বৃহস্পতিবার, জানুয়ারি ১৭

চুরি হয়েছে ‘মন’, হদিশ দেওয়ার আর্জি জানিয়ে থানায় হাজির যুবক

দ্য ওয়াল ব্যুরো: হৃদয় হরণ হয়েছে। আর সেটাই এ বার খুঁজে দিতে হবে পুলিশকে। এমন আজব দাবি নিয়েই পুলিশের দ্বারস্থ হলেন এক যুবক। সরাসরি অভিযোগ করে তিনি জানান, এক তরুণী তাঁর হৃদয় চুরি করে নিয়ে গিয়েছেন। পুলিশের কাছে খোয়া যাওয়া মনের হদিশ দেওয়ার আর্জিও জানিয়েছেন যুবক।

ঘটনাটি ঘটেছে, মহারাষ্ট্রের নাগপুরে। নাগপুরের পুলিশ কমিশনার ভূষণ কুমার উপাধ্যায় জানিয়েছেন, যুবকের এ হেন অভিযোগে হতবাক হয়ে গিয়েছিলেন পুলিশকর্মীরা। অনেকভাবে তাঁকে বোঝানোর চেষ্টা করা হয় যে পুলিশের খাতায় ‘মন চুরি’ যাওয়ার অভিযোগ কোনওভাবেই দায়ের সম্ভব নয়। কিন্তু নাছোড় যুবক কোনও কথাই শুনতে চায় না। এরপর সিনিয়র পুলিশ আধিকারিকদের সঙ্গে যোগাযোগ করেন নাগপুর থানার পুলিশকর্মীরা। পুলিশ জানিয়েছে, প্রাথমিক ভাবে কোনও কিছু বুঝতে রাজি না হলেও পরে থানা ছেড়ে চলে যান ওই যুবক।

নাগপুরের বিভিন্ন জায়গা থেকে চুরি হওয়া প্রায় ৮২ লাখ টাকার সামগ্রী নির্দিষ্ট মালিকদের ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিল পুলিশ। সেখানেই এই ঘটনা প্রকাশ্যে আনেন নাগপুরের পুলিশ কমিশনার ভূষণ কুমার উপাধ্যায়। এই অনুষ্ঠানেই কমিশনার উপাধ্যায় বলেন, পুলিশ চুরি যাওয়া জিনিস ফিরিয়ে দিতে পারে। কিন্তু অনেক সময় এমন অনেক অভিযোগ আসে যেখানে রহস্যের কিনারা করা সম্ভব হয় না।

কিছুদিন আগেই ভিন্ গ্রহের প্রাণীর পাঠানো আলো দেখেছেন বলে দাবি করেন পুণের এক ব্যক্তি। এই কথা বলে প্রধানমন্ত্রীর দফতরে ই-মেলও পাঠিয়ে দেন তিনি। আচমকা এরকম একটি ই-মেল পাওয়ার পরে প্রধানমন্ত্রীর দফতর থেকে সেটি পাঠানো হয় মহারাষ্ট্র সরকারের কাছে। তার পরেই খোঁজ শুরু করে পুলিশ। কয়েক দিনের মধ্যেই জানা যায়, ওই ই-মেল প্রেরক কোঠরুড এলাকার বাসিন্দা। শুরু হয় তদন্ত। এরপরেই পুলিশ জানতে পারে, কয়েক বছর আগে মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ হয় ওই ব্যক্তির। তার পর থেকেই কিছু মানসিক সমস্যা দেখা দেয় তাঁর। যার জেরেই এ হেন কাণ্ড ঘটিয়েছিলেন বছর সাতচল্লিশের ওই ব্যক্তি।

Shares

Comments are closed.