রবিবার, আগস্ট ২৫

ফেসবুক লাইভ করে গলায় দড়ি দিলেন দিল্লির মেট্রো রেল কর্মী, উত্তর ২৪ পরগনার শুভঙ্কর

দ্য ওয়াল ব্যুরো: আইডি কার্ডে দু’বার চুমু খেয়ে কুলারের উপর উঠে দাঁড়ালেন যুবক। পরনে দিল্লি ডিএমআরসি (দিল্লি মেট্রো রেল কর্পোরেশন)-র ইউনিফর্ম। সিলিং ফ্যান থেকে দড়ির ফাঁস বানিয়ে গলায় দিয়ে ঝুলে পড়লেন।  গোটা ঘটনাই রেকর্ড হল ফেসবুক লাইভে। এই ভিডিয়ো দেখে রবিবার সকালে দিল্লির শাহদরার ভাড়া বাড়ি থেকে যুবকের মৃতদেহ উদ্ধার করল পুলিশ।

মৃতের নাম শুভঙ্কর চক্রবর্তী। বয়স ২৭ বছর। পুলিশ জানিয়েছে, শুভঙ্করের বাড়ি উত্তর ২৪ পরগনায়। মাস দুই তিন হল দিল্লির মেট্রোর ইলেকট্রিকাল ও মেনটেনেন্স বিভাগে কাজ করছেন তিনি।  শাহদরার তেলিওয়ারা এলাকায় একটি ভাড়া বাড়ির তিনতলায় একাই থাকতেন। এ দিন আত্মহত্যার লাইভ ভিডিয়ো প্রথম দেখেন শুভঙ্করের বন্ধু সূর্যকান্ত দাস। বন্ধুকে আত্মহত্যা করতে দেখে তাঁর এক সঙ্গী রাজেন্দ্র ওঝাকে সঙ্গে নিয়ে তড়িঘড়ি শুভঙ্করের বাড়ি পৌঁছন। জানলা দিয়ে দেখেন তাঁর দেহ ঝুলছে। তিনিই খবর দেন পুলিশে।

পুলিশ জানিয়েছে, সূর্যকান্তের ফোন পেয়ে তাঁরা শাহদরার ওই বাড়িতে পৌঁছন। তিনতলার যে ঘরে শুভঙ্কর ভাড়া থাকতেন তার দরজা ভিতর থেকে বন্ধ ছিল। দরজা ভেঙে তাঁরা দেখেন, মেট্রো রেল কর্মীর পোশাক পরে সিলিং ফ্যান থেকে গলায় দড়ি দিয়ে ঝুলছেন শুভঙ্কর। ঘটনাস্থল থেকে কোনও সুইসাইড নোট পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছেন তাঁরা।

পরিবারের একমাত্র ছেলে ছিলেন শুভঙ্কর। বিয়ের পরে তাঁর দিদি থাকেন পশ্চিমবঙ্গেই। মা মারা গেছেন অনেক বছর আগে। পুলিশ জানিয়েছে, ডিএমআরসি-র প্রশিক্ষণ শিবিরে ট্রেনিং চলছিল শুভঙ্করের। কোনও কারণে তিনি মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন কি না সেটা জানাতে পারেননি তাঁর বন্ধুরা। সব্জি মান্ডিতে তাঁর দেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।  খবর দেওয়া হয়েছে তাঁর পরিবারকে। ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

Comments are closed.