রবিবার, সেপ্টেম্বর ১৫

উত্তর বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপ, কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গে বৃষ্টির ইনিংস চলবে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত

দ্য ওয়াল ব্যুরো: পূর্বাভাস ছিলই। সকাল থেকেই আকাশের মুখ ভার। কলকাতা-সহ গোটা দক্ষিণবঙ্গে কোথাও হালকা, কোথাও ভারী বৃষ্টি হচ্ছে মাঝে মাঝেই। আজ সারাটা দিনই বিক্ষিপ্ত ভাবে কলকাতা ও তার সংলগ্ন এলাকায় বৃষ্টি হতে পারে বলে জানিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। বৃষ্টির এই ইনিংস চলবে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত। বাংলাদেশ সংলগ্ন বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপ যতক্ষণ ঘাপটি মেরে বসে থাকবে, ঝোড়ো হাওয়ার সঙ্গে বৃষ্টিও চলবে পাল্লা দিয়ে।

হাঁসফাঁস গরমে নাকাল শহরবাসীকে কিছুটা হলেও স্বস্তি দিয়েছে এই বৃষ্টি। কলকাতার পাশাপাশি পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুর, দুই চব্বিশ পরগণা, হাওড়া-হুগলিতেও এ দিন মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টি হয়েছে। নিম্নচাপের প্রভাবে ঝাড়গ্রাম, পুরুলিয়া, বাকুঁড়া, বর্ধমানেও বিক্ষিপ্তভাবে বা ভারী বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস জারি হয়েছে। নতুন করে নিম্নচাপ তৈরি হওয়ায় মৎস্যজীবীদের সমুদ্রে যেতে নিষেধ করা হয়েছে।

আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, উত্তরবঙ্গে বৃষ্টির পরিমাণ এখন কিছুটা স্বাভাবিক। তবে হালকা বৃষ্টি চলবে। মনিতেই দক্ষিণবঙ্গে এ বার বর্ষা এসেছে দেরিতে। ৮ জুনের বদলে ২১ জুন।  সোমবার সে ভাবে বৃষ্টি হয়নি কলকাতাতে। যার ফলে আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ বেড়ে যায়। ভ্যাপসা গরমে অস্বস্তি আরও বাড়ে।

আলিপুর আবহাওয়া দফতর সূত্রে খবর, উত্তর বঙ্গোপসাগরে তৈরি হওয়া নিম্নচাপের কারণেই আবহাওয়ার এই বদল। এই মুহূর্তে মৌসুমী অক্ষরেখার অবস্থান দিঘা হয়ে পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগরের মধ্যে। ফলে আগামী ৪৮-৭২ ঘণ্টা কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গে বৃষ্টি হবে। নিম্নচাপ গভীর হলে তার প্রভাব পড়বে উপকূলবর্তী জেলাতেও। মঙ্গলবার বিকেলের দিকে বজ্র-বিদ্যুৎ সহ ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। বুধ ও বৃহস্পতিবারও একই রকম চলবে। তাপমাত্রা ঘোরাফেরা করবে সর্বোচ্চ ৩৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস থেকে সর্বনিম্ন ২৭ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে। এ দিন কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২৭.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সর্বোচ্চ ও সর্বনিম্ন আপেক্ষিক আর্দ্রতা ছিল যথাক্রমে ৯৫ শতাংশ ও ৬০ শতাংশ।  তবে আর্দ্রতা এখনই কমার খুব একটা সম্ভাবনা নেই। কাজেই একটা গুমোট ভাব সবসময়েই থাকবে।

Comments are closed.