শনিবার, মার্চ ২৩

#Breaking: পুলওয়ামার ঘটনার প্রতিবাদ, করাচি আর্ট কাউন্সিলের আমন্ত্রণ প্রত্যাখ্যান জাভেদ-শাবানার

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বৃহস্পতিবার জম্মু ও কাশ্মীরের পুলওয়ামায় আত্মঘাতী জঙ্গি হানায় শহিদ হয়েছেন ৪০ জনেরও বেশি সিআরপিএফ জওয়ান। এই ঘটনার প্রতিবাদে করাচি আর্ট কাউন্সিলের আমন্ত্রণ প্রত্যাখ্যান করেছেন জাভেদ আখতার এবং শাবানা আজমি।

শুক্রবারই টুইট করেছেন কবি, গীতিকার ও স্ক্রিপ্ট রাইটার জাভেদ আখতার। তিনি লিখেছেন, “দু’দিনের একটি সাহিত্য সম্মেলনে আমাকে এবং শাবানাকে নিমন্ত্রণ জানিয়েছে করাচি আর্ট কাউন্সিল। কাইফ আজমির কবিতা নিয়ে এই সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছে। আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি ওখানে যাব না।” জাভেদ আরও বলেন, সিআরপিএফ-এর সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক বহু পুরনো। সিআরপিএফ-এর জন্য অ্যান্থেমও লিখেছেন তিনি। বেশ কয়েকবার অফিসারদের সঙ্গে দেখাও করেছেন তিনি। এ দিন শহিদ জওয়ানদের প্রতি গভীর শোক প্রকাশ করেছেন জাভেদ আখতার। কড়া ভাষায় এই ঘটনার নিন্দা করেছেন শাবানা আজমিও। এই প্রথমবার তিনি কোনও সাহিত্য সম্মেলনে যাবেন না বলে জানিয়েছেন।

দক্ষিণ কাশ্মীরের পুলওয়ামার অবন্তীপোরায় বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে তিনটে নাগাদ শ্রীনগর-জম্মু হাইওয়েতে সিআরপিএফ কনভয়ে হামলা চালায় জঙ্গিরা। প্রথমে বিস্ফোরক বোঝাই একটি মহিন্দ্রা স্করপিও গিয়ে ধাক্কা মারে সিআরপিএফ-এর একটি ট্রাকে। বিকট শব্দে কেঁপে ওঠে এলাকা। এরপরেই জওয়ানদের ঘিরে ধরে গুলিবৃষ্টি করতে থাকে জঙ্গিরা। চোখের পলকে ছিন্নভিন্ন হয়ে যান অন্তত ৪০ জনেরও বেশি সিআরপিএফ জওয়ান। আহত হয়েছেন অসংখ্য। মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছে সেনাবাহিনী। ঘটনার খানিকক্ষণের মধ্যেই দায় স্বীকার করে জঙ্গি সংগঠন জইশ-ই-মহম্মদ।

সেনা সূত্রে খবর, প্রায় ২০০ কেজি বিস্ফোরক ছিল ওই ট্রাকে। জানা গিয়েছে, বিস্ফোরক ভর্তি গাড়ি চালাচ্ছিলেন কুড়ি বছরের জইশ জঙ্গি আদিল আহমেদ। বছর দেড়েক আগে জঙ্গি সংগঠনে যোগ দিয়েছিলেন আদিল।

Shares

Comments are closed.