য ওয়াল ব্যুরো: সোনার গয়না পরতে ভালবাসেন। তাই বানিয়ে ফেলেছেন সোনার মাস্ক। মহামারী করোনার জেরে যখন গোটা বিশ্বের অর্থনীতির টালমাটাল অবস্থা তখন প্রায় ৩ লাখ টাকার সোনার মাস্ক পরে ঘুরছেন পুণের এক ব্যক্তি। জানা গিয়েছে, ওই ব্যক্তির নাম শঙ্কর কুরাদে। পুণের পিম্পরি চিঞ্চওয়াড় এলাকার বাসিন্দা তিনি।

    সংবাদসংস্থা এএনআই সূত্রে খবর, এক ব্যক্তিকে রুপোর মাস্ক পরতে দেখে এমন খেয়াল মাথায় এসেছিল শঙ্করের। তিনি জানিয়েছেন, “সোশ্যাল মিডিয়ায় একটা ভিডিওতে একজনকে রুপোর মাস্ক পরতে দেখেছিলাম। তখন এই আইডিয়া মাথায় আসে যে একটা সোনার মাস্ক বানালে কেমন হয়। আমি সোনার গয়না পরতে খুবই ভালবাসি। ভাবনা মাথায় আসতেই পরিচিত এক স্বর্ণকারের সঙ্গে কথা বলি। এক সপ্তাহের মধ্যে উনি আমায় এই সোনার মাস্ক বানিয়ে দেন।

    Image

    শঙ্কর নিজেই জানিয়েছেন, এই সোনার মাস্কের ওজন প্রায় সাড়ে পাঁচ পাউন্ড। রয়েছে বেশ কিছু বিশেষ ছিদ্রও। তাই শ্বাস নিতেও কোনও অসুবিধে হয় না। দাম ২ লক্ষ ৮৯ হাজার টাকা। তবে করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে এই মাস্ক কতটা কাজে লাগবে সে ব্যাপারে নিশ্চিত নন পুণের এই বাসিন্দা। তবে শখ হয়েছে এবং সাধ্য রয়েছে তাই বানিয়ে নিয়েছেন সোনার মাস্ক।

    Image

    ছোট থেকেই সোনার গয়না বলা ভাল সোনার প্রতি বিশেষ আকর্ষণ রয়েছে শঙ্করের। এমনকি তাঁর পরিবারের বাকি সদস্যরাও ভীষণ ভাবে সোনা প্রেমী। শঙ্করের এমন মাস্ক দেখে এ বার তাঁরাও সোনার মাস্ক বানাচ্ছেন। তবে শঙ্করের কথায়, “জানি না এই মাস্ক পরলে আমি করোনা ঠেকাতে পারব কিনা। যদিও সরকারের সব নিয়ম অনুযায়ী মনে হয় এই মাস্ক পরলে আমি করোনায় আক্রান্ত হব না।”

    Image

    এতদিন গলায় মোটা সোনার চেন, কবজিতে সোনার ব্রেসলেট, দশ আঙুলে সোনার আংটি—-এই সবই ছিল শঙ্করের ক্ষেত্রে পরিচিত ছবি। আত্মীয়-স্বজন থেকে প্রতিবেশী সকলেই জানেন তাঁর সোনা প্রীতির কথা। তাই এ যাবৎ এমন সোনায় মোড়া শঙ্করকেই দেখে এসেছেন তাঁরা। তবে এ বার শঙ্করের অভিনব সোনার মাস্ক দেখে চমকে গিয়েছেন তাঁরাও। সোশ্যাল মিডিয়াতেই এখন ভাইরাল শঙ্করের সোনার মাস্ক পরা ছবি। তবে নেটিজেনদের সমালোচনার মুখে পড়েছেন পুণের এক বাসিন্দা।অনেকেই বলছেন, “আর্থিক ক্ষমতা থাকলেই উদ্ভট শখ না মিটিয়ে যাঁরা মাস্ক কিনতে পারছেন না তাঁদের একটু দান করলে পারতেন।”

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More