করোনার গ্রাসে স্পেনের রাজপরিবার, সংক্রমণে মৃত্যু রাজকুমারী মারিয়া টেরেসার

কোভিড-১৯ সংক্রমণে মৃত্যু হল রাজকুমারী মারিয়া টেরেসার। শোকের ছায়া নামল স্পেনের বারবন-পারমা রাজপরিবারে।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

    দ্য ওয়াল ব্যুরো: ব্রিটেনের রাজপরিবারের পরে এবার মারণ ভাইরাস ঢুকে পড়ল স্পেনের রাজপরিবারের অন্দরমহলেও। কোভিড-১৯ সংক্রমণে মৃত্যু হল রাজকুমারী মারিয়া টেরেসার। শোকের ছায়া নামল স্পেনের বারবন-পারমা রাজপরিবারে। বিশ্বে এই প্রথমবার কোনও রাজপরিবারের সদস্যের মৃত্যুর হল করোনাভাইরাসের সংক্রমণে।

    রাজকুমারী মারিয়া টেরেসার মৃত্যুর কথা ঘোষণা করেন বারবন-পারমা রাজপরিবারেরই সদস্য মারিয়ার ভাই প্রিন্স সিক্সতো হেনরি। তিনি জানান, গত ২৬ মার্চ প্যারিসে মৃত্যু হয়েছে রাজকুমারীর। তাঁর শরীরে কোভিড-১৯ পজিটিভ ছিল। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৮৬ বছর। শুক্রবার মাদ্রিদে তাঁর শেষকৃত্য সম্পন্ন হয়।

    ১৯৩৩ সালে প্যারিসে জন্ম মারিয়া টেরেসার। প্রিন্স জেভিয়ার এবং ম্যাডেলিন দে বারবন-বাসেটের ষষ্ট সন্তান মারিয়া টেরেসা দে বারবন পারমা। ফ্রান্সে পড়াশোনা করেন তিনি। দীর্ঘদিন অধ্যাপনা করেছেন ইউনিভার্সিটি অব প্যারিসে। মাদ্রিদের কমপ্লুটেন্স ইউনিভার্সিটিতেও অধ্যাপনা করেছেন মারিয়া। বরাবরই স্বাধীনচেতা ও স্পষ্টবক্তা হিসেবে পরিচিত ছিলেন। বিদেশি সংবাদমাধ্যমগুলিতে এই কারণে তাঁকে ‘রেড প্রিন্সেস’বলা হত।

    S.A.R. Don Sixto Enrique de Borbón comunica que en la tarde de este jueves 26 de marzo de 2020 ha fallecido en París, a…

    S.A.R. Don Sixto Enrique de Borbón এতে পোস্ট করেছেন বৃহস্পতিবার, 26 মার্চ, 2020

    ইতালির পরেই করোনা মহামারী ফুটবলের দেশ স্পেনে। রবিবারের রিপোর্টে ভাইরাস আক্রান্ত হয়ে মৃতের মোট সংখ্যা ৫,৯৮২। সংক্রামিতের সংখ্যাও বাড়ছে লাফিয়ে লাফিয়ে। স্বাস্থ্য মন্ত্রকের রিপোর্ট বলছে, মোট আক্রান্ত ৭৩,২৩৫। যার মধ্যে শঙ্কাজনক ৪,১৬৫।

    গোটা বিশ্ব যখন করোনার আতঙ্কে কাঁপছে, স্পেন তথনও মেতে ছিল ফুটবলে। এমন মৃত্যুর ছায়া নেমে আসবে, ঘুণাক্ষরেও টের পাননি কেউ। তাই হয়ত সঠিক সময় লকডাউনের সিদ্ধান্ত নেয়নি সে দেশের সরকার। বিপুল সামাজিক মেলামেশায় এখন ঘরে ঘরে ছড়িয়ে পড়েছে সংক্রমণ। হাসপাতাল-নার্সিংহোমে ঠাসাঠাসি ভিড়। আইসোলেশন বেডের অভাব, কোয়ারেন্টাইন বেডে নতুন রোগীদের রাখার জায়গা নেই। সংক্রমণ মৃদু হলে ঘরেই কোয়ারেন্টাইনে থাকার পরামর্শ দিচ্ছেন ডাক্তার, স্বাস্থ্য আধিকারিকরা। প্রতিদিন এত সংখ্যক মানুষের মৃত্যু হচ্ছে যে মর্গে স্থান সংকুলান হচ্ছে না। সেখানেও জমছে লাশের স্তূপ।

    স্বাস্থ্য মন্ত্রকের রিপোর্ট বলছে, মাদ্রিদের অবস্থা ভয়ঙ্কর। সেখানে মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ২.৭৫৭। সংক্রামিত ২১,৫২০। মৃতদেহ রাখার জন্য অস্থায়ী মর্গ তৈরি করা হয়েছে মাদ্রিদে। আক্রান্তদের হাসপাতালে নিয়ে আসা আর মৃতদেহ সরানোর জন্য নামানো হয়েছে সেনাবাহিনীকে।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

You might also like

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More