বুধবার, মার্চ ২০

ভাইজানের ইচ্ছে, ভারতের শ্যুটিং ফ্লোরেই বসলো ১০ হাজার স্কোয়ার ফুটের জিম

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বলিউডের মোস্ট এলিজেবল ব্যাচেলরের পাশাপাশি আরও একটি কারণে সলমন খান বিখ্যাত। একসময় বলা হতো সব সিনেমাতেই নাকি কয়েকটি দৃশ্যের পরেই আর জামা থাকে না এই অভিনেতার গায়ে। নিন্দুকেরা এ নিয়ে অনেক ঠাট্টা-তামাশাই করেছেন। তবে ফ্যানেরা কিন্তু বরাবরই ভাইজানের ফিটনেসের উপর দিওয়ানা। ৫৩-তেও তাঁর সুঠাম-সুদৃঢ় চেহারা ঈর্ষা করার মতো। আজও বহু নারীর হৃদয়ে হিল্লোল তোলে সল্লু মিঞার মারকাটারি ফিজিক।

আর এইসব মেনটেন করার জন্যই রোজ নিয়ম করে অনেকটা সময় জিমে কাটান ভাইজান। বান্দ্রায় তাঁর বিলাসবহুল বাংলোতেই রয়েছে এক সুদৃশ্য জিম। তবে আপাতত ‘ভারত’ ছবির শ্যুটিংয়ে ব্যস্ত অভিনেতা। গোরেগাঁওয়ের একটি স্টুডিওতে চলছে শ্যুটিং। আর শ্যুটিং লোকেশনের কাছেই এখন সলমনের ঠিকানা। সবই ঠিক ছিল। তবে সমস্যা ছিল একটাই। সলমনের জিম সেশনটা ঠিকমতো হচ্ছিল না। ভাইজান চাইছিলেন ভরতের শ্যুটিং ফ্লোরেই একটা জিম বানিয়ে ফেলতে।

অভিনেতার মনের ইচ্ছে চুটকিতে পূরণ করে দিলেন ভারত ছবির নির্মাতারা। মাত্র এক সপ্তাহেই শ্যুটিং ফ্লোরে বানানো হয়েছে ১০ হাজার স্কোয়ার ফুটের বিলাসবহুল এবং সুদৃশ্য একটি জিম। নিজের হাতে বেছে বেছে এই জিমে বিভিন্ন মেশিন সেট করেছেন সলমন। তবে শুধু সল্লু মিঞাই নন, এই জিম ব্যবহার করছেন ভারত ছবির বাকি কলাকুশলীরাও। অত্যাধুনিক সব ওয়ার্কআউট মেশিনই রয়েছে সলমনের এই জিমে।

ফিটনেসের ব্যাপারে বরাবরই খুব সচেতন সলমন খান। শোনা যায়, বি-টাউনের অনেক তারকাই নাকি ভাইজানের বাড়ির জিমেও আসেন ঘাম ঝরাতে। এমনকী হৃতিক বলিউডে আসার আগে তাঁকে প্রথম জিমে গিয়ে বডি বানানোর প্রস্তাবটাও নাকি সলমনই দিয়েছিলেন। ভাইজানের নিজের দেহেও রয়েছে ফোর প্যাক অ্যাবস। তবে এতে নাকি তেমন খুশি নন অভিনেতার মা সালমা। তিনি চান ছেলের শরীরে সিক্স প্যাক অ্যাবস দেখতে। আর মায়ের মনের ইচ্ছে পূরণ করতেই এখন জোরকদমে জিম সেশন চলছে অভিনেতার। সলমন জানিয়েছেন, নতুন বছর শুরু আগেই তাঁর মা তাঁকে জিজ্ঞাসা করেছিলেন ২০১৯-এ তাঁর রেজোলিউশন কী? তারপর সালমাই তাঁকে উপদেশ দিয়েছেন সিক্স প্যাক অ্যাবস বানানোর। আর মায়ের এই ইচ্ছের কথা শোনার পর থেকেই স্ট্রিক্ট ডায়েট ফলো করছেন সলমন।

তবে শ্যুটিং ফ্লোরেই জিমের সেট বসানোর কারণটা একটু আলাদা। রোজ বান্দ্রা থেকে গোরেগাঁও যাতায়াত সম্ভব নয় বলেই, এখন গোরেগাঁওয়ের কাছাকাছিই থাকছেন সলমন। এ দিকে ছবিতে পাঁচটি লুকসে ভিন্ন পাঁচটি বয়সের চরিত্রে দেখা যাবে সলমনকে। এখন চলছে যুবক বয়সের শ্যুটিং। নিজেকে পর্দায় টেন অন টেন দেখানোর জন্য রোজ নিয়মমাফিক জিম করা প্রয়োজন। আর তাই শ্যুটিং ফ্লোরেই বানানো হয়েছে এই সুবিশাল জিম।

Shares

Comments are closed.