মা আমার মাও বটে কন্যাও বটে, তাই মায়ের জন্য নতুন সঙ্গী চাই! নেট দুনিয়ার হিরো চন্দননগরের গৌরব

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

    দ্য ওয়াল ব্যুরো: কিছুদিন আগেই মাঝবয়সি মায়ের জন্য পাত্র খুঁজে টুইট করেছিলেন আস্থা নামের এক তরুণী। খুব অল্প সময়ে ভাইরাল হয়েছিল তাঁর পোস্ট। একা মায়ের জীবনসঙ্গী খুঁজে দেওয়ার চেষ্টা মন ছুঁয়ে গেছিল নেটিজেনদের। তার দিন কয়েক পরেই সামনে এল একই ঘটনা। তবে এবার এই কাণ্ড ঘটিয়েছেন এক বাঙালি। মায়ের জন্য জীবনসঙ্গী খুঁজে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছেন চন্দননগরের এক যুবক। কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই হাজার কয়েক শেয়ার হয়েছে তাঁর পোস্ট। প্রশংসা, অভিনন্দন ও শুভেচ্ছাবার্তায় ভরে উঠেছেন গৌরব অধিকারী নামের ওই যুবক।

    ছেলে-মেয়েরা বড় হলে, বাবা-মাই সাধারণত পাত্র বা পাত্রী খোঁজের তাদের জন্য। এমনটাই সমাজের চিরাচরিত প্রথা। কিন্তু কোনও প্রথাই অচলায়তন হয়ে রয়ে যেতে পারে না। সময়ের পরিবর্তনের সঙ্গ সঙ্গে, পরিস্থিতির চাহিদা অনুযায়ী, প্রথাও ভাঙতে হয়। রীতিনীতি বদলাতে হয়। তেমন পথেই আরও এক পা বাড়ালেন গৌরব।

    তিনি লিখেছেন, “আমি আমার মাকে একটা নতুন জীবন দিতে চাই.. মা আমার মা ও বটে কন্যা ও বটে… আমি গৌরব.. চন্দননগর এ বাড়ী.. আমার সম্পর্কে বিস্তারিত পাবেন আমার প্রোফাইলে.. যারা চেনেন তারা জানেন আমার সম্পর্কে.. আমার মা এর নাম দোলা অধিকারী.. বয়স 45.. আমার বাবা প্রয়াত হন 2014 সালে.. মা সেই থেকেই একা।”

    এই একাকীত্ব ঘোচানোর জন্যই মায়ের জন্য উপযুক্ত সঙ্গীর খোঁজ করছেন গৌরব। আসলে এখনকার ব্যস্ত জীবনে আমরা প্রায় সকলেই নিজেদের জীবন নিয়ে ছুটে চলি সময়ের সঙ্গে। পরিবারের জন্য, মা-বাবার জন্য আলাদা করে সময় বার করা প্রায়ই অসম্ভব হয়ে ওঠে। ফলে একটা বয়সের পরে মা-বাবার ইচ্ছে, অভাব– এসব জেনে ওঠা হয় না আমাদের প্রায়ই। নিঃসঙ্গতায় ভুগতে থাকেন তাঁরা। এর মধ্যে কেউ যদি সঙ্গীহীন হয়ে পড়েন, তা হলে তা যেন অসহনীয় হয়ে ওঠে। ঘিরে ধরে অবসাদ।

    এরকম সময়ে তো সন্তানরই দায়িত্ব মাকে বা বাবাকে ভাল রাখা, সাহচর্যের ব্যবস্থা করা। সেই দায়িত্বই নিতে চেয়েছেন গৌরব। তিনি পেশায় গণমাধ্যমের কর্মী। কর্মসূত্রে প্রায়ই বাইরে যেতে হয় তাঁকে। এমনিতেও ঘুরে বেড়ানোর নেশা রয়েছে তাঁর। ফলে মা দোলা অধিকারীকে একাই থাকতে হয় অনেক সময়। তাই তিনি চান, মায়েরও এক জন সঙ্গীা হোক। নিজের জন্মদিনে সেই ইচ্ছের কথাই ফেসবুকে জানিয়েছেন তিনি।

    গৌরবের কথায়, “টাকা পয়সা বা সম্পত্তি জমিজমা র উপর আমাদের কোন লোভ নেই.. তবে যিনি পাত্র তাকে স্ব নির্ভর হতে হবে এবং আমার মা কে ভালো রাখতে হবে.. আমি কিছুই চাই না.. আমার মা ভালো থাকলেই আমি খুশী.. চন্দননগর এ আমাদের নিজেদের বাড়ী আছে.. একজন সুস্থ সবল ভালো মনের মানুষ হলেই হল.. কে কি ভাবল বা বলল বড় কথা নয়.. দিনের শেষে আমি চাই আমার মা আর পাঁচ জনের মধ্যে ভালো থাকুক হাসি খুশি থাকুক..”

    দেখুন গৌরবের পোস্ট।

    এটা কোন গা ভাসানো ট্রেন্ড নয়.. এটা আমার মনের ইচ্ছে মা কে নতুন জীবন দেওয়ার… আমি কালকেই বলেছিলাম একটা সিদ্ধান্তের কথা…

    গৌরব অধিকারী এতে পোস্ট করেছেন শনিবার, 9 নভেম্বর, 2019

    তাঁর পোস্টের পাঠকদের উদ্দেশে গৌরব আরও লেখেন, “হয়তো কারোর এটা মন্দ লাগতে পারে কারো লাগতে পারে বিসদৃশ.. কিন্তু মা একা একা ফাঁকা বাড়ীতে থেকে থেকে ডিপ্রেসড হয়ে পড়েন.. মা গান শুনতে.. বই পড়তে খুব ভালোবাসেন…আমার বাড়ির হাজার দশেক বই ই মায়ের অবসর যাপন… কিন্তু আমার মনে হয় একজন সঙ্গীর পরিপূরক বই বা গান বা স্ট্র্যান্ড এ হাঁটতে যাওয়া হতে পারে না.. আমার মা এর জন্য আমি এই পোস্ট করছি..একা একা কষ্ট পেয়ে কাছিম হয়ে থাকার চেয়ে জীবনটা ভালো ভাবে বাঁচা দরকার বলেই আমি মনে করি.. আমি যত দিন যাবে আরও ব্যস্ত হয়ে পড়ব.. আমার ও সংসার হবে.. কিন্তু মা..?”

    নিজের পোস্টে গৌরব এ-ও জানিয়ে দেন, সমাজ তাঁকে যে কথাই বলুক না কেন, তাতে তাঁর কিছু এসে যায় না। তিনি বিশ্বাস করেন, আত্মীয়তার কোনও সীমান্ত হয় না। ভালবাসার কোনও বয়স হয় না। তাই পোস্টের শেষে লিখেছেন, “জানি হয়তো কেউ খিল্লি করবেন বা কারোর মনে হবে আমার মাথা খারাপ.. তাদের হাসি পেলে প্লিজ হাসবেন.. কিন্তু আমার সিদ্ধান্ত বদলাবে না.. আমি চাই আমার মা নতুন জীবন পাক… আমি চাই আমার মা একজন ভালো বন্ধু এবং সঙ্গী পান.. সেরকম কেউ থাকলে প্লিজ ইনবক্স.. নয়তো আমার এই একটাই নম্বর.. 89106-72227..”

    পোস্ট তো দিলেন গৌরব, ভাইরালও হল সেটা। এবার সুপাত্রের খোঁজ মিলবে কি? ‘কন্যা’কে সৎপাত্রে দান করতে পারবেন কি গৌরব? তা সময়ই বলতে পারবে।

    আরও পড়ুন…

    ৫০ বছরের একলা মায়ের জন্য পাত্র চাই! টুইট করে নেটিজেনদের মন জয় করলেন তরুণী

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

You might also like

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More