মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ১৭

‘বিকামিং দ্য হারিকেন’, সেলুলয়েডের ‘কপিল দেব’ রণবীর, তৈরি হচ্ছেন ধর্মশালায়

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ১৯৮৩ সাল! ভারতের প্রথম বিশ্বকাপ জয়। প্রথমবারের জন্য বিশ্বের ক্রিকেট মানচিত্রে নিজের জায়গা করে নিয়েছিল ভারত। আর তাই এই ঘটনা নিয়ে ভারতীয়দের আবেগ তো থাকবেই। আর ১৯৮৩ সালের ২৫ জুন ভারতবাসীর মনে পাকাপাকি ভাবে জায়গা করে নিয়েছিলেন এক পাঞ্জাবি তরুণ। কপিল দেব নিখাঞ্জ। তাঁর দুরন্ত সুইং বোলিং, জিম্বাবোয়ের বিরুদ্ধে ম্যাচ জেতানো ১৭৫ নটআউট, সর্বোপরি তাঁর অধিনায়কত্ব। এই তরুণ অধিনায়কের নেতৃত্বেই গোরাদের দেশ থেকে কাপ ছিনিয়ে নিয়ে এসেছিল ভারত।

সেলুলয়েডে ’৮৩ বিশ্বকাপের সেই জার্নিই এ বার তুলে ধরবেন পরিচালক কবীর খান। আর কপিল দেবের ভূমিকায় অভিনয় করবেন রণবীর সিং। প্রস্তুতি শুরু হয়েছিল কয়েক মাস আগেই। ব্যাট হাতে শ্যাডো প্র্যাকটিসের ছবিও শেয়ার করেছিলেন রণবীর। লিখেছিলেন, “এক বর্ণময় যাত্রা শুরু হলো।” এ বার শুরু হয়েছে ছবির শ্যুটিং। ধর্মশালায় পৌঁছে গিয়েছে টিম ‘৮৩’। সঙ্গে গিয়েছেন কপিল দেবও। হিমাচল প্রদেশের ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের স্টেডিয়ামে কপিল দেবের সঙ্গে ফ্রেমবন্দি হয়েছেন রণবীর। আর সেই ছবি শেয়ার করে অভিনেতা লিখেছেন, ‘বিকামিং দ্য হ্যারিকেন’। ক্রিকেট মাঠে তাঁর গতি ও সুইংয়ের জন্য ক্রিকেট দুনিয়ায় কপিল দেবকে ডাকা হতো ‘হরিয়ানা হ্যারিকেন’ বলে। সেই কথাই এই ছবির মাধ্যমে বোঝাতে চেয়েছেন রণবীর।

তবে একটা নয়, একাধিক ছবি শেয়ার করেছেন রণবীর। কোনও ছবিতে কপিলের পাশে পাশে হাঁটছেন তিনি। কোথাও বা মন দিয়ে বাধ্য ছাত্রের মতো বুঝে নিচ্ছেন ক্রিকেটের খুঁটিনাটি টেকনিক। ক্রিজে নামার আগে সবটাই নিপুণ ভাবে শিখে নিতে চান। তবে কেবল কপিল দেবের সঙ্গেই নয়, টিমের বাকিদের সঙ্গেও দেদার মজা করেছেন রণবীর। সেইসব মজার মুহূর্ত বন্দি হয়েছে ক্যামেরায়। আর রণবীর নিজেই তা শেয়ারও করেছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়।

চরিত্রের জন্য অনেক অভিনেতাই নিজেদের মারাত্মক ভাবে ভাঙেন। লুকস থেকে হেয়ার স্টাইল পরিবর্তন, এমনকী ওজন বাড়িয়ে-কমিয়ে ফেলতে বেশি সময় নেন না। তবে বলিউডে সাম্প্রতিক সময়ে চরিত্রের জন্য বোধহয় সবচেয়ে বেশিবার ভাঙা-গড়ার খেলায় মেতেছেন রণবীর সিং। সঞ্জয় লীলা বনশালির ‘রামলীলা’, ‘বাজিরাও-মস্তানি’, কিংবা ‘পদ্মাবত’—–সবেতেই রণবীর অনন্য। ছবিতে হাজার ত্রুটি থাকলেও রণবীরের অভিনয়ের প্রশংসা করেছিলেন সকলেই। এরপর হালফিলে জোয়া আখতারের ‘গলি বয়’ ছবিতে র‍্যাপারের চরিত্রে অভিনয় করে রীতিমতো তাক লাগিয়ে দিয়েছেন রণবীর। আর মিস্টার সিংয়ের এইসব চরিত্র নিয়ে মুগ্ধ তাঁর ফ্যানরা। তবে মুগ্ধতার রেশ কাটার আগে ফের নতুন চরিত্র নিয়ে হাজির রণবীর।

তবে কোনও চরিত্রের জন্য লুকসের বদল ঘটানো এক ব্যাপার, আর চরিত্রের জন্য যদি সত্যিকারের ক্রিকেট খেলা শিখতে হয়, তাহলে সেটা আরও কঠিন। রণবীর নিজেই এর আগে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে বলেছেন, এই ছবিতে অভিনয় তাঁর জীবনের সবথেকে কঠিন অভিনয় হতে চলেছে। কারণ শচীন তেণ্ডুলকর, ধোনির মতোই কপিল দেবও প্রত্যেক ভারতীয়র মনের মধ্যে রয়েছেন। তাই তাঁর অদ্ভুত বোলিং অ্যাকশন, কিংবা ব্যাট করার ভঙ্গিমা আয়ত্ত্ব করা বেশ কঠিন কাজ। সেই কাজেই আপাতত ব্যস্ত রণবীর। এ বার যে তাঁর ২২ গজে দাপিয়ে বেড়ানোর পালা।

Comments are closed.