রবিবার, সেপ্টেম্বর ২২

সদ্যোজাত, লাফায় ওরা তিড়িংবিড়িং, একজন কংগ্রেস, একজন বিজেপি

দ্য ওয়াল ব্যুরো: গরু!

এই শব্দটা উচ্চারণ করলেই গৃহপালিত এই প্রাণীটিকে নিয়ে লোকে আগে নানান কথা ভাবত। কিন্তু এখন গরু মানেই রাজনৈতিক ইস্যু। শুধু তো ইস্যু নয়, একেবারে মহা ইস্যু। গরু যে রাজনৈতিক হতে পারে এ কথা বোধহয় কোনও ভেটেরিনারি ডাক্তারও ভাবেননি। কিন্তু মা-এর রাজনীতিকরণ হলে সন্তানরাই বাদ যায় কী করে? তাই এ বার বাছুরও ঢুকে পড়ল রাজনীতির ময়দানে!

মধ্য প্রদেশের রাজধানী ভোপালের অদূরে খাজুরি কালান গ্রাম। সেখানেই বৃহস্পতিবার যমজ বাছুরের জন্ম দিয়েছে একটি গরু। আর সেই দুটি বাছুরকে দুই কৃষক তাঁদের কাছে রাখবেন বলে চেয়ে নিয়েছেন। এই পর্যন্ত সব ঠিক ছিল! এতক্ষণ পর্যন্ত যা হচ্ছিল সবটাই, গরু নিয়ে গ্রাম্য আবেগ। হয়েই থাকে। কিন্তু এরপর যা হলো ভোটের গরম বাজারে তা বেশ তাৎপর্যপূর্ণ বৈকি। কারণ ওই দুই কৃষক একটি বাছুরের নাম রেখেছেন বিজেপি এবং অন্যটির নাম রেখেছেন কংগ্রেস।

কিন্তু কেন এমন নাম?

একটি সর্বভারতীয় ইংরাজি দৈনিককে তাঁরা জানিয়েছেন, এই সবে ভোট মিটেছে মধ্যপ্রদেশে। এই দল এসে বলেছে আমরা উন্নয়ন করব, তো ওই দল এসে বলেছে আমরা। তাঁদের দাবি, গ্রামবাসীদের কান ঝালাপালা করে চোঙা ফুঁকে কী করবে তার ফিরিস্তি দিয়েছে। কিন্তু আমরা চাই এ বার ওরা এই দুই বাছুরের মতো এক হয়ে যাক। যাতে ঝগড়াঝাটি না করে বরং মিলেমিশে কাজ করে।

বিজেপি যখন গরুকে রাজনৈতিক হাতিয়ার করে ফেলেছে, তখন মধ্যপ্রদেশের ভোট প্রচারে কংগ্রেস বলেছে ঘরে ঘরে গোশালা বানিয়ে দেবে। কিন্তু এরমধ্যেই ভোপালের গ্রামবাসীরা বাছুরের নামকরণের মাধ্যমে জোট করিয়ে দিলেন কংগ্রেস বিজেপি-র।

Comments are closed.