রবিবার, সেপ্টেম্বর ১৫

আরও শক্তিশালী হচ্ছে নিম্নচাপ, বজ্রবিদ্যুৎ সহ ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা দক্ষিণবঙ্গে, বইবে ঝোড়ো হাওয়াও

দ্য ওয়াল ব্যুরো: আরও শক্তিশালী হচ্ছে নিম্নচাপ। আগামিকাল থেকে বজ্রবিদ্যুৎ সহ ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা দক্ষিণবঙ্গে। আগামি ২৪ ঘণ্টায় বঙ্গোপসাগরে তৈরি হওয়া নিম্নচাপ আরও শক্তি বাড়াবে বলেই পূর্বাভাস দিয়েছে আলিপুর আবহয়ায়া দফতর।

আলিপুর হাওয়া অফিসের ডিরেক্টর জি কে দাস জানিয়েছেন, বর্তমানে নিম্নচাপের অবস্থান দিঘা উপকূল থেকে ১৩০ কিলোমিটার দূরে এবং কলকাতা থেকে ২৩৫ কিলোমিটার দূরে। শক্তি বাড়িয়ে ক্রমশ উত্তর-পশ্চিমে অগ্রসর হচ্ছে এই নিম্নচাপ। ফলে বুধবার থেকেই ওড়িশা এবং গাঙ্গেয় উপকূলে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। হাওয়া অফিসের পূর্বাভাস অনুযায়ী বুধবার বৃষ্টি হবে দক্ষিণবঙ্গের সব জেলাতেই। বিশেষ করে দুই মেদিনীপুর এবং উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগণা এবং ঝাড়গ্রামে অতি ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। সঙ্গে বইবে ঝোড়ো হাওয়াও।

উপকূলের জেলাগুলোতে ৪৫ থেকে ৫৫ কিলোমিটার বেগে বইতে পারে ঝোড়ো হাওয়া। আর বাকি জেলাগুলোতে ৩০ থেকে ৪০ কিলোমিটার বেগে ঝোড়ো হাওয়া বইতে পারে বলে মনে করছেন আবহবিদরা। কলকাতাতেও কাল ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়ছে আবহাওয়া দফতর। ৮ তারিখ পর্যন্ত মৎস্যজীবীদের সমুদ্রে যেতে বারণ করা হয়েছে। নিম্নচাপ কতটা শক্তিশালী হবে তার প্রভাব আগামীকাল থেকেই বোঝা যাবে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর।

মঙ্গলবারও সারাদিন দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টিপাত হয়েছে। ভ্যাপসা গরমের হাত থেকে খানিকটা হলেও স্বস্তি পেয়েছেন দক্ষিণবঙ্গবাসী। আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, আগামী ৪৮-৭২ ঘণ্টা কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গে বৃষ্টি হবে। তাপমাত্রা ঘোরাফেরা করবে সর্বোচ্চ ৩৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস থেকে সর্বনিম্ন ২৭ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে। এ দিন কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২৭.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সর্বোচ্চ ও সর্বনিম্ন আপেক্ষিক আর্দ্রতা ছিল যথাক্রমে ৯৫ শতাংশ ও ৬০ শতাংশ।  তবে আর্দ্রতা এখনই কমার খুব একটা সম্ভাবনা নেই। কাজেই একটা গুমোট ভাব সবসময়েই থাকবে।

Comments are closed.