শুক্রবার, নভেম্বর ২২
TheWall
TheWall

মন্ত্রীর গায়ে কালি পটনায়, ভিড়ের মধ্যে আওয়াজ উঠল ‘সরকার নিষ্ক্রিয়’

দ্য ওয়াল ব্যুরো: পটনা মেডিক্যাল কলেজ থেকে বেরিয়ে সবে গাড়িতে উঠতে যাবেন, পিছন থেকে যেন ছিটকে এল কিছু জলের ফোঁটা। ভালো করে ঘাড় ঘুরিয়ে দেখে মন্ত্রী বুঝলেন জল নয়, কালির ছিটেতে ভরে গেছে তাঁর জামা-কাপড়। কালি ছিটে এসে লেগেছে মাথায়, মুখেও। মঙ্গলবার পটনা মেডিক্যাল কলেজে এক ডেঙ্গি রোগীকে দেখতে গিয়ে এমনই অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হতে হল কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী অশ্বিনী কুমার চৌবেকে।

পুলিশ জানিয়েছে, ওই যুবককে সনাক্ত করা গেছে। তাঁর নাম নিশান্ত ঝা। এক ডেঙ্গি রোগীর আত্মীয়। মন্ত্রীর গায়ে কালি ছিটিয়েই বেপাত্তা হয়ে গেছেন নিশান্ত। সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে তাঁকে সনাক্ত করা হয়েছে। এই ঘটনা প্রসঙ্গে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী বলেন, “এই কালি আমার গায়ে নয় গণতন্ত্রের মুখে ছেটানো হয়েছে। ”

প্রবল বন্যার কবল থেকে রেহাই মিললেও, পরবর্তী পরিস্থিতি খুবই ভয়ঙ্কর হয়ে উঠেছে বিহারে। একই সঙ্গে থাবা বসিয়েছে ডেঙ্গি ও এনসেফেলাইটিস। গত সপ্তাহেই পটনার বিভিন্ন মেডিক্যাল কলেজে ডেঙ্গি জ্বরে আক্রান্ত হয়ে প্রায় শতাধিক রোগী ভর্তি হয়েছে। সোমবার বিকেলে পটনা মেডিক্যাল কলেজে ডেঙ্গি আক্রান্ত এক সাত বছরের শিশুর মৃত্যু হয়। এর পরেই ক্ষোভে ফেটে পড়েন মৃতের আত্মীয়-পরিজনেরা।

পুলিশ জানিয়েছে, ওই যুবক নিশান্তের এক আত্মীয় ভর্তি রয়েছেন হাসপাতালে। তাঁর অবস্থাও সঙ্কটজনক। মন্ত্রীর গায়ে কালি ছেটানোর সময় যুবক চিৎকার করে বলছিলেন, “সরকার নিষ্ক্রিয়। ডেঙ্গির প্রকোপে মৃত্যু বাড়ছে। সব দেখেও চুপ প্রশাসন।”

স্বাস্থ্য মন্ত্রকের রিপোর্ট বলছে, সেপ্টেম্বরেই পটনার বিভিন্ন জায়গায় ৯০০ জন ডেঙ্গিতে আক্রান্ত হন। অক্টোবরের বন্যায় মৃত্যু হয় অন্তত ৭৩ জনের। এই বন্যার ফলে ডেঙ্গির প্রকোপ ফের বেড়েছে।

গোটা জুন-জুলাই এনসেলেফেলাইটিস কাবু করে ফেলেছিল বিহারকে। মৃত্যু হয়েছিল অন্তত ৮৫ জনের। বেসরকারি মতে সংখ্যাটা শতাধিক।। যার মধ্যে ৭০ শতাংশই ছিল কিশোরী। মুজফ্‌ফরপুরের শ্রীকৃষ্ণ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে অ্যাকিউট এনসেফেলাইটিস সিনড্রোমে (এইএস) ভর্তি করা হয়েছিল কয়েকশো রোগীকে। এই ধাক্কা কাটিয়ে উঠতে না উঠতেই ফের ডেঙ্গির ফলায় বিদ্ধ হয়েছে বিহার।

পড়ুন, দ্য ওয়ালের পুজোসংখ্যার বিশেষ লেখা…

Comments are closed.