শনিবার, মার্চ ২৩

ছয় দিন পর চেনা ছন্দে ‘টেলিপাড়া’, শুরু হলো শ্যুটিং

দ্য ওয়াল ব্যুরো: অবশেষে চেনা ছন্দে ফিরল টলিপাড়া। শুক্রবার সকাল থেকে শুরু হয়ে গিয়েছে ধারাবাহিকের শ্যুটিং। সময়মতো শ্যিটিং ফ্লোরে পৌঁছে গিয়েছেন কলাকুশলীরাও। খুব তাড়াতাড়ি টেলিভিশনে সম্প্রচারিত হবে দর্শকদের পছন্দের সিরিয়ালগুলির নতুন এপিসোড।

বৃহস্পতিবার নবান্নে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে প্রযোজক এবং কলাকুশলীদের বৈঠকের পরেই কেটে গিয়েছিল জট। প্রযোজক এবং কলাকুশলী দুই পক্ষই এ দিনের বৈঠকে গিয়েছিলেন অনেক আশা নিয়ে। তবে শুধু তাঁরাই নয়। নবান্নের এই বৈঠকের দিকে নজর ছিল আম জনতারও। অবশেষে সব সমস্যা মিটিয়ে ফের চেনা ছন্দে টেলিভিশন ইন্ডাস্ট্রি। জানা গিয়েছে, শনিবার থেকেই নতুন এপিসোড দেখতে পাবেন দর্শকরা। গত শনিবার, ১৮ অগস্ট থেকে বন্ধ ছিল ধারাবাহিলের শ্যুটিং। ছয় দিন পর ফের শুরু হলো লাইট-ক্যামেরা-অ্যাকশনের পালা।

সমস্যা চলছিল অনেকদিন থেকেই। কিন্তু সুরাহা হচ্ছিল না। বহু দিন ধরেই দেরিতে পারিশ্রমিক পাওয়া নিয়ে ক্ষুব্ধ ছিলেন অভিনেতা এবং কলাকুশলীরা। অভিনেতাদের দাবি, মাসখানেক আগে কলাকুশলী এবং অভিনেতাদের সঙ্গে চুক্তি হয় প্রযোজনা সংস্থাগুলির। চুক্তি অনুযায়ী কলাকুশলীদের বেতন বাড়ে ৪০ শতাংশ। ১২ ঘণ্টা বেঁধে দেওয়া হয় তাঁদের কাজের সময়। আর অভিনেতাদের কাজের সময় বেঁধে দেওয়া হয় ১০ ঘণ্টা। বকেয়া টাকা মিটিয়ে দেওয়ার আশ্বাসও দেওয়া হয়। কিন্তু এরপর অভিনেতাদের একাংশ দাবি করেছেন, কেবলমাত্র নামিদামি এবং পরিচিত অভিনেতারাই নাকি বকেয়া টাকা পেয়েছেন। বাকিদের অবস্থা আগের মতোই রয়েছে বলে অভিযোগ করেছিলেন তাঁরা।

তবে অবশেষে সব সমস্যার সমাধানই হয়ে গিয়েছে। শুক্রবার সকাল থেকেই শ্যুটিং শুরু হবে। প্রযোজক, অভিনেতা দু’পক্ষকে পাশে বসিয়ে নবান্নে ঘোষণা করলেন ‘টেলিপাড়ার নিজের লোক’ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি আরও জানিয়েছিলেন, ‘প্রত্যেকে খুব দিলখোলা ভাবে আলোচনা করেছে। সবাই মিলেই সিদ্ধান্ত হয়েছে।’ স্বভাবতই মুখ্যমন্ত্রীর এই হস্তক্ষেপের পর বাংলার সিরিয়ালপ্রেমী আমজনতার মুখে হাসি ফুটেছে।

পশ্চিমবঙ্গের সাধারণ মানুষের কাছে প্রবল জনপ্রিয় সিরিয়াল নিয়ে যাতে আর কোনও সমস্যা না থাকে তার জন্য গড়া হয়েছে জয়েন্ট রিকনসিলিয়েশন কমিটি। এই কমিটিতে থাকবেন সিরিয়াল ইন্ডাস্ট্রির সঙ্গে জড়িত অভিনেতা, প্রযোজক, কলাকুশলী এবং চ্যানেল কর্তৃপক্ষের প্রতিনিধিরা। প্রতিমাসেই বসবে এই কমিটির বৈঠক। কোনও সমস্যা হলে আলোচনার মাধ্যমে তা মিটিয়ে ফেলবে এই কমিটিই। এই কমিটির চেয়ারম্যান মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস। প্রধান উপদেষ্টা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। এছাড়াও এই কমিটিতে থাকছেন –প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়, অরিন্দম গঙ্গোপাধ্যায়, শ্রীকান্ত মোহতা,  নিশপাল সিং রাণে, শৈবাল বন্দ্যোপাধ্যায়, স্বরূপ বিশ্বাস, অপর্ণা ঘটক ও লীনা গঙ্গোপাধ্যায়। এছাড়াও চ্যানেল কর্তৃপক্ষের তরফে থাকবেন স্টারের সাগ্নিক ঘোষ, জি’র সম্রাট ঘোষ এবং কালারস বাংলার রাহুল চক্রবর্তী। ১৫ তারিখের মধ্যে বকোয়া টাকা মেটানোর আর্টিস্ট ফোরামের দাবিও মেনে নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী নিজেই। এই বৈঠকের পর বাংলা ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির বর্ষীয়ান অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘সব থেকে বড় ধন্যবাদ মুখ্যমন্ত্রীকেই। তাঁর পৌরহিত্যেই সব সমস্যার সমাধান হল।

 

Shares

Leave A Reply