বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ১৯

‘কালা জাদুর’ হাত থেকে বাঁচতেই মুম্বইয়ে শিশুকে আটতলা থেকে ছুঁড়ে খুন

দ্য ওয়াল ব্যুরো : গত রবিবার তিন বছরের শিশুকন্যা শানিয়াকে আটতলার জানলা দিয়ে ছুঁড়ে ফেলেছিলেন অনিল বিষ্ণু চুগানি। ৪৩ বছরের অনিল নাকি শানিয়ার যমজ বোনকেও একইভাবে খুন করতে চেয়েছিলেন। পুলিশ তাঁর ডায়েরি ঘেঁটে জানতে পেরেছে, ‘কালা জাদুর’ হাত থেকে রক্ষা পেতেই তিনি শিশুকন্যাটিকে ছুঁড়ে ফেলে দেন।

চুগানি একসময় মরক্কোয় কাজ করতেন। সেখানে তাঁর সহকর্মী ছিলেন ৫০ বছর বয়সী এক মহিলা। চুগানির ধারণা হয়, ওই মহিলা কালা জাদুর প্রভাবে তাঁর ক্ষতি করছেন। জেরায় তিনি বলেন, স্বপ্নে নাকি ঈশ্বর তাঁকে দেখা দিয়েছিলেন। তিনি বলেন, কালা জাদুর প্রভাব থেকে মুক্তি পেতে হলে যমজ দু’টি শিশুকে হত্যা করতে হবে। চুগানির ডায়েরিতেও সেই স্বপ্নের কথা লেখা আছে। পরে চুগানি জানতে পারেন, কোলাবায় রেডিও ক্লাব মার্গে তাঁর প্রতিবেশী প্রেমলাল হাথিরমানির যমজ কন্যাসন্তান আছে।

পুলিশ জানিয়েছে, চুগানি প্রায়ই প্রেমলালের বাড়িতে যেতে শুরু করেন। দু’টি শিশুর সঙ্গে তিনি খেলতেন। তাদের চকোলেট কিনে দিতেন।  চুগানি ৭ সেপ্টেম্বর প্রেমলালকে বলেন, যমজ কন্যাদু’টিকে তিনি বেড়াতে নিয়ে যাবেন। প্রেমলালের একটি ছয় বছরের ছেলে আছে। তিনি সেই ছেলে ও শানিয়াকে চুগানির সঙ্গে পাঠান। সঙ্গে প্রেমলালের বাড়ির কাজের লোকও গিয়েছিলেন। চুগানি দু’জনকে চকোলেট কিনে দেন। বাড়ি ফিরে চুগানির হাত পরিষ্কার করে দেওয়ার নাম করে তাকে নিয়ে যান শোওয়ার ঘরে। তাঁর জানলা দিয়েই শানিয়াকে ছুঁড়ে ফেলে দেন।

চুগানি পুলিশকে জানিয়েছে, শানিয়ার যমজ বোনটি বাড়ির কাজের লোকের কাছে ছিল। তাই তাকে ছুঁড়ে ফেলতে পারেননি। কোলাবা পুলিশ জানিয়েছে, ২০১৩ সালের কালা জাদু ও মানুষ বলি প্রতিরোধী আইনে চুগানির বিরুদ্ধে চার্জশিট দেওয়া হয়েছে।

Comments are closed.