মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ১৭

বিশাল বিস্ফোরণ হিন্দুস্তান পেট্রোলিয়ামের ট্যাঙ্কারে! দাউদাউ জ্বলছে প্ল্যান্ট, আতঙ্কে জনশূন্য এলাকা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: আর পাঁচটা দিনের মতোই শুরু হয়েছিল এ দিনটাও। কাজেকর্মে বেরোচ্ছিলেন লোকজন। গৃহবধূরা ব্যস্ত ছিলেন ঘরের কাজে। স্কুল-কলেজও শুরু হয়ে গিয়েছিল ছোটদের। আচমকা আকাশ-ফাটানো বিস্ফোরণের বিকট এক শব্দে চমকে উঠলেন সকলে! বড়সড় বিস্ফোরণ ঘটেছে হিন্দুস্তান পেট্রোলিয়ামের প্ল্যান্টে!

উত্তরপ্রদেশের উন্নাওয়ের এই ঘটনায় আতঙ্ক ছড়িয়ে যায় নিমেষে। প্ল্যান্ট-সংলগ্ন গ্রামগুলির লোকজন ঊর্ধ্বশ্বাসে পালাতে শুরু করেন। আশপাশের গ্রামগুলি থেকেও বাসিন্দাদের সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। এখনও পর্যন্ত হতাহতের বিস্তারিত খবর জানা যায়নি। তবে বিস্ফোরণের জেরে ব্যাহত হয়েছে লখনউ-কানপুর শাখার ট্রেন চলাচল।

পুলিশ জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার সকালে উন্নাওয়ে হিন্দুস্তান পেট্রোলিয়াম প্ল্যান্টে কাজ চলছিল। আচমকাই বিস্ফোরণ ঘটে যায়। বীভৎস শব্দ শুনে দৌড়ে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যান কর্মীরা। প্রত্যক্ষদর্শী কর্মীদের দাবি, হিন্দুস্তান পেট্রোলিয়ামের ওই প্ল্যান্টের একটি ট্যাঙ্কারে হঠাৎই বিশাল বিস্ফোরণ ঘটে।

এর পরই প্ল্যান্টে দাউদাউ করে আগুন জ্বলে যায়। কালো ধোঁয়ায় ঢেকে যায় চার দিক। দমকলের বেশ কয়েকটি ইঞ্জিন ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। যুদ্ধকালীন তৎপরতায় শুরু হয় পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার কাজ। যদিও তত ক্ষণে প্রাণ বাঁচাতে হুড়োহুড়ি শুরু করে দেন কর্মীরা। প্রায় পদপিষ্ট হওয়ার মতো পরিস্থিতি হয়। তবে এই ঘটনায় ঠিক কত জন কর্মী জখম হয়েছেন বা কেউ মারা গিয়েছেন কি না, সে বিষয়ে এখনও পর্যন্ত কোনও তথ্য পাওয়া যায়নি।

হিন্দুস্তান পেট্রোলিয়াম কর্তৃপক্ষের তরফে চূড়ান্ত সতর্কতা জারি করা হয় সঙ্গে সঙ্গে। প্রচুর পরিমাণে গ্যাস ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা করা হয়। আপাতত ওই প্ল্যান্টের প্রায় ৫ কিলোমিটার দূর পর্যন্ত এলাকা পুরোপুরি ঘিরে ফেলা হয়েছে। কাউকে ধারেকাছে ঘেঁষতে দেওয়া হচ্ছে না।

কানপুরের বিভিন্ন স্টেশনে দাঁড়িয়ে রয়েছে ঝাঁসি প্যাসেঞ্জার, উন্নাও-এলটিটি ট্রেন, উন্নাও-আজগাঁও এক্সপ্রেস। ভোগান্তির মুখে পড়েছেন বহু রেলযাত্রী। কখন পরিষেবা স্বাভাবিক হবে, এখনও পর্যন্ত কিছু জানা যায়নি।

Comments are closed.