BREAKING: ১৬ তারিখ মেদিনীপুর থেকে ভোট প্রচার শুরু মোদীর

0

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

দ্য ওয়াল ব্যুরো: এ মাসের ২১ তারিখ ধর্মতলায় তৃণমূলের শহিদ সমাবেশ। শাসক দলের সূত্র জানাচ্ছে, ওই দিন থেকেই কার্যত লোকসভা ভোটের প্রচার শুরু করে দেবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দেশের প্রধানমন্ত্রী পদে এ বার একজন বাঙালিকে দেখতে চায় তৃণমূল। কিন্তু তামাম তৃণমূল শিবিরকে চমকে দিয়ে বিজেপি আজ জানিয়ে দিল, বাংলায় লোকসভা ভোটের শুভ মহরৎ তার পাঁচ দিন আগেই শুরু করে দেবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। মেদিনীপুর কলেজিয়েট মাঠে মোদীর সভা হবে ১৬ জুলাই। বাংলায় এ বার তাঁর টার্গেট ৪২-এ ২২!

তৃণমূল যখন পশ্চিমবঙ্গে লোকসভার ৪২ টি আসনই জেতার সঙ্কল্প করছে তখন অমিত শাহ গত সপ্তাহে কলকাতায় এসে জানিয়ে দিয়েছেন, বাংলায় তাঁরা এ বার ২২ টি আসন জিততে চান। সাংগঠনিক এবং নির্বাচনী কৌশলের প্রাথমিক ঘুঁটিও সাজিয়ে গিয়েছেন বিজেপি-র সর্বভারতীয় সভাপতি। সেই সঙ্গে বুঝিয়ে দিয়েছেন, বাংলায় সরকার বিরোধিতায় বাম-কংগ্রেস ক্রমশ প্রাসঙ্গিকতা হারাচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে লোকসভার লড়াইকে ‘মমতা বনাম মোদী’ ডায়রেক্ট ফাইটে পর্যবসিত করতে চান তিনি। ঠিক যে কৌশলে ত্রিপুরায় পঁচিশ বছরের বাম শাসনের পতন ঘটিয়েছে বিজেপি।

বস্তুত লোকসভা ভোটে এ বার ‘পূবে তাকাও’ নীতি নিয়েছেন নরেন্দ্র মোদী-অমিত শাহ জুটি। কেন?

কারণ, চোদ্দর ভোটে উত্তর ভারত এবং পশ্চিম ভারতের রাজ্যগুলিতে আসন জেতার ক্ষেত্রে বিজেপি এক প্রকার সম্পৃক্ত জায়গায় পৌঁছে গিয়েছিল। উত্তরপ্রদেশে ৮০ টি আসনের মধ্যে গত লোকসভায় বিজেপি জিতেছিল ৭১টি আসনে। মধ্যপ্রদেশে ২৯টি আসনের মধ্যে ২৭ টিই জিতেছিল তারা। সেই সঙ্গে গুজরাত, রাজস্থান, দিল্লি, হরিয়ানায় সব আসনে জিতেছিল বিজেপি। ফলে সেখানে আসন বাড়ানোর আর কোনও সুযোগ নেই। বরং উত্তরপ্রদেশ, মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থান, পঞ্জাবে সাম্প্রতিক সব উপনির্বাচনে আসন খুইয়েছে বিজেপি। লোকসভা ভোটে উত্তরপ্রদেশে সপা-বসপা-কংগ্রেস মহাজোট হলে সেখানে আসন কমার প্রভূত আশঙ্কা রয়েছে।

তাই বিজেপি এখন পূর্ব ভারতের রাজ্যগুলি থেকে আরও বেশি করে আসন জিততে চায়। ওড়িশা, অসম, বিহার, বাংলা, ত্রিপুরা সহ পূর্ব ও উত্তর-পূর্বের রাজ্যগুলিতে আগে থেকে তাই প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছেন মোদী-শাহ। কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের চার বছর পূর্তির পর ভোটের দিকে তাকিয়ে মোদী তাঁর প্রথম রাজনৈতিক সভাটি করেছিলেন কটকে। এ বার টার্গেট বেঙ্গল। মমতার আগেভাগেই নেমে পড়তে চাইছেন মোদী।

তৃণমূল নেতারা অবশ্য কটাক্ষ করে বলছেন, ‘প্রচার তো করবেন কিন্তু সংগঠন কোথায়? পঞ্চায়েত ভোটেই তো নমুনা দেখা গেল!  তৃণমূলের কারও বা তীর্যক মন্তব্য, বাংলায় একটা প্রবাদ আছে,-আগে গেলে বাঘে খায়!

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

You might also like

Leave A Reply

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More