Latest News

পাওলির নতুন ‘গামোসা মাস্ক’ ঝড় তুলেছে ফ্যাশন উৎসাহীদের মনে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: গতকাল অভিনেত্রী পাওলি দাম তাঁর নতুন ‘গামোসা মাস্ক’ পরে ইনস্টাগ্রামে ছবি পোস্ট করেন। পুজোর পরেই মুখে মাস্ক পরে বরের সঙ্গেও ছবি পোস্ট করেন তিনি। নতুন মাস্ক যে পাওলির ভীষণ পছন্দের সেটা ছবি দেখলেই বুঝতে পারবেন। নিজেই লিখেছেন এই মাস্ক পরে নাকি সারাদিন কাটানো যায়। পাওলির এই নতুন ফেসমাস্ক ঝড় তুলেছে ফ্যাশন উৎসাহীদের মনে।

সাধারণত শ্বাস নিতে কষ্ট হয় বলে অনেকেই দীর্ঘক্ষণ সিন্থেটিক মাস্ক পরে থাকতে পারেন না। তবে আসামের গামছা দিয়ে তৈরি এই মাস্ক ভীষণ কমর্ফোটেবল বলেই জানিয়েছেন অভিনেত্রী। সারাদিন পরে থাকা যায়, এমনকি শ্বাস নিতে একটুও অসুবিধা হয় না।

লক্ষ্মীপুজোর দিন সাদা নীল-লাল পেড়ে শাড়ির সঙ্গে ম্যাচিং গামোসা মাস্ক পরে ছবি পোস্ট করেন পাওলি। তারপরই এই নতুন ‘গামোসা মাস্ক’ ফ্যাশন উৎসাহীদের মধ্যে হিড়িক পড়ে যায়। কোথায় পাওয়া যায় এই মাস্ক! – ফ্যানেদের প্রশ্নের উত্তরে পাওলি জানিয়েছেন, তাঁর মাস্ক ডিজাইন করেছেন তাঁর বন্ধু ও ডিজাইনার জুলি দেব।

গামছা নিয়ে ফ্যাশন ইন্ড্রাস্ট্রিতে প্রথম কাজ শুরু করেন বাংলাদেশের ডিজাইনার বিবি রাসেল। বাংলাদেশী গামছার শাড়ি, ড্রেস, ব্যাগ তো বটেই, এমনকি ঘর সাজানোর জিনিসও তৈরি করেছিলেন গামছা দিয়ে। সারা বিশ্বে তোলপাড় শুরু হয়েছিল তাঁর এই কাজ নিয়ে। পরবর্তীতে বিবির কাজে উদ্বুদ্ধ হয়ে অনেকেই গামছা নিয়ে কাজ শুরু করেন। তবে আসামিজ গামছা দিয়েও যে ফেস মাস্ক তৈরি করা যায় এটা ভাবেননি অনেকেই। তিন স্তরের এই মাস্ক শুধু ফ্যাশনের জন্য নয়, করোনা আবহে বাইরের জগতেও কার্যকারী বলেই মনে করছেন পাওলি।

পাওলি নিজেই লেখেন, “আমি খুব ভাগ্যবান যে এমন ঐতিহ্যশালী এক দেশে আমি জন্মেছি। দেশের প্রতিটা রাজ্যের সংস্কৃতি আমাকে মুগ্ধ করে। এটা ভেবে আনন্দ হয় আমাদের দৈনন্দিন জীবনের প্রয়োজনীয় জিনিসেও আমরা একটা অভিনব সমাধান পেয়ে যাই।”

করোনা কালে মানুষের সবচেয়ে কাছের জিনিসটাই হল মাস্ক। মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করার পর বাজারে এসেছে নানা রকম ফেস মাস্ক। সবচেয়ে উপকারী N95, সার্জিক্যাল মাস্ক। কিন্তু কয়েকমাস পর বাজার নকল N95 মাস্ক ছেয়ে যায়। যা পরলে আদতে কোন উপকার হয় না। ডাক্তাররা তখনই সাধারণ সুতি কাপড়ের মাস্ক ব্যবহার করতে বলেছিলেন। তবে মাথায় রাখতে হবে সেটা যেন তিনটে স্তরের হয়। তাহলেই সেটা উপকারী।

You might also like