রবিবার, নভেম্বর ১৭

ডেঙ্গি চরিত্র বদলাচ্ছে রাজ্যে, নতুন নতুন উপসর্গ দেখে উদ্বিগ্ন স্বাস্থ্য দফতর

দ্য ওয়াল ব্যুরো: রাজ্যে ডেঙ্গি নিয়ে নতুন উদ্বেগ তৈরি করেছে রোগীদের নতুন উপসর্গ। আচমকা রাজ্যে ডেঙ্গি আক্রান্তের সংখ্যাও বাড়তে শুরু করেছে। বাড়ছে মৃত্যুও। সরকারি পরিসংখ্যান বলছে চলতি বছরেই রাজ্যে ডেঙ্গিতে মৃত্যু হয়েছে ২৩ জনের। বেসরকারি মতে মৃতের সংখ্যা কমপক্ষে ৩৫।

রাজ্যে চলতি বছরের গোড়া থেকে ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সরকারি হিসেবে ডেঙ্গি আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ১২ হাজারের মতো। কিনতু গত দেড় মাস সেই সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়েছে। যেখানে বছরের প্রথম ন’মাসে আক্রান্তের সংখ্যা ১২ হাজার সেখানে শেষ দেড় মাসে আক্রান্তের সংখ্যা ১১ হাজার। এই পরিসংখ্যান পেয়েই সতর্ক স্বাস্থ্য ভবন।

চিকিৎসকদের বক্তব্য, চরিত্র বদলে আক্রমণ বাড়াচ্ছে ডেঙ্গি। ছদ্মবেশি ডেঙ্গিতে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা বাড়ছে কলকাতা-সহ গোটা রাজ্যেই। চিকিৎসকরা বলছেন, ইতিমধ্যেই ডেঙ্গির মশা ও ডেঙ্গির ভাইরাস চরিত্র বদল করেছে। আর তার ফলেই চলতি বছরে ডেঙ্গিতে আক্রান্ত হলে নতুন নতুন উপসর্গ দেখা দিচ্ছে। ফলে ডেঙ্গি আক্রান্ত কিনা সে ব্যাপারে আশঙ্কা তৈরি হতেই সময় লেগে যাচ্ছে। ডেঙ্গির নতুন উপসর্গ নিয়ে চিকিৎসকেরা বিভ্রান্ত হচ্ছেন। আর তাতেই উদ্বেগ বাড়ছে স্বাস্থ্য দফতরের।

এক নজরে দেখে নেওয়া যাক ডেঙ্গি আক্রান্তদের মধ্যে কী কী নতুন উপসর্গ দেখা যাচ্ছে–

১। এমন রোগী আসছে যাদের কোমরের নিচের অংশ অবশ হয়ে আসছে ক্রমশ। চলাফেরা করতে অসুবিধা হচ্ছে। কখনও পড়ে যাচ্ছেন। পায়ের হাড়ের কিংবা পেশির সমস্যা ভেবে চিকিৎসারা নানা পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে কিছু না মেলায় অনেক দেরিতে রক্ত পরীক্ষা করাচ্ছেন। পরে দেখা যাচ্ছে ওই ব্যক্তি ডেঙ্গুতে আক্রান্ত।

২। রোগীর গত সাত দিন আগে বা এক মাস আগে বা দু’মাস আগে জ্বর হয়নি। কিন্তু গায়ে হাতে মাথায় পায়ে প্রচণ্ড যন্ত্রণা। অসুস্থ হয়ে পড়ছেন। রক্ত পরীক্ষা করতে গিয়ে দেখা যাচ্ছে প্লেটলেট নেমে গেছে। রক্তে ডেঙ্গির ভাইরাস।

৩। দিনের পর দিন রোগী ডায়রিয়ায় ভুগছে। কোনওভাবেই তা নিয়ন্ত্রণ করা যাচ্ছে না। রোগী ক্রমশ অবসন্ন হয়ে পড়ছে। পরিচিত লক্ষণ না হলেও পরে দেখা যাচ্ছে ডেঙ্গি হানাতেই এই অসুস্থতা।

৪। আরও একটা সমস্যা তৈরি হচ্ছে। জ্বর নয় শুধু বমি বমি ভাব আর মাথায় যন্ত্রণা। পরে রক্ত পরীক্ষায় মিলছে ডেঙ্গির ভাইরাস।

৫। অসম্ভব পেটের যন্ত্রণা। পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখা গেছে শরীরের অভ্যন্তরে রক্তক্ষরণ হচ্ছে। যার জন্য দায়ী ডেঙ্গি ভাইরাস।

চিকিৎসকদের দাবি, এমনই নানা নতুন নতুন উপসর্গ নিয়ে হাজির হয়েছে ডেঙ্গি। প্রাথমিকভাবে বিভ্রান্ত হচ্ছেন চিকিৎসকেরাও। এখন চিকিৎসকরাও সতর্ক। তাই নতুন নতুন উপসর্গ দেখা দিলে তারা বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষার মধ্যেই ডেঙ্গির ভাইরাস আক্রান্ত কিনা তাও দেখছেন।

এ ব্যাপারে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক অনির্বাণ বিশ্বাস বলেন, “সময়ের সঙ্গে চরিত্র পরিবর্তন করছে ডেঙ্গি। রোগের উপসর্গ পরিবর্তন হয়ে যাচ্ছে। ফলে অধিক সতর্কতা নিতে হচ্ছে। নিঃশব্দে ডেঙ্গি হানা আর তার বহিঃপ্রকাশের ধরণ চিন্তার কারণ।”
শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ কুন্তল বিশ্বাসের বক্তব্য, “ভাইরাস শুধু জেনেটিক্যালি চরিত্রবদল করছে তাই নয়, ওই ভাইরাস বহনকারী মশাও নিজের চরিত্র বদল করছে। এখন শুধু দিনের বেলা নয়, রাতের বেলাতেও ডেঙ্গির মশা কামড় দিচ্ছে।”

Comments are closed.