শুক্রবার, নভেম্বর ২২
TheWall
TheWall

বাংলা ক্যালেন্ডার বদলাচ্ছে বাংলাদেশে, দিন বিভ্রাট কাটাতেই পদক্ষেপ বাংলা অ্যাকাডেমির

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ইংরাজি তারিখ অনুযায়ী আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ২১ ফেব্রুয়ারি। ১৯৫২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি ছিল বাংলা ক্যালেন্ডার অনুযায়ী ৮ ফাল্গুন। কিন্তু ইংরাজির তারিখ ধরলে প্রতিবার বাংলা তারিখ নিয়ে বিভ্রাট হয়। কোনও বার হয় ৯ ফাল্গুন। এ নিয়ে বাংলাদেশে বিতর্ক কম নেই। একই বিতর্ক তৈরি হয় বাংলাদেশের বিজয় দিবস ১৬ ডিসেম্বরের বাংলা তারিখ নিয়েও। এ বার সেই বিভ্রাট কাটাতে বাংলাদেশের বাংলা অ্যাকাডেমি সিদ্ধান্ত নিল ক্যালেন্ডার বদলে ফেলার। যাতে এই দিন বিভ্রাট আর না হয়।

এই ক্যালেন্ডার বদলের প্রক্রিয়ার জন্য একটি কমিটি গঠন হয়েছিল। তার প্রধান ছিলেন অ্যাকাডেমির পরিচালক মোবারক হোসেন। তিনি জানিয়েছেন, এই দিনের বিভ্রাট দূর করতেই এই ক্যালেন্ডার বদলের পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

পুরনো নিয়মে কী ছিল?

পুরনো নিয়মে বৈশাখ থেকে ভাদ্র—এই পাঁচ মাস হত ৩১ দিনে। আর আশ্বিন থেকে চৈত্র—সাত মাস হত ৩০ দিনে। তবে ইংরাজি লিপ ইয়ারে ফাল্গুন মাস ৩১ দিনে হত।

নতুন নিয়মে কী হবে?

এখন নতুন নিয়মে বৈশাখ থেকে আশ্বিন- প্রথম ছয় মাস ৩১ দিনে হবে। কার্তিক, অগ্রহায়ণ, পৌষ, মাঘ ও চৈত্র- এই ৫ মাস হিসাব করা হবে ৩০ দিনে। আর ফাল্গুন মাস হিসাব করা হবে ২৯ দিনে। ইংরেজি লিপ ইয়ারে এক দিন বেড়ে ফাল্গুন হবে ৩০ দিনে। অর্থাৎ লিপ ইয়ারে যেমন ফেব্রুয়ারি মাসের একটি দিন বাড়ে। তেমন বাংলা ক্যালেন্ডারে বাড়বে ফাল্গুনের দিন।

মোবারক হোসেন সংবাদমাধ্যমে বলেন, “এটা করা হল বিভিন্ন দাবির প্রেক্ষিতে। নতুন ক্যালেন্ডারে আগামী ১০০ বছর মাতৃভাষা দিবস, স্বাধীনতা ও বিজয় দিবস বাংলাবর্ষের যে তারিখে ঘটেছে, ইংরেজি ক্যালেন্ডারের সঙ্গে তার হেরফের হবে না।”

এর আগেও পাঁচের দশকে এবং ১৯৬৩ সালে বাংলাদেশের বাংলা ক্যালেন্ডারে দু’বার বদল হয়েছিল। প্রথম বদলের সময়ে নতুন ক্যালেন্ডার তৈরিতে মুখ্য উপদেষ্টা ছিলেন জ্যোতির্বিজ্ঞানী মেঘনাদ সাহা।

পড়ুন, দ্য ওয়ালের পুজোসংখ্যার বিশেষ লেখা…

Comments are closed.