বুধবার, মার্চ ২০

কাশ্মীরে হামলা করে স্বর্গে যাব, মানববোমা আদিলের করা ভিডিও প্রকাশ জইশের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: কাশ্মীরের পুলওয়ামায় মাত্র কয়েক মিনিটে আগেই বিস্ফোরণে ছিন্নভিন্ন হয়ে গেছেন ৪৪ জন সিআরপিএফ জওয়ান। মারাত্মক জখম অবস্থায় মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করছেন আরও জনা চল্লিশেক। তার মধ্যেই জঙ্গি সংগঠন জইশ ই মহম্মদ একটি ভিডিও ছড়িয়ে দিল সোশ্যাল মিডিয়ায়।

সেই ভিডিও যেখানে এই আত্মঘাতী হানা যে ঘটিয়েছে সেই আদিল হুসেন দার ওরফে ওয়াকাসকে দেখা যাচ্ছে।

ভিডিওতে আদিল বলছে, “যখন এই ভিডিও তোমাদের কাছে পৌঁছবে, আমি তখন স্বর্গে। আমি এক বছর জইশ ই মহম্মদের জঙ্গি হিসেবে কাজ করেছি। কাশ্মীরের মানুষের জন্য এটাই আমার শেষ বার্তা।” এর পর আদিল ভারতের বিরুদ্ধে জইশের সব আক্রমণ নিয়ে গর্ব করে। বলে, “দক্ষিণ কাশ্মীরের মতো উত্তর কাশ্মীর ও জম্মুর মানুষদেরও উচিত ভারতের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করা ও লড়াই করা।” শেষে সে বলেছে, “আমাদের কয়েক জন কমান্ডারকে মেরে আমাদের তোমরা দুর্বল করে দিতে পারবে না।”

আদিল সম্পর্কে এখনও যেটুকু জানা গেছে, সে পুলওয়ামার গুন্ডিবাগের বাসিন্দা।  গত ২০১৬ সালের ১৯ মার্চ থেকে সে নিখোঁজ ছিল তার দুই সঙ্গী তৌসিফ আর ওয়াসিমের সঙ্গে। তৌসিফের দাদা মনজুরও জঙ্গি, সে ২০১৬ সালেই মারা যায়। আদিলরা তিন ভাই। স্কুল ছেড়ে দেওয়ার পরে সে টুকটাক কাজ করত। স্থানীয় মসজিদে তার খুব যাতায়াত ছিল।

গত ১৩ মাসে এই নিয়ে দ্বিতীয় ফিদায়েঁ হামলা করলো জইশ। গত বছরের অগস্টে পুলওয়ামাতেই আর একটি আত্মঘাতী হানা করে জইশ, তাতে পাঁচ নিরাপত্তা রক্ষীর মৃত্যু হয়। ওই হামলায় মানববোমা ছিল ১৭ বছরের ফারদিন আহমেদ। ফারদিন ছিল এক পুলিশকর্মীর ছেলে। সে-ও হানার আগে আদিলের মতোই একটি ভিডিও রেকর্ড করেছিল। সে-ও একই কথা বলেছিল। বলেছিল, “যখন এই ভিডিও সবাই দেখবে, আমি তখন স্বর্গে।”

Shares

Comments are closed.