চার ঘণ্টায় ৮ বার ভূমিকম্প মহারাষ্ট্রে, মৃদু কম্পন হলেও আতঙ্ক পালঘর জেলায়

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

দ্য ওয়াল ব্যুরো: লাগাতার ভূমিকম্পে কাঁপছে মহারাষ্ট্র। আজ শুক্রবার চার ঘণ্টার মধ্যে মোট আটটি কম্পন অনুভূত হয়েছে মহারাষ্ট্রের পালঘর জেলায়। যদিও রিখটার স্কেলে কম্পনের মাত্রা অনুসারে সবকটি ভূমিকম্পই মৃদু বলে জানিয়েছে ন্যাশনাল সেন্টার অফ সিসমোলজি। জানা গিয়েছে, কম্পনের মাত্রা ২.২ থেকে ৩.৬-এর মধ্যে। এখনও পর্যন্ত কোনও হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। পালঘর জেলার দাহানু এবং তালাসারি তহশিলে আজ সকালে কম্পন অনুভূত হয়েছে।

ভোর সাড়ে তিনটে নাগাদ (৩টে ২৯মিনিট) প্রথম কম্পন অনুভূত হয়। রিখটার স্কেলে কম্পনের তীব্রতা ছিল ৩.৫। আধঘণ্টা পর (৩টে ৫৭মিনিট) কেঁপে ওঠে পালঘর জেলা। তখনও কম্পনের মাত্রা ছিল ৩.৫। এরপর সকাল ৭টা নাগাদ (৭টা ৬মিনিট) যে কম্পন অনুভূত হয় রিখটার স্কেলে তার মাত্রা ছিল ৩.৬। এমনটাই জানিয়েছেন, পালঘর জেলার বিপর্যয় নিয়ন্ত্রণকারী বিভাগের প্রধান বিবেকানন্দ কদম। দাহানু তহশিলের সাব-ডিভিশনাল অফিসার অসীমা মিত্তল জানিয়েছেন, এই তিনটি কম্পন ছাড়াও ভোর ৩টে থেকে সকাল ৭টার মধ্যে আরও ৫টি মৃদু কম্পন অনুভূত হয়েছে। এইসব কম্পনের মাত্রা রিখটার স্কেলে ২.২ থেকে ২.৮।

গত কয়েকদিন ধরেই বারবার ভূকম্পন অনুভূত হচ্ছে মহারাষ্ট্রের পালঘর জেলায়। সবকটি কম্পনই মৃদু হলেও লাগাতার ভূমিকম্প হওয়াটা চিন্তার বিষয় বলেই মনে করছেন একদল বিশেষজ্ঞ। গত সপ্তাহে শুক্রবার এবং শনিবার মধ্যে চারবার কম্পন বোঝা গিয়েছিল পালঘর জেলায়। তার মধ্যে গত শনিবার ৪ সেপ্টেম্বর শুক্রবার হওয়া একটি কম্পনের মাত্রা রিখটার স্কেলে ছিল ৪.০। বড়সড় দুর্যোগের সতর্কতা স্বরূপ পালঘর জেলার এই তহশিলে জারি হয়েছে চূড়ান্ত সতর্কতা। প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থাই নেওয়া হচ্ছে প্রশাসনের তরফে। বিপজ্জনক এলাকা থেকে বাসিন্দাদের নিরাপদ জায়গায় সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এমনিতেই চলতি বছর বর্ষার মরশুমে প্রবল বৃষ্টির কারণে অনেক জায়গাতেই মাটি আলগা রয়েছে। তাই আতঙ্ক রয়েছে আরও বেশি।

অন্যদিকে এই সপ্তাহের বুধবার ভোর ৪টে ১৭ মিনিটে নাগাদ কম্পন অনুভূত হয় মহারাষ্ট্রের নাসিক থেকে ৯৩ কিমি পশ্চিমে। ন্যাশনাল সেন্টার ফর সিসমোলজির তরফে জানানো হয় রিখটার স্কেলে ওই কম্পনের মাত্রা ছিল ৩.২। এর আগে চলতি সপ্তাহের সোমবার ভূমিকম্পে কেঁপে উঠেছিল মুম্বই। ওই দিন সকাল ৮ টা ৭ মিনিটে কম্পন অনুভূত হয়। ন্যাশনাল সেন্টার ফর সিসমোলজি সূত্রে জানানো হয়েছিল যে রিখটার স্কেলে কম্পনের তীব্রতা ছিল ৩.৫। সূত্রের খবর, মুম্বইয়ের ১০২ কিলোমিটার উত্তরে ছিল ভূমিকম্পের কেন্দ্রস্থল।

এছাড়াও সেপ্টেম্বর মাসের পয়লা তারিখেই দু’বার ভূকম্পন অনুভূত হয়েছিল মহারাষ্ট্রে। ওই দিন দুপুর ৩টে ৪৭ মিনিট নাগাদ কম্পন অনুভূত হয়। রিখটার স্কেলে কম্পনের তীব্রতা ছিল ২.৫। ওই একই দিনে সকাল ৭টা ১৬ মিনিট নাগাদ মহারাষ্ট্রের সাতারা জেলায় কোয়েনার কাছে ভূকম্পন অনুভূত হয়।

অন্যদিকে আজ সকালে ভূকম্পন অনুভূত হয়েছে নেপালে। রিখটার স্কেলে কম্পনের তীব্রতা ছিল ৪.২। ভূমিকম্পের প্রভাব পড়েছে সিকিম, দার্জিলিং, কালিম্পং এবং শিলিগুড়িতে। কোনও ক্ষয়ক্ষতি কিংবা হতাহতের খবর না পাওয়া গেলেও আতঙ্কে রয়েছেন উত্তরবঙ্গবাসীরা। তার মধ্যে এখন উত্তরবঙ্গে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টি হচ্ছে। আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস দুর্যোগ চলবে রবিবার পর্যন্ত।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

You might also like

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More