বুধবার, জানুয়ারি ২২
TheWall
TheWall

#Breaking: ‘পুরনো বিহারের মতোই বাংলা’, বিতর্কিত মন্তব্যের জন্য কমিশনের বিশেষ পর্যবেক্ষককে সরানোর দাবি তৃণমূলের

Google+ Pinterest LinkedIn Tumblr +

দ্য ওয়াল ব্যুরো: আর দু’দিন বাদেই বাংলায় লোকসভা নির্বাচন। তৃতীয় দফার ভোট গ্রহণ হবে। তার আগে শনিবার নির্বাচন কমিশনের বিশেষ কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক অজয় নায়েক বিস্ফোরক মন্তব্য করেন। তিনি বলেন,“পনেরো বছর আগে বিহারে যা অবস্থা ছিল, এখন সেই অবস্থা বাংলায়।” তাঁর আরও মন্তব্য, বাংলার পুলিশের উপর আস্থা হারিয়েছে সাধারণ মানুষ।

কমিশনের কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষকের এই মন্তব্যের তীব্র আপত্তি জানাল বাংলার শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস। তাদের বক্তব্য, রাজনৈতিক মন্তব্য করছেন কমিশনের পর্যবেক্ষক। পক্ষপাতদুষ্ট আচরণ করছেন। এমনিতেই বিজেপি ও আরএসএস-এর সঙ্গে ওঁর বহুদিনের সখ্য রয়েছে। ওঁর এ সব কথা শুনে মনে হচ্ছে রাজনৈতিক প্রভুদের নির্দেশেই এই সব মন্তব্য করছেন। তৃণমূলের দাবি, তাঁকে অবিলম্বে বিশেষ কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষকের পদ থেকে সরানো হোক।

শুধু বাংলার সাম্প্রতিক অবস্থা ব্যাখ্যা নয়, রাজ্য পুলিশের ভূমিকা নিয়েও সবিস্তারে সমালোচনা করেছেন অজয় নায়েক। তিনি এও বলেন,  “রাজ্যের পুলিশের উপর মানুষের আস্থা নেই। আর সেই কারণেই প্রতিটি বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েনের জন্য জোরালো দাবি উঠেছে।”

বিশেষ পর্যবেক্ষকের মন্তব্যর পর ঝড় ওঠার একটা আশঙ্কা ছিলই। ‘দ্য ওয়াল’-এ তা লেখাও হয়েছিল। কারণ নির্বাচন কমিশনের বিশেষ কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষকের মতকে জাতীয় নির্বাচন কমিশনের মত বলেই ধরে নেওয়া যেতে পারে। তিনি নির্বাচন কমিশনের প্রতিনিধি। বিশেষ পর্যবেক্ষকের কাজ হল, ভোট অবাধ ও সুষ্ঠু হচ্ছে কি না তা সুনিশ্চিত করা। কিন্তু তিনি যে মন্তব্য করেছেন, তা বাংলায় বিরোধী দলগুলি তথা বিজেপি, কংগ্রেস এবং সিপিএম, তৃণমূলের বিরুদ্ধে রাজনৈতিক অস্ত্র করে নিতে পারে।

তৃণমূল মূলত সেই উদ্বেগ নিয়েই কড়া চিঠি দিয়েছে কমিশনকে। এর আগে তৃণমূলের আপত্তিতেই বাংলার জন্য নিযুক্ত বিশেষ কেন্দ্রীয় পুলিশ পর্যবেক্ষককে সরিয়ে দিয়েছিল কমিশন। বিএসএফ-এর প্রাক্তন ডিজি এ কে শর্মাকে সরিয়ে তাঁর স্থানে আনা হয়েছে প্রাক্তন আইপিএস কর্তা বিবেক দুবেকে। তৃণমূলের এই চিঠির পর কমিশন এখন কী পদক্ষেপ করে সেটাই দেখার।

Share.

Comments are closed.