সোশ্যাল মিডিয়ার গ্রুপে নজর রাখবে পুলিশ, নির্দেশিকা মানতে হবে অ্যাডমিনকে, গুজব রুখতে কড়া দাওয়াই জম্মু-কাশ্মীর প্রশাসনের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: কোলাপসিবল গেটের পাশে সেঁধিয়ে যাওয়া রক্তাক্ত একটা মুখ। নাক-মুখ থেকে গলগল করে বার হচ্ছে রক্ত। হাত তুলে বাধা দেওয়ার চেষ্টা করছেন এক যুবক। কাশ্মীরি শাল বিক্রেতা জাভেদ আহমেদ খানের এই ছবি সামনে আসার পরই শিউরে ওঠে গোটা দেশ। শুধু জাভেদই নন, পুলওয়ামা কাণ্ডের পর উগ্র ‘দেশভক্তি’র জিগির তোলা উন্মত্ত বাহিনীর হাতে রক্তাক্ত দেশের অসংখ্য নিরপরাধ মানুষ। গুজবের জেরে একের পর এক অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেই চলেছে। হিংসা বন্ধ করতে কড়া হয়েছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। এ বার গুজব বন্ধ করতে ও সোশ্যাল মিডিয়ায় রাশ টানতে তৎপর হল জম্মু-কাশ্মীর সরকারও।

জম্মু-কাশ্মীর প্রশাসনের তরফে বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়েছে, সব রকম গুজব ও হিংসা বন্ধ করতে কড়া ব্যবস্থা নেবে প্রশাসন। বলা হয়েছে, কোনও রকম শোনা কথা বা গুজব প্রচার করবেন না। সোশ্যাল মিডিয়ায় সাম্প্রদায়িক বা সংবেদনশীল কোনও পোস্ট করবেন না। বরং বিতর্কিত বিষয়ে কোনও খবর পেলেই আইন নিজের হাতে তুলে না নিয়ে  পুলিশকে জানান। সেই সঙ্গে নির্দেশিকা দেওয়া হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাডমিনদেরও।

প্রশাসনের তরফে বলা হয়েছে,  ফেসবুক, হোয়াটস্অ্যাপের যে কোনও গ্রুপ থেকেই মূলত ভুয়ো খবর বেশি ছড়িয়ে পড়ে। কাজেই সেই সব গ্রুপের অ্যাডমিনদের অনেক বেশি সতর্ক থাকতে হবে। নতুন গ্রুপ তৈরি হলে অবিলম্বে স্টেশন হাউস অফিসারকে সেই গ্রুপের নাম ও যাবতীয় তথ্য দিতে হবে। গ্রুপে কোনও সাম্প্রদায়িক পোস্ট, আপত্তিকর ছবি বা ভিডিও আপলোড হলে সেই বিষয়ে বিস্তারিত ভাবে জানাতে হবে পুলিশকে।  মেসেজ সেন্ডিং অপশনেও থাকবে নিষেধাজ্ঞা। শুধুমাত্র গ্রুপ অ্যাডমিনই কোনও মেসেজ পাঠাতে বা ফরওয়ার্ড করতে পারবেন।

কাশ্মীরে জওয়ানদের নিহত হওয়ার ঘটনার পরে গোটা দেশই উত্তাল হয়েছে। দেশ জুড়ে একদিকে স্বঘোষিত ‘দেশভক্ত’দের দাপাদাপি অন্যদিকে, গুজব আর ভুয়ো খবরের জেরে মারামারি, গণপিটুনির ঘটনাও ঘটেছে। পড়শি রাষ্ট্র ও কাশ্মিরীদের লক্ষ্য করে বিদ্বেদ ছড়ানো হচ্ছে।  অভিযোগ, যাঁরা তার প্রতিবাদ করছেন বা বিরুদ্ধ মত প্রকাশ করছেন, তাঁদের বাড়িতে চড়াও হয়ে হামলা করছেন এক দল উগ্র ‘দেশপ্রেমিক’। সোশ্যাল মিডিয়ায় খুন, ধর্ষণের হুমকি দেওয়া হচ্ছে। আর এই পরিস্থিতি সামলাতেই এমন পদক্ষেপ। আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সোশ্যাল মিডিয়া গ্রুপে এই ব্যবস্থা জারি থাকবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

 

আরও পড়ুন:

গুজব ছড়াবেন না, গুজবে কানও দেবেন না, টুইটার বার্তায় সতর্ক করল কলকাতা পুলিশ

গুজব ছড়াবেন না, গুজবে কানও দেবেন না, টুইটার বার্তায় সতর্ক করল কলকাতা পুলিশ

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.