রবিবার, আগস্ট ১৮

‘চা ওয়ালা’র দেশে ‘চায়ে ওয়ালি চাচি’, শুধু চা খেয়েই বেঁচে আছেন ৩০ বছর ধরে!

দ্য ওয়াল ব্যুরো: শীতের সকালে ধোঁয়া ওঠা এক কাপ চায়ের থেকে প্রিয় বোধহয় আর কিছুই হয় না। আর বাঙালির তো চায়ের প্রতি একটু বেশিই ভালোবাসা রয়েছে। কিন্তু তা বলে একটানা ৩০ বছর শুধু চা খেয়ে কেউ বেঁচে থাকতে পারেন?

শুনে বিশ্বাস হয় না। কিন্তু এমন অবিশ্বাস্য ঘটনা বাস্তবে ঘটেছে। তাও আবার এই ভারতেই।

ছত্তীসগড়ের কোরিয়া জেলার বারাদিয়া গ্রামের বাসিন্দা পিল্লি দেবী গত ৩০ বছর ধরে নাকি শুধু চা খেয়েই বেঁচে রয়েছেন। গ্রামে তাঁর নাম ‘চায় ওয়ালি চাচি’। বছর ৪৪-এর এই মহিলা নাকি মাত্র ১১ বছর বয়সেই খাওয়া-দাওয়া সব ছেড়ে দিয়েছিলেন। এমনটাই জানিয়েছেন, পিল্লি দেবীর বাবা রতি রাম। তিনি আরও জানিয়েছেন, ক্লাস সিক্সে পড়ার সময় জনকপুরে একটি প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে গিয়েছিল কিশোরী পিল্লি। আর সেখান থেকে ফেরার পরেই শুরু হয় এমন অদ্ভুত আচরণ। খাওয়াদাওয়ার পাশাপাশি জল খাওয়াও ছেড়ে দেন পিল্লি।

পিল্লি দেবী

প্রথম দিকে দুধ-চা খেতেন পিল্লি। সঙ্গে মাঝে মাঝে খেতেন বিস্কুট বা পাঁউরুটি কিংবা হাতরুটি। তবে আচমকাই দুধ-চা খাওয়া ছেড়ে দেন পিল্লি দেবী। শুরু করেন দুধ ছাড়া লিকার চা বা লাল খাওয়া। তাও আবার দিনে একবার। সূর্যাস্তের পরেই একবার এই লাল চা খান পিল্লি দেবী।

বাড়ির মেয়ের এ হেন আচরণে হতবাক হয়ে গিয়েছিলেন পরিবারের সদস্যরা। তড়িঘড়ি ডাক্তারের কাছে নিয়ে যাওয়া হয় পিল্লি দেবীকে। তাঁর ভাই বিহারি লাল রাজওয়াড়ে জানিয়েছেন, “বিভিন্ন হাসপাতালে আমরা বোনকে নিয়ে গিয়েছি। বহু ডাক্তারও দেখানো হয়ছে। কিন্তু কেউই কিছু ধরতে পারেননি।” পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন, বাড়ি থেকেও বিশেষ বের হন না পিল্লি দেবী। সারাদিনের শিবের উপাসনাতেই মগ্ন থাকেন।

বিজ্ঞান বলছে ৩০ বছর শুধু চা খেয়ে বেঁচে থাকা কোনও মানুষের পক্ষে সম্ভব নয়। নবরাত্রির সময় অবশ্য অনেকেই টানা ৯ দিন উপোস করেন। এবং শুধুই চা খান। কিন্তু তা বলে ৩০ বছর! এটা কোনওভাবেই সম্ভব নয়। কোরিয়া জেলা হাসপাতালের চিকিৎসক এসকে গুপ্তাও জানিয়েছেন একই কথা।

কিন্তু তাহলে পিল্লি দেবী বেঁচে বছরের পর বছর ধরে শুধু চা খেয়ে বেঁচে রয়েছেন কীভাবে? এটা নিছকই অলৌকিক ঘটনা, নাকি এর পিছনে রয়েছে অন্য কোনও রহস্য?

Comments are closed.