মঙ্গলবার, অক্টোবর ১৫

কাশ্মীরের অঘোষিত শাসক এখন ডোভাল, উপত্যকায় শান্তি ফেরানোর দায়িত্ব তাঁরই

  • 1.1K
  •  
  •  
    1.1K
    Shares

দ্য ওয়াল ব্যুরো: কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ জানিয়ে দিয়েছিলেন, উপত্যকার প্রশাসনিক পরিকাঠামো নতুন করে গড়ে তুলতে জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভালই সবটা দেখবেন। সোমবার রাজ্যসভায় কাশ্মীর পুনর্গঠন বিল পেশ করে এ কথা বলেছিলেন শাহ। মঙ্গলবারই কাশ্মীরে চলে যান ডোভাল। তারপর থেকে দেখা গিয়েছে কখনও তিনি রাজ্যপালের সঙ্গে কখনও বিএসএফ বা সিআরপিএফ আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। কখনও আবার সাধারণ মানুষের সঙ্গে মিশে গিয়ে তাঁদের আস্থা অর্জনের চেষ্টা করছেন। শনিবারও তাঁকে দেখা গেল, অনন্তনাগে ঘুরে ঘুরে সাধারণ মানুষের সঙ্গে কথা বলতে।

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, উপত্যকার অঘোষিত শাসক এখন অজিত ডোভালই।

এর আগে কাশ্মীরের জঙ্গি সমস্যা সমাধানে ভূমিকা নিয়েছিলেন ডোভাল। মিজোরামের উগ্রপন্থাকে খতমেও তাঁর ভূমিকা ছিল অপরিসীম। পাকিস্তানে ভারতের হয়ে চরবৃত্তি করার মতো ঝুঁকির কাজও করেছেন দীর্ঘদিন। পর্যবেক্ষকদের মতে, এ হেন পোড় খাওয়া ডোভালের চোখ দিয়েই এখন উপত্যকাকে দেখতে চাইছেন নরেন্দ্র মোদী, অমিত শাহ। উপত্যকায় শান্তি প্রতিষ্ঠার দায়িত্ব তাঁর কাঁধেই।

দু’দিন পরেই ঈদ। ৩৭০ ধারা বিলোপের পর জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও বলেছিলেন, উপত্যকার মানুষ যাতে শান্তিতে ঈদ উদযাপন করতে পারেন, যাঁরা ঈদের জন্য ঘরে ফিরবেন, তাঁরা যাতে শান্তিতে ফিরতে পারেন, সব দেখবে সরকার। শনিবার দেখা গেল কাশ্মীরের অনন্তনাগে সাধারণ মানুষের সঙ্গে রাস্তায় ঘুরে ঘুরে কথা বলছেন জাতীয় ডোভাল। কুরবানির জন্য আনা ভেড়ার গায়ে হাত বুলিয়ে স্থানীয়দের থেকে জানলেন কত ওজন, কোথা থেকে আনা হয়েছে—ইত্যাদি প্রভৃতি।

গত মঙ্গলবার থেকেই কাশ্মীরে রয়েছেন ডোভাল। দু’দিন আগেই তাঁকে দেখা গিয়েছিল কাশ্মীরের রাস্তায় সাধারণ মানুষের সঙ্গে সেখানকার স্বাস্থ্য, শিক্ষার ব্যাপারে কথা বলতে। এ-ও দেখা গিয়েছিল রাস্তার ধারে কখনও দাঁড়িয়ে, কখনও সিঁড়িতে বসে বিরিয়ানি খাচ্ছেন তিনি। উদ্দেশ্য একটাই, স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে উপত্যকার মানুষের আস্থা ফেরানো। পরিস্থিতি স্বাভাবিক করা।

আস্তে আস্তে স্বাভাবিক হচ্ছে উপত্যকা। শ্রীনগর ও সংলগ্ন এলাকায় চালু হয়েছে ইন্টারনেট পরিষেবা। এ দিন দেখা গিয়েছে শ্রীনগরের এটিম-এ মানুষের লম্বা লাইন। ঈদের আগে সমগ্র ভূস্বর্গকেই স্বাভাবিক ছন্দে ফেরাতে চাইছে কেন্দ্র। এ দিন ডোভালে অনন্ত নাগের রাস্তায় হাঁটতে হাঁটতে এক জায়গায় দাঁড়িয়ে পড়েন। দেখা যায় একটি বিরাট মাঠের পাশে সারি দিয়ে দাঁড় করানো রয়েছে ভেড়া। জানতে চান ভেড়াগুলির ওজন কেমন। স্থানীয়রা জানায় এক একটি ভেড়ার ওজন গড়ে ৩৫-৩৬ কেজি। জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টাকে তাঁরা এ-ও জানান যে, এই ভেড়াগুলিকে আনা হয়েছে দ্রাস, কার্গিল থেকে। এই অনন্তনাগই সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপের জন্য বারবার শিরোনামে এসেছে। কিন্তু কেন্দ্রের দাবি, উপত্যকায় নতুন যুগের সূচনা হয়েছে। সেটাকেই নিশ্চিত করতে কাশ্মীরের জায়গায় জায়গায় ঘুরে বেড়াচ্ছেন ডোভাল।

 

Comments are closed.