বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ১৯

শান্তি আলোচনা বন্ধ করায় আরও আমেরিকানের মৃত্যু হবে, হুমকি তালিবানের

দ্য ওয়াল ব্যুরো : গত সপ্তাহে কাবুলে বিস্ফোরণে এক আমেরিকান সৈনিক ও আরও ১১ জনের মৃত্যু হয়। সেই হামলার দায় স্বীকার করে তালিবান। তার পরেই আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ঘোষণা করেন, তালিবানের সঙ্গে তাঁদের গোপনে যে শান্তি আলোচনা চলছিল, তা বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে। ট্রাম্প ওই মন্তব্য করার কয়েক ঘণ্টার মধ্যে তালিবান জানাল, শান্তি আলোচনা বন্ধ করায় আরও বেশি আমেরিকানের মৃত্যু হবে।

গত কয়েক মাস ধরে আমেরিকার মেরিল্যান্ডে ক্যাম্প ডেভিডে তালিবানের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে বৈঠকে বসেছিল আমেরিকার প্রশাসন। কিন্তু সম্প্রতি প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ঘোষণা করেছেন, কাবুলে বিস্ফোরণের পরে তালিবানের বিরুদ্ধে সামরিক অভিযান থামানোর প্রশ্নই নেই। তার জবাবে তালিবানের মুখপাত্র জাবিউল্লা মুজাহিদ বলেন, আমেরিকা শান্তি আলোচনা চালানোর পাশাপাশি আফগানিস্তানে আক্রমণও চালাচ্ছিল।

পরে তিনি বলেন, শান্তি আলোচনা থামিয়ে দেওয়ার ফলে আমেরিকার আরও ক্ষতি হবে। কারণ আমেরিকার আর কোনও বিশ্বাসযোগ্যতা নেই। সারা দুনিয়া জেনে গিয়েছে, তারা শান্তি চায় না। ফলে তাদের তরফে জীবন ও সম্পত্তিহানি বাড়বে।

ওয়াশিংটনে আমেরিকার বিদেশ সচিব মাইক পম্পিও বলেন, আফগানিস্তানের সঙ্গে শান্তি আলোচনা আপাতত বন্ধ রাখা হয়েছে। যতদিন না আমরা নিশ্চিত হচ্ছি যে, তালিবান তার প্রতিশ্রুতি পালন করবে, ততদিন ওই অঞ্চল থেকে সেনা সরিয়ে আনার প্রশ্ন ওঠে না। কিছুদিন আগে আমেরিকা থেকে আফগানিস্তানে বিশেষ দূত হিসাবে জালমিয়া খলিলজাদ নামে এক ব্যক্তিকে পাঠানো হয়েছিল। তাঁকেও আমেরিকায় ফিরিয়ে আনা হচ্ছে। গত রবিবার ফক্স নিউজে এক সাক্ষাৎকারে পম্পিওকে প্রশ্ন করা হয়, আফগানিস্তানে শান্তি আলোচনা কি শেষ হয়ে গেল? তিনি বলেন, কিছুদিনের জন্য আলোচনা বন্ধ আছে ধরে নেওয়া যায়।

Comments are closed.