মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ১৭

চা পাতা এত মুশকিল আসান করতে পারে, আপনার জানা আছে ?

 দ্য ওয়াল ব্যুরো: চা ছাড়া আপনার ঘণ্টাখানেকও চলে না? সকালের বেড টি থেকে অফিসের কাজের ফাঁকে বারবার চায়ের ধোঁয়া আপনাকে আশ্রয় দেয় পরের মুহূর্তের জন্য? আর চা খেয়ে আপনি চাঙ্গা হওয়ার পরে টি ব্যাগটা নিশ্চয় ফেলে দেন।  কিন্তু এই টি ব্যাগে আপনার অনেক সমস্যার সমাধান লুকিয়ে আছে।  আপনি জানতেন না।  জেনে নিন চা পাতা জলে ফোটানোর পরে, চায়ে চুমুক দেওয়ার পরেও চা পাতা আপনার কত কাজে আসতে পারে।

ডার্ক সার্কল দূর করে

অনেকের চোখের নীচে ডার্ক সার্কল বসত বাড়ি বানিয়ে ফেলে।  কিছুতেই যেতে চায় না।  সেই অংশ ফুলেও থাকে।  এই নাছোড় সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে টি ব্যাগের কাজ হয়ে যাওয়ার পরে ওটা কিছুক্ষণ ঠাণ্ডা করে নিন।  তারপরে সেই স্যাঁতস্যাঁতে টি ব্যাগ নিয়ে চোখের নীচে কিছুক্ষণ রেখে দিন।  দেখুন চোখের ফোলা ভাব এবং ডার্ক সার্কল দুইই কেমন সুড়সুড় করে পালিয়ে যাবে।

সানবার্ন দূর করে
গ্রীষ্মপ্রধান দেশে আমরা থাকি।  প্রচণ্ড ধুলো, ধোঁয়া, দূষণ তো থাকেই, সঙ্গে দোসর বেড়ে চলা তাপমাত্রা।  অনেকেরই স্কিন জুড়ে সানবার্ন তার ছাপ রেখে যায়।  কিছুতেই চামড়ার বাদামি বা লালচে ভাব দূর করা যায় না।  তাঁদের জন্য টি ব্যাগের সুরাহা আছে।  টি ব্যাগ নিয়ে একটু ঠাণ্ডা জলে চুবিয়ে জলটা ঝরিয়ে নিন।  সেই টি ব্যাগ লালচে বা বাদামি হওয়া জায়গায় হাল্কা করে চেপে চেপে ধরুন।  কিছুদিন বাদে দেখবেন সান বার্ন আর নেই।

রুক্ষ চুলকে করে চকচকে

চুল খুব রুক্ষ, তাই এক মাসে চারবার পার্লারে গিয়ে প্রচুর টাকা খরচ করছেন, নয়  বাজার থেকে হাজার রকমের কন্ডিশনার কিনছেন।  কিন্তু টি ব্যাগ ১০ থেকে ১৫ মিনিট ফুটিয়ে নিয়ে সেই জল মানে চা দিয়ে কখনও চুল ধুয়ে দেখেছেন? নিশ্চয় না।  করে দেখুন, এত ধুলো, ধোঁয়া, দূষণে যে চুল তার চকচকে ভাব হারিয়ে ফেলেছে, তাকে চা পাতার সান্নিধ্য দিন।  ফুরফুরে, চকচকে করে তুলুন।  শ্যাম্পু করার পরে চুলে চা দিন, দশ মিনিট রাখুন।  আর ফলাফল পান নিয়মিত ব্যবহারে।

পায়ের গন্ধ দূর করে
শু স্প্রে তে খরচ তো করছেন অনেকটা।  কিন্তু সেভাবে ফল পাচ্ছেন না।  কোথাও গিয়ে জুতো খুললেই পা থেকে বিশ্রী গন্ধ বেরোচ্ছে।  আর চারপাশের লোকজনের সামনে আপনি অপ্রস্তুত হয়ে পড়ছেন।  ব্যবহৃত টি ব্যাগ জুতোয় রেখে দিতে পারেন রাতভর।  জুতোর গন্ধ সহজেই চলে যেতে পারে।  এ ছাড়া আপনি চাইলে টি ব্যাগ একটু গরম জলে চুবিয়ে নিন বালতিতে, সেই অল্প গরম জলেই পা চুবিয়ে রাখুন কিছুক্ষণ।  দেখুন সমস্যা নেই আর।

গাছের সার হিসেবে ভালো
অনেকেই বাড়িতে ছোট ছোট টবে নানা গাছ রাখেন।  সেগুলোতে সার দিতে গিয়ে হিমশিম হন অনেকেই।  তাঁদের জন্য মুশকিল আসান কিন্তু এই ব্যবহৃত চা পাতাই।  এগুলোই দিয়ে দিন টবগুলোতে।  দেখবেন গাছ কেমন তরতাজা হয়ে বাড়ছে।

অতএব ব্যবহার করা হয়ে গেছে বলেই আর ছুঁড়ে ফেলে দেবেন না চা পাতা।

Comments are closed.