Latest News

উপন্যাস — মর্ম–মা

বই-কথা

ধর্মান্তর, অনুগামিনী-র পর মর্ম-মা যেন এক উজ্বল সময়কে ফিরে দেখা। ‘মর্ম-মা’ উপন্যাসের মূল ভরকেন্দ্র ভক্তি বা ধর্ম নয়।
উপন্যাস শুরু হচ্ছে, ভারতবর্ষের বৈপ্লবিক আন্দোলনের এক অনিশ্চয়তার পর্ব নিয়ে। অরবিন্দ ঘোষকে আত্মগোপনের উদ্দেশে যাত্রা করিয়ে নিবেদিতা ভাবছেন, কীভাবে তিনি বৈপ্লবিক কর্মকাণ্ডকে প্রবহমান রাখবেন।
এদিকে, স্বামী ব্রহ্মানন্দ এসেছেন মায়ের কাছে। কে এই মা? ঠাকুর রামকৃষ্ণদেবের তিরোধানের পর নহবতের আড়ালে থাকা সারদা মা হলেন প্রকাশিত। তিনি বিপ্লবীদের আশ্রয়স্থল। ঠাকুর বলতেন, সারদা~ তোমার লক্ষ-অযুত সন্তান হবে।
এদিকে, বারীন, উল্লাসকর, উপেন্দ্রনাথ, হেমচন্দ্র প্রমুখ বিপ্লবীরা এলেন সেলুলার জেলে।
সেলুলার জেলে জেলর বারি আস্ত শয়তান। সে বলে– It is there that we tame lions.
অকথ্য, নির্মম অত্যাচারের বিরুদ্ধে বিপ্লবীদের প্রতিবাদ ‘বন্দেমাতরম’ গীত।
জেলের মধ্যে ভারতীয় বিপ্লবীদের উদারতা, নির্ভীকতার পাশাপাশি উপন্যাস বিধৃত করেছে সংকীর্ণতাও। হিন্দু, মুসলমান, আর্য সমাজ, কট্টর হিন্দুধর্মের প্রচার আর মাঝে–মধ্যেই বারীনের মতন অগ্রগণ্য বিপ্লবীদের সংশয়ের উত্তরে নাস্তিক হেমচন্দ্রের পর্যবেক্ষণ~ ধর্ম কীভাবে বিনষ্ট করছে সংহতি!
কালাপানির অভ্যন্তরে আলোচনা হয় এ রকমও~ ‘রাশিয়ার লেনিনের লক্ষ কী’?
Dictatorship of the proletariat.
বারীনের বিদ্রূপ– Dictatorship তবে থাকছে!
উপেন চেয়েছিলেন সন্ন্যাসী হতে, হয়ে গিয়েছেন বিপ্লবী। তখন ভোররাত। মহাসাগরের কলস্রোত আর হিল্লোলিত বায়ুর চকিত আগমনে তিনি গেয়ে উঠলেন~ বহে জীবন রজনী দিন চির নতুন ধারা/ করুণা তব অবিশ্রান্ত জনমে মরণে/ আনন্দলোকে মঙ্গলালোকে…
ধীরে ধীরে আবির্ভাব হচ্ছে ভারতবর্ষে এক নতুন নেতার। তাঁর নাম মোহনদাস করমচাঁদ গান্ধী। তিনি পড়ছেন, থেরোর ‘Civil disobedience’.
আপাতত গোখলের ভাবশিষ্য তিনি, কিন্তু মোহনদাস করমচাঁদ গান্ধীর পথ ‘অহিংস অসহযোগ’।
নিবেদিতাকে ‘খুকি’ বলে ডাকেন সারদা। নিবেদিতা মায়ের সমস্ত কথার অর্থ বুঝতে পারেন না, কিন্তু এতে পারস্পরিক ভালবাসা–শ্রদ্ধাবিনিময়ের কোনও অসুবিধে হয় না।
এবার আসি মর্ম–মায়ের কথায়।
দেশমাতৃকা সাকার নন। কিন্তু মর্ম–মা সাকার।
তিনি লক্ষ-অযুত সন্তানের অনুপ্রেরণা। তাই তিনি বিপ্লবী, সন্ন্যাসী, ব্রহ্মচারী, সৎ, অসৎ– সবার মর্ম–মা।
মর্ম-মা~ এক সাধারণ নারীর আত্মপ্রকাশের কাহিনি। ইতিহাস-চেতনা এই নভেলার যদি প্রেক্ষাপট হয়, বিপ্লবাত্মক আন্দোলন যদি প্রবহমান সময়ের অগ্নিমে ইঙ্গিত হয়, তবুও উপন্যাসের মর্মে রইল এক চিরায়ত হৃদয়, যেখানে জননী ও জন্মভূমি একাত্ম হয়ে প্রতিভাত হয়। বিপ্লবীদের আশ্রয় দিতে মর্ম–মায়ের কোনও দ্বিধা নেই। বরং তিনি সন্ন্যাসী ও বিপ্লবীদের প্রকৃত বরাভয়দানকারিণী।

মর্ম–মা
অভিজিৎ চৌধুরী
আনন্দ পাবলিশার্স
আনন্দ নভেলা
মূল্য– ২০০ টাকা
প্রচ্ছদ: ওঙ্কারনাথ ভট্টাচার্য

You might also like