বুধবার, অক্টোবর ১৬

মমতার ঝুলনে খেলনা দিচ্ছেন অভিষেক, পিকের প্রচারে কোথায় অন্য নেতারা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: চলছে ঝুলন যাত্রা। শ্রবাণের শেষ সপ্তাহের পরব উঠে এসেছে প্রশান্ত কিশোরের প্রচারে। ধর্মীয় অনুষ্ঠানের ছবি এঁকে তুলে ধরা হয়েছে রাজ্যের উন্নয়ন চিত্র। কিন্তু সেই উন্নয়ন চিত্রে ঠাঁই হয়নি রাজ্যের কোনও মন্ত্রীর। মুখ্যমন্ত্রী পিসির সঙ্গে ভাইপো অভিষেকই রয়েছেন কচিকাঁচাদের সঙ্গে।

সম্প্রতি ‘দিদিকে বলো’ প্রচারের পাশাপাশি নির্বাচনী কৌশলী প্রশান্ত কিশোরের টিম তৃণমূল কংগ্রেসের হয়ে আরও একটি ফেসবুক পেজ খুলেছে। ‘আমার গর্ব মমতা’ নামের সেই ফেসবুক পেজেই ঝুলন উপলক্ষে একটি আঁকা ছবি পোস্ট করা হয়েছে। তাতে দেখা যাচ্ছে, রাধা-কৃষ্ণের ঝুলনের পাশাপাশি রয়েছেন গোপাল ঠাকুরও। সাত শিশু ঘিরে রাখা ওই ঝুলন মেলায় নানা খেলনার মাধ্যমে তুলে ধরা হয়েছে এই রাজ্যের বিভিন্ন উন্নয়নের চিত্র। আরও একজন মহিলা ছাড়াও ছেলেমেয়েদের খেলনা সাজিয়ে দিচ্ছেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর তার পাশেই এক ঝুড়ি ফুল আর খেলনা নিয়ে হাজির যুব তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

রাজ্যবাসীকে ঝুলনের শুভেচ্ছা জানিয়ে পিকে-র টিম ফেসবুকে লিখেছে– “গত আট বছরে বাংলাকে প্রগতির পথে চালিত করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দীর্ঘ অপশাসনের পরে রাজ্যবাসীকে উপহার দিয়েছেন এক গুচ্ছ উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড। তাই বাংলার মানুষের গর্ব মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।”

এখানেই তৈরি হয়েছে প্রশ্ন। রাজ্য সরকারের উন্নয়ন চিত্রে মুখ্যমন্ত্রীর পাশে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় কেন? অভিষেক সাংসদ হলেও রাজ্যে সরকারের কেউ নন। কিন্তু তিনি একাই রয়েছেন মুখ্যমন্ত্রীর পাশে। সেখানে ফিরহাদ হাকিম, অরূপ বিশ্বাস, শুভেন্দু অধিকারী কিংবা সুব্রত মুখোপাধ্যায়দের স্থান হয়নি।

এনিয়ে তৃণমূলের এক নেতার বক্তব্য, এটা তো জলের মতোই পরিষ্কার। প্রথম থেকেই প্রশান্ত কিশোর বিষয়টা অভিষেক সামলাচ্ছেন। এনিয়ে দলের ভিতরে সেভাবে কোনও আলোচনাই হয়নি। অভিষেকই নবান্নে প্রশান্ত কিশোরকে এনেছেন, তাঁর উপস্থিতিতেই দলনেত্রী বৈঠক করেছেন। অন্যান্য মন্ত্রীরা টিম পিকের নির্দেশ মান্য করলেও সরাসরি যোগাযোগ নেই। সেজন্যই ছবিতেও স্থান নেই।

Comments are closed.