সোমবার, অক্টোবর ১৪

ভোটের বছরে বৃষ্টির সুখবর, কৃষি থেকে শিল্প সবেতেই হাসি ফোটাবে বর্ষা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: সময়মতোই ভারতে ঢুকবে বর্ষা, জানালো ভারতীয় আবহাওয়া দফতর (IMD)। ২০১৯ সালে দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমী বায়ুর প্রভাবে বৃষ্টির পরিমাণও স্বাভাবিক থাকবে বলেই জানিয়েছেন মিনিস্ট্রি অফ আর্থ সায়েন্সের সেক্রেটারি এম রাজীবন নায়ার।

সোমবার পূর্বাভাস জারি করে নায়ার আরও বলেন, প্রতিবছরের মতোই চলতি মরশুমেও গড় বৃষ্টির পরিমাণ ৮৯ সেন্টিমিটারের আশেপাশেই থাকবে। প্রসঙ্গত, গত ৫০ বছর ধরে গড় বৃষ্টিপাত এই পরিমাণই হয়ে থাকে। আইএমডি-র রিপোর্টে আরও বলা হয়েছে, দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমী বায়ুর প্রভাবে সারা দেশ জুড়েই ভালো পরিমাণ বৃষ্টি হবে। আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস সামান্য হলেও স্বস্তি দিয়েছে চাষিদের। মূলত ভারতের মোট আয়ের অন্তত ৬০ থেকে ৬৫ শতাংশ নির্ভর করে এই কৃষির উপরেই। আর ভারতের বার্ষিক গড় বৃষ্টিপাতের অন্তত ৭০ শতাংশ বৃষ্টি চারমাসের ‘বর্ষাকাল’-এই হয়।

তবে বিশ্বব্যাপী সমীক্ষা বলছে, নিরক্ষীয় প্রশান্ত মহাসাগরের উপরে আপাতত একটি দুর্বল ‘এল নিনো’ পর্যায় তৈরি হয়েছে। আবহবিদদের অনুমান, গরমের শেষেই এই ‘এল নিনো’ আরও দুর্বল হয়ে পড়বে। তবে যদি দুর্বল না হয়ে শক্তি বাড়ায় ‘এল নিনো’ তাহলে সমস্যা রয়েছে। সেক্ষেত্রে বর্ষার প্রথম দু’মাস অর্থাৎ জুন-জুলাইতে সেভাবে বৃষ্টি হবে না। যার ফলে খরিফ শস্য চাষে বিপুল পরিমাণ ক্ষতি হবে। ফলত, প্রায় প্রতি বছরের মতোই সবজির দাম আচমকাই হয়ে যাবে দ্বিগুণ, তিনগুণ বা তারও বেশি। মধ্যবিত্তের রীতিমতো ছ্যাঁকা লাগবে।

কিন্তু আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস অনুযায়ী চারমাস ধরে ভালো ভাবেই বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে চলতি বছরে। ফলে অনুমান, মরশুম শেষে চাষিদের মুখে হাসি ফুটবে।

Comments are closed.