সোমবার, অক্টোবর ১৪

হাওড়া রাজধানী অল্পের জন্য বড় বিপদ থেকে বাঁচল, লাইনে ১৪ ইঞ্চি ফাঁক

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বড় বিপদ থেকে রক্ষা পেল দিল্লি-হাওড়া রাজধানী এক্সপ্রেস এবং ইসলাম-পুর দিল্লি মগধ এক্সপ্রেস। লাইনে প্রায় চোদ্দ ইঞ্চি ফাঁক। মগধ এক্সপ্রেসের চালক দেখতে পেয়েই ইমার্জেন্সি ব্রেক কষেন। তাতেই রক্ষা পেল বড়সড় দুর্ঘটনা।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে সাতটা নাগাদ এই ঘটনা ঘটে কানপুর ডিভিশনের বারথানা স্টেশনের কাছে। মগধ এক্সপ্রেস নির্ধারিত সময়ের চেয়ে কয়েক ঘণ্টা দেরিতে চলছিল। সঠিক সময়ে চললে অন্ধকার থাকতেই এই জায়গা পেরনোর কথা ছিল। কিন্তু দিনের আলো থাকায় চালকের নজরে আসে মারণ ফাঁদ।

খবর দেওয়া হয় রেলের কন্ট্রোল রুমে। দিল্লি হাওড়া রাজধানীর পিছনেই দাঁড় করিয়ে দেওয়া হয় দিল্লি-পাটনা রাজধানী এক্সপ্রেসকে। দু’ঘণ্টা ধরে চলে লাইন মেরামতির কাজ। সকাল এগারোটার পর আস্তে আস্তে ট্রেন চলাচল শুরু হয়। সাময়িক ভাবে ওই অংশকে জোড়া লাগানো গিয়েছে বলে রেলের তরফে জানানো হয়েছে। বেঁধে দেওয়া হয়েছে ট্রেনের গতি। রেলের তরফে বলা হয়েছে যতক্ষণ না সারছে, ততক্ষণ ট্রেনের গতি যেন ঘণ্টায় ২০ কিলোমিটার বেগের বেশি না হয়।

এই ঘটনায় স্বাভাবিক ভাবেই প্রশ্ন উঠেছে পৃথিবীর চতুর্থ বৃহত্তম রেল সংস্থার যাত্রী পরিষেবা নিয়ে। অনেকেই প্রশ্ন তুলছেন, আর কতদিন এই জিনিস চলবে? পুজোর আগেই তেজস এক্সপ্রেস ছুটবে অশ্বমেধের গতিতে। তার আগেই এই ঘটনা পরিকাঠামো নিয়ে বড়সড় প্রশ্ন তুলে দিল।

Comments are closed.