Latest News

এক পায়েই ব্যালে নাচের কী দাপট! সারা দুনিয়াকে চমকে দিয়েছে কিশোরী গাবি

দ্য ওয়াল ব্যুরো: আমাদের সুস্থ, স্বাভাবিক জীবন নিয়েও কত আক্ষেপ করি তাই না! মাথার উপর ছাদ, দুবেলা পেটভরা খাবার। চোখ-কান-নাক-মুখ-হাত-পা সব থাকার পরেও আনন্দ খুঁজে পাই না কিছুতেই। অথচ দেখুন, সারা বিশ্বেই এমন কিছু উদাহরণ খুঁজে পাবেন, যাঁরা প্রতিবন্ধকতাকে জয় করছেন প্রতিদিন। শিল্পসাধনায় মগ্ন থাকছেন। চমকে দিচ্ছেন সারা পৃথিবীর মানুষকে।

এমনই এক উদাহরণ গাবি সুল। সে একজন ব্যালে নর্তকী। মাত্র পনেরো বছর বয়সেই সাবলিল নাচের ভঙ্গিমায় সারা পৃথিবীর মানুষকে চমকে দিয়েছে গাবি। তবে আর পাঁচটা সাধারণ ব্যালে নর্তকীর মতো সে নয়। অস্টিওসার্কোমা অর্থাৎ পায়ের ক্যান্সার হওয়ার পর ন’বছর বয়সে তার একটা পা বাদ যায়। তবে ভেঙে পড়েনি গাবি, বরং এক পা নিয়েই শিল্প সাধনায় মগ্ন থেকেছে দিনের পর দিন।

সবকিছু স্বাভাবিকই ছিল প্রথমে। হঠাৎ একদিন আইস স্কেটিং করার সময় পায়ে আঘাত পায় গাবি। হসপিটালে ভর্তি হওয়ার পর এক্স-রে রিপোর্টে দেখা যায় তার পায়ে ক্যানসার। ডাক্তাররা জানিয়ে দেন, গাবি আর কোনওদিন নাচ করতে পারবে না। কিন্তু পরবর্তীতে রোটেশনপ্লাস্টি সার্জারি হয় গাবির।

গাবির সার্জেনরা অপরেশনের মাধ্যমে তার পায়ের পাতা , পায়ের সঙ্গে ১৮০ ডিগ্রি অ্যাঙ্গেলে লাগিয়ে দেন। যার ফলে এখন সে স্বাভাবিক ভাবেই চলাফেরা করতে পারে, এমনকি নাচও করতে পারে। সুস্থ হওয়ার পরে হিপহপ, ট্যাপ, জ্যাজ, মডার্ন, লিরিক্যাল, ব্যালে নাচের ক্লাসে যোগ দেয় সে। নিয়মিত প্রশিক্ষণের পরে এখন সে আর পাঁচটা সাধারণ মেয়ের সঙ্গেই নাচ করে। এখানেই শেষ নয়। ‘ট্রুথ ৩৬৫’ নামের এক সংগঠন, যা শিশুদের ক্যানসার নিয়ে সর্তক বার্তা ছড়ায়, তার জাতীয় প্রতিনিধি এখন গাবি সুল।

নিঃসন্দেহে গাবি সুল ভারতীয় ভরতনাট্যম নৃত্যশিল্পী সুধা চন্দনের কথা মনে করায়। বহুবছর আগে এক দুর্ঘটনার পর সুধাজির দুই পা বাদ চলে যায়। তবুও তারপর তিনি থেমে থাকেননি। সিনেমা, সিরিয়ালে অভিনয় তো করেইছেন, এমনকি অনেক নাচের রিয়েলিটি শোতেও অংশগ্রহণ করতে তাঁকে দেখা গিয়েছিল।

You might also like