বুধবার, মার্চ ২০

মন্ত্রিসভায় সতীর্থ মহিলা মন্ত্রীর কোমরে হাত দিয়ে বিতর্কে ত্রিপুরার বিজেপি মন্ত্রী মনোজ কান্তি

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বিতর্ক যেন পিছু ছাড়ছে না ত্রিপুরার বিপ্লব দেব সরকারকে!

তিনি মুখ খুললেই বিতর্ক। আবার তিনি যখন মুখ বন্ধ রেখেছেন, তাঁর মন্ত্রিসভার খাদ্য, যুব কল্যাণ ও ক্রীড়া মন্ত্রী মনোজ কান্তি দেব সতীর্থ মহিলা মন্ত্রীর কোমরে হাত দিয়ে নতুন বিতর্কে জড়ালেন। তা-ও কি না সরকারি অনুষ্ঠানে, যখন মঞ্চে ছিলেন খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সান্ত্বনা চাকমা নামে ওই মন্ত্রী বিপ্লব দেবের মন্ত্রিসভায় এক মাত্র আদিবাসী মহিলা প্রতিনিধি।

দু’দিন আগে ত্রিপুরা সফরে এসেছিলেন প্রধানমন্ত্রী। একটি সরকারি শিলান্যাস অনুষ্ঠানে তাঁর সঙ্গে মঞ্চে ছিলেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব। অনুষ্ঠানের একটি ভিডিও ক্লিপিংয়ে দেখা যায় প্রধানমন্ত্রী যখন ফলক উন্মোচন করছেন, তখন মঞ্চের এক পাশে দাঁড়িয়ে পিছন থেকে সান্ত্বনা চাকমার কোমরে হাত রেখেছেন মনোজ। কিন্তু তখনই তাঁর হাত সরিয়ে দেন সান্ত্বনা।

এই ভিডিও ভাইরাল হতেই হই হই পড়ে গিয়েছে ত্রিপুরায়। বামফ্রন্টের আহ্বায়ক বিজন ধর বলেন, মনোজ কান্তিকে এখনই মন্ত্রিসভা থেকে বরখাস্ত করা উচিত। কারণ, উনি এক জন মহিলা সতীর্থর সঙ্গে প্রকাশ্যে যে রকম অভব্য আচরণ করেছেন তা সভ্য সমাজে মেনে নেওয়া যায় না। এতে মন্ত্রিসভার একমাত্র মহিলার শ্লীলতাহানি হয়েছে।

দেখুন সেই ভিডিও।

বিজনবাবু আরও বলেন, বিজেপি ত্রিপুরায় ক্ষমতায় আসার পর থেকেই রাজ্যে মহিলাদের উপর অত্যাচার, ধর্ষণের ঘটনা বেড়ে গিয়েছে। মনোজ কান্তি দেবকে এর পরেও মন্ত্রিসভায় রেখে দিলে গোটা রাজ্যে ভুল বার্তা যাবে।

এ ব্যাপারে মনোজ কান্তি দেবের প্রতিক্রিয়ার জন্য সাংবাদিকরা তাঁকে ফোন করেছিলেন। কিন্তু তিনি কোনও মন্তব্য করতে রাজি হননি। তবে বিজেপি মুখপাত্র নবেন্দু ভট্টাচার্য বলেছেন, সিপিএম রাজনৈতিক ভাবে বিজেপি-র সঙ্গে লড়াই করতে পারছে না। তাই তিলকে তাল করার চেষ্টা করছে। মন্ত্রিসভার ওই মহিলা সদস্য কিন্তু কোনও অভিযোগই জানায়নি।

তবে এর পরেও যে বিতর্ক থেমেছে তা নয়। গোড়ায় শুধু বামেরা এ ব্যাপারে সরব হয়েছিলেন। এখন কংগ্রেস ও ছোট ছোট আদিবাসী রাজনৈতিক দলগুলিও এ ব্যাপারে বিজেপি সরকারের সমালোচনায় নেমেছে। তা ছাড়া মনোজ কান্তির সমালোচনায় ঝড় উঠেছে সোশ্যাল মিডিয়াতেও।

Shares

Comments are closed.