রবিবার, ডিসেম্বর ১৫
TheWall
TheWall

মায়ের হাতে শক্ত করে ধরা দেড় বছরের ছেলের হাত, দেহ উদ্ধারে গিয়ে চোখে জল উদ্ধারকারীদের

দ্য ওয়াল ব্যুরো : মা আর শিশু পড়ে রয়েছে পাশাপাশি।  উদ্ধার করা হয়েছে যখন, তখনও মায়ের নিথর হাতে শক্ত করে ধরা বাচ্চাটির হাত।  দুজনের আর কারোরই দেহে প্রাণ নেই।  অনেক বিদেশি ছবিতে এমন দৃশ্য দেখেওছি আমরা।  কিন্তু কেরলের বন্যা বিধ্বস্ত এলাকায় উদ্ধারকাজে গিয়ে কঠিন মুখের উদ্ধারকারীদেরও চোখ চিকচিক করেছে বাস্তবের এই ছবি দেখে।

গত কয়েকদিন ধরেই তুমুল বৃষ্টিতে ভেসে গেছে কেরল।  কোথাও কোথাও মাটি আলগা হয়ে ধসও নেমেছে।  মৃত্যুর সংখ্যা প্রায় ১০০ ছুঁতে চলেছে।  কেরলের পাহাড়ি এলাকা কোট্টাক্কুন্নু।  সেখানেই গত সপ্তাহে বৃহস্পতি-শুক্রবার থেকে ধস নেমেছিল।  শুক্রবার দুপুরের ধসে শরৎ আর গীতুর বাড়ি ধুয়ে মুছে যায়।  ২১ বছরের গীতু তখন তাঁর দেড় বছরের ছেলে ধ্রুবর সাথে ঘুমিয়েছিলেন।  সে সময়েই ঘটে এই মারাত্মক ঘটনা।  উদ্ধারকারীরা রবিবার তাঁদের দেহ যখন উদ্ধার করেন, কাদা-মাটির ধ্বংসাবশেষে মিশে ছিল মা ও সন্তান।  তখনও মায়ের হাতে সন্তান নিশ্চিন্ত আশ্রয়ে।  হয় তো গীতু ভেবেছিলেন, ছেলেকে আগলে রাখলে আর ভেসে যাবে না সে।  শেষ পর্যন্ত মায়ের সাথেই সকলকে বিদায় জানাতে হয়েছে দেড় বছরের ছোট্ট ধ্রুবকে।

শরৎ আহত হয়ে কোনওক্রমে সেই জায়গা থেকে পালিয়ে বেঁচেছেন।  তাঁর মা সরোজিনীর দেহ সোমবার উদ্ধার করা হয়।  কেরলের মালাপুরপুরের ভঙ্গুর অঞ্চল কোটাক্কুন্নুতে শরৎ ও তাঁর পরিবার ভাড়া বাড়িতে থাকতেন।  গত সপ্তাহে প্রবল বৃষ্টিপাত ও ধারাবাহিক ভূমিধসে শরৎ তাঁর পুরো পরিবারকেই হারালেন।

Comments are closed.