শনিবার, সেপ্টেম্বর ২১

দেনার দায়ে ধুঁকছে এয়ার ইন্ডিয়া, বন্ধ জ্বালানি সরবরাহ, অমিল বেতন, বিক্রি হতে পারে ১০০% শেয়ার

দ্য ওয়াল ব্যুরো: জেট এয়ারওয়েজে তালা পড়ে গিয়েছে আগেই। এ বার পালা এয়ার ইন্ডিয়ার। আগামী মাসের মধ্যেই এই বিমান সংস্থার ১০০ শতাংশ শেয়ারই বিক্রি করে দিতে পারে সরকার।

এই মুহূর্তে বাজারে প্রায় ৫৮ হাজার কোটি টাকার দেনা রয়েছে এয়ার ইন্ডিয়ার। তেল সংস্থাগুলির কাছে দেনা প্রায় সাড়ে চার হাজার কোটির। সূত্রের খবর, সাত মাসের বেশি জ্বালানি এবং এভিয়েশন টার্বাইন ফুয়েল (এটিএফ)-এর খরচ মেটায়নি এয়ার ইন্ডিয়া। এই বিপুল অঙ্কের বকেয়া না মেটানো অবধি এয়ার ইন্ডিয়াকে জ্বালানি সরবরাহ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশন (বিপিসিএল), ইন্ডিয়ান অয়েল কর্পোরেশন (আইওসি) ও হিন্দুস্তান পেট্রোলিয়াম কর্প (এইচপিসিএল)-এর মতো তেল সংস্থাগুলি। গত বৃহস্পতিবার আইওসি জানিয়েছে, রাঁচি, মোহালি, পটনা, ভাইজ্যাক, পুণে ও কোচি, এই পাঁচটি বিমানবন্দরে  এয়ার ইন্ডিয়াকে জ্বালানি সরবরাহ করবে না তারা।

গত অক্টোবর থেকে বেতন পাচ্ছেন না কর্মীরা। এয়ার ইন্ডিয়া কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, সব কর্মীদের বেতন দিতে প্রতি মাসে ৩০০ কোটি টাকা করে দরকার বিমান সংস্থার। সেই টাকার জোগান এই মুহূর্তে তাদের কাছে নেই। এয়ার ইন্ডিয়ার মুখপাত্র ধনঞ্জয় কুমার জানিয়েছেন, সরকারি হস্তক্ষেপ ছাড়া এই বিপুল ধারের বোঝা মেটানো সম্ভব নয়।

গতবছর এয়ার ইন্ডিয়া বিক্রির চেষ্টা হয়। কিন্তু সেটি সফল না হওয়ায় নতুন করে চিন্তা ভাবনা শুরু হয়েছে। সরকার তাদের হাতে থাকা এয়ার ইন্ডিয়ার সব শেয়ারই বিক্রি করে দেবে বলে জানা গেছে। তার জন্য নতুন দরপত্রও চাওয়া হবে।

বেশ কয়েক বছর ধরেই প্রতিযোগিতায় পিছিয়ে পড়ছে এয়ার ইন্ডিয়া। বিভিন্ন বেসরকারি উড়ান সংস্থাগুলি খুব কম দামে পরিষেবা দিচ্ছে। সেই জায়গায় বাজার ধরে রাখতে পারছে না এয়ার ইন্ডিয়া।

Comments are closed.