সরো, যাও, বোসো… জলে নেমে কুমিরের নাক ছুঁয়ে গপ্পো! যেন পোষ্যর সঙ্গে বোঝাপড়া, দেখুন ভিডিও

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

দ্য ওয়াল ব্যুরো: “সরো। চলে যাও এখান থেকে। বোসো, এখানে বোসো।”—ঠিক যেন পোষা কুকুরের সঙ্গে আদর করে কথা বলছেন মালিক। এমনই মনে হবে শুনলে। কিন্তু চোখে দেখলে বোঝা যাবে, এতটাও ‘মিষ্টি’ নয় বিষয়টা। এই কথাগুলো বুঝিয়ে বলে বাগ মানানোর চেষ্টা চলছে ১৩ ফুট লম্বা একটি পেল্লাই কুমিরকে! অস্ট্রেলিয়ার কুমীর বিশেষজ্ঞ ম্যাট রাইটের এমনই একটি ভিডিও সামনে এসেছে সম্প্রতি, যা দেখে আতঙ্কে, বিস্ময়ে শিউরে উঠছেন সকলে।

জানা গেছে, ম্যাট রাইট অস্ট্রেলিয়ার উত্তর অংশে একটা নদীতে নামছিলেন। কিন্তু ‘পথ আটকে’ ছিল একটা কুমির। ম্যাটের ভাষায় এটা পথ আটকানো হলেও, আসলে তা নয়। কুমীরটা আচমকা মানুষ দেখে বেশ তেড়েমেড়েই এগিয়ে এসেছিল। বিশাল বড় হাঁ আর তাতে সাজানো করাতের মতো দাঁতের সারি দেখে যে কেউ ভয়ে পালাবে সেই মুহূর্তে। কিন্তু ম্যাট তো আর ‘যে কেউ’ নন! তিনি কুমীরের বন্ধু। কুমীরের সঙ্গেই ঘর তাঁর। স্টিভ আরউইনের শিষ্য। তাই তেড়ে আসা কুমীরকে দিব্যি বুঝিয়েসুঝিয়ে মানিয়ে নিতে লাগলেন তিনি।

ম্যাট নিজেই অবশ্য কুমীরটিকে ডাকছেন ‘বোনক্রাঞ্চার’ বলে। অর্থাৎ একবার ধরতে পারলে সে হাড়গোড় পর্যন্ত কুড়মুড়িয়ে চিবিয়ে খাবে, তা তিনি জানেন। কিন্তু তা সত্ত্বেও রীতিমতো অনুরোধের সুরে কুমীরটিকে বলে চলেছেন, বোসো এখানে, যাও, এবার চলে যাও। আর সেই সঙ্গে নাকের ডগায় হাত দিয়ে আস্তে আস্তে ঠেলে সরাচ্ছেন তাকে।

Croc Wrangler's video sparks controversy

Earlier this week Top End Croc Wrangler Matt Wright sparked controversy over this video of him getting friendly with a 4-metre crocodile called Bonecruncher. 🐊"It's a great relationship we've built with Bonecruncher, but I do not want to set an example where people think they can befriend a crocodile. This is something special," Matt Wright told ABC News Breakfast. Here's the full story: https://ab.co/32EZa38 📹 Matt Wright | @mattwright on Instagram

ABC Darwin এতে পোস্ট করেছেন বৃহস্পতিবার, 17 সেপ্টেম্বর, 2020

ভিডিওটি দেখে প্রবল উত্তেজিত দর্শকরা। হু হু করে ভাইরাল হয়েছে এটি। কেউ লিখেছেন, অস্ট্রেলিয়ার সেরা ছবি এটাই। কেউ আবার লিখেছেন, এ তো পুরো কুকুরছানার মতো পোষ মানাচ্ছে কুমীরকে! কেউ আবার এই ‘স্টান্ট’-এর সমালোচনাও করেছেন। বলেছেন, এই ভিডিও দেখে পর্যটকরা এই কাজ করতে গেলে সম্যক বিপদ।

Image may contain: 1 person, smiling, standing, cloud, outdoor, text and nature

ম্যাট রাইটের অবশ্য এসবে ভ্রূক্ষেপ নেই। তিনি বলছেন, “আমি তো এই ‘ব্রোনক্রাঞ্চার’কে অনেক দিন ধরে চিনি। আর এই কুমীরটা বেশ বাধ্য ছিল।” তবে পাশাপাশি তিনি মনে করিয়ে দিয়েছেন, “আমি কুমীরের সঙ্গে দারুণ সম্পর্ক তৈরি করেছি। কিন্তু আমি কখনওই চাই না, আমায় দেখে কেউ এমনটা করতে চেষ্টা করুন বা কুমীরকে বন্ধু ভাবুন। এটা স্পেশ্যাল একটা বিষয়। সকলের জন্য কুমীর মোটেও নিরীহ নয়। তার ধারেপাশেও না যাওয়াই ভাল।”

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

You might also like

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More