বুধবার, নভেম্বর ২০
TheWall
TheWall

ভারতের নতুন রাজনৈতিক ম্যাপ প্রকাশ করল কেন্দ্র, ২৮টি রাজ্য, ৯টি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল  

দ্য ওয়াল ব্যুরো: দেশের নতুন রাজনৈতিক মানচিত্র প্রকাশ করল কেন্দ্রীয় সরকার। শনিবার এই নতুন পলিটিক্যাল ম্যাপ প্রকাশ করা হয়েছে কেন্দ্রের তরফে। আগের থেকে রাজ্যের সংখ্যা একটি কমে দু’টি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের সংখ্যা বেড়ে গিয়েছে।

আগে ২৯টি রাজ্য ছিল দেশে। কিন্তু গত ৫ অগস্ট জম্মু ও কাশ্মীর থেকে বিশেষ সাংবিধানিক মর্যাদা তুলে নেওয়ার পাশাপাশি কেন্দ্রীয় সরকার জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখকে দুটি পৃথক কেন্দ্র শাসিত অঞ্চল হিসেবে ঘোষণা করে। ফলে এখন দেশের মোট রাজ্য সংখ্যা দাঁড়াল ২৮টি এবং সাত থেকে বেড়ে দেশের মোট কেন্দ্র শাসিত অঞ্চলের সংখ্যা দাঁড়াল ন’টি। গত ৩১ অক্টোবর থেকে সরকারি ভাবে পথ চলা শুরু করেছে নতুন দুই কেন্দ্র শাসিত অঞ্চল জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখ। এদিন নতুন রাজনৈতিক ম্যাপ প্রকাশ করল সরকার।

গত বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন, “এতদিনে জম্মু-কাশ্মীরে রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা আসবে। সেখানে কায়েমি স্বার্থে সরকার গড়া হত এবং ভেঙে দেওয়া হত। এবার সেসব বন্ধ হবে।” সর্দার বল্লভভাই পটেলের জন্ম দিবসের অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “এখন থেকে নতুন ভাবে পথ চলবে জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখ।”

নতুন রাজনৈতিক মানচিত্র

আসুন দেখে নেওয়া যাক ভারতবর্ষের রাজ্যগুলি কী কী-

অন্ধ্রপ্রদেশ, প্সম, অরুণাচলপ্রদেশ, বিহার, ছত্তীসগড়, গোয়া, গুজরাত, হরিয়ানা, হিমাচলপ্রদেশ, ঝাড়খণ্ড, কর্ণাটক, কেরল, মধ্যপ্রদেশ, মহারাষ্ট্র, মণিপুর, মেঘালয়, মিজোরাম, নাগাল্যান্ড, ওড়িশা, পঞ্জাব, রাজস্থান, সিকিম, তামিলনাড়ু, তেলেঙ্গানা, ত্রিপুরা, উত্তরাখণ্ড, উত্তরপ্রদেশ এবং পশ্চিমবঙ্গ।

কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল-

আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জ, চণ্ডীগড়, দাদরা ও নগর হাভেলি, দমন ও দিউ, দিল্লি, লক্ষদ্বীপ, জম্মু-কাশ্মীর এবং লাদাখ।

পড়ুন ‘দ্য ওয়াল’ পুজো ম্যাগাজিন ২০১৯ – এ প্রকাশিত গল্প

Comments are closed.