Latest News

শুধু পরিবেশে নয়, কুয়াশা জমতে পারে মস্তিষ্কেও! কীভাবে বাঁচবেন, রইল উপায়

দ্য ওয়াল ব্যুরো: শীতকালের সকালে পরিবেশের কোলে কুশায়া দেখতেই অভ্যস্ত আমরা। কিন্তু জানেন কি দীর্ঘ দিনের মানসিক চাপ, হতাশা, অনিদ্রা, টেনশনের জন্য আপনার মস্তিষ্কেও জমছে কুয়াশা! মাথা যন্ত্রণা, মেজাজ খিটখিটে হয়ে যাওয়া সবটাই এরই দান, আর তখনই মনে হয় মাথায় যেন কেউ একটন ইঁটের বোঝা চাপিয়ে দিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে নিজে আর কোনও ভাবেই নিজের মধ্যে নেই। সিদ্ধান্ত নিতে পারছেন না। মনোবিদ্যার ভাষায় অনেকে একে ‘ব্রেন ফগ’ বা ‘মাথার কুয়াশা’ বলেন।

কিন্তু এই অবস্থা থেকে রেহাই পাবেন কী করে ভাবছেন তো? তারও উত্তর দিচ্ছেন আমেরিকার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের এক দল মনোবিদ।

শরীরচর্চা

মনের ক্লান্তি কাটাতে শরীরচর্চা কাজে লাগতে পারে। খেলাধুলো বা হালকা এক্সারসাইজ করলে শরীরে রক্ত সঞ্চালন বাড়ে। ফলে বাড়ে শরীরে অক্সিজেনের মাত্রা। এতে মাথার ক্লান্তিও অনেকটা কাটে। তাই মনের ক্লান্তি কাটাতে এক্সারসাইজের মাধ্যমে শরীরকে ক্লান্ত করে দেওয়াটা সহজ রাস্তা। এমনটাই মত ওই মনোবিদদের।

মনসিক চাপ কমানো

সব থেকে বেশি গুরুত্বপূর্ণ হল মনকে ভাল রাখা। এখন প্রত্যেকের ফোনে সর্বদা নানা নোটিফিকেশন আসতেই থাকে। মেসেজ বা ইমেল তো আছেই, তার বাইরে নানা অ্যাপের নানা নোটিফিকেশন। এতে মস্তিষ্ক ক্লান্ত হয়ে পড়ে। আবার যার মেসেজের অপেক্ষায় রয়েছেন সেটা না পেলেও মন উতলা হয়ে ওঠে! এই অবস্থা থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য প্রতিদিন কিছুটা সময় ধ্যান বা মেডিটেশন করা যেতে পারে। এমনটাই পরামর্শ মনোবিদদের।

ডায়েটে পরিবর্তন

তেলেভাজা বা অতিরিক্ত মিষ্টি খেলে শুধু শরীর নয়, মস্তিষ্কও কিছুটা ক্লান্ত হয়ে পড়ে। ফলে ঘুম পায়। এই সব খাবারের কারণে পেটে এমন কিছু ব্যাকটেরিয়া জন্মায়, যা এই ক্লান্তির কারণ। কিন্তু তার মানেই এটা নয়, পছন্দের সব মিষ্টি বা ভাজাভুজি বাদ দিতে হবে। বরং স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোবিদরা বলছেন, রাতে টানা ১০ ঘণ্টা পেটকে বিশ্রাম দিন। ওই সময় কিছু খাবেন না। আর ফল বা স্বাস্থ্যকর খাবারের পরিমাণ বাড়ান রোজকার ডায়েটে।

সূর্যের আলো

মস্তিষ্কের বা মনের ক্লান্তি দূর করতে ঘুমের বিরাট ভূমিকা আছে। ঘুম ভাল হলে এই ক্লান্তি দ্রুত কাটে। আমেরিকার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোবিদ্যা বিভাগের জার্নাল বলছে, প্রতি দিন সূর্য ওঠা আর ডোবার সময় কিছু ক্ষণ যদি সেই আলোতে দাঁড়ানো যায়, তা হলে ঘুম ভাল হয়। রাতে চট করে ঘুম চলে আসে, আবার দিনের শুরুতে সেই ঘুম ভেঙেও যায়।

You might also like