Latest News

সাত দিনেই হবে রেডিওথেরাপি, বাংলায় স্তন ক্যানসারের আধুনিক চিকিৎসা আনল অ্যাপোলো

দ্য ওয়াল ব্যুরো: দেশের অনেক উন্নত শহরেই স্তন ক্যানসার (Breast Cancer) নিরাময়ে রেডিওথেরাপির সাহায্য নেন চিকিৎসকরা। পশ্চিমবঙ্গে এতদিন রেডিওথেরাপির যে চিকিৎসা চালু ছিল তা অনেক সময়সাপেক্ষ। আধুনিক পদ্ধতিতে খুব কম দিনের মধ্যে রেডিওথেরাপি করে স্তন ক্যানসার নিরাময়ের পথ দেখাচ্ছে অ্যাপোলো ক্যানসার সেন্টার।

ব্রেস্ট ক্যানসারের জন্য যে রেডিওথেরাপি করা হয় তার জন্য সময় লাগে তিন থেকে পাঁচ সপ্তাহ। রেডিয়েশন, কেমোথেরাপি ও অন্যান্য ট্রিটমেন্ট মিলিয়ে মোট সময় লেগে যায় ছয় থেকে আট মাস। কিন্তু আধুনিক পদ্ধতিতে অ্যাপোলো ক্যানসার সেন্টার যে রেডিওথেরাপি করছে তাতে সময় লাগবে এক সপ্তাহের মতো। অ্যাপোলো ক্যানসার সেন্টারের সিনিয়র রেডিয়েশন অনকোলজিস্ট ডাঃ সায়ন পল জানিয়েছেন, রেডিওথেরাপির এই বিশেষ পদ্ধতির ট্রায়াল হয়েছে ব্রিটেনে। চার হাজারের বেশি স্তন ক্যানসারের রোগীর ওপরে পরীক্ষামূলক প্রয়োগ করে এই থেরাপির কার্যকারিতার কথা জানিয়েছেন ক্যানসার বিশেষজ্ঞরা। আমাদের দেশেও এখন ব্রেস্ট ক্যানসারের চিকিৎসায় রেডিওথেরাপির প্রয়োগ করছেন ডাক্তাররা।

ডাঃ সায়ন বলছেন, স্তন ক্যানসার যদি প্রাথমিক স্টেজে ধরা পড়ে তাহলে চিকিৎসায় নিরাময় সম্ভব। কোনও কোনও রোগীর একইসঙ্গে অস্ত্রোপচার, কেমোথেরাপি ও রেডিওথেরাপির দরকার পড়ে। এই রেডিওথেরাপি হল চিকিৎসার অন্তর্বতী পর্যায়। এতে টানা এক মাসের বেশি সময় লেগে যায়। কিন্তু ব্রিটেনে যে থেরাপির ট্রায়াল হয়েছে সেটি প্রয়োগ করলে এক সপ্তাহের মধ্যে রেডিয়েশন দিয়ে ক্যানসার কোষগুলির বাড়বাড়ন্ত রোখা যায়। পশ্চিমবঙ্গে এখন সেই থেরাপিরই প্রয়োগ শুরু করেছে অ্যাপোলো ক্যানসার সেন্টার। সবচেয়ে বড় সাফল্য এটাই।

গবেষকদের মতে, অপেক্ষাকৃত অল্পবয়সীদের মধ্যে থাবা বসাচ্ছে এই রোগ। যাঁদের বয়স ২৫-৫০। বর্তমান লাইস্টাইল, খাদ্যাভ্যাসে পরিবর্তন, অতিরিক্ত নেশার প্রকোপ নানা করণেই ক্যানসারের প্রচলিত ওষুধ অনেক ক্ষেত্রেই কার্যহীন হয়ে পড়ছে। এমনও দেখা গেছে, প্রাথমিক পর্যায়ে রোগ ধরা পড়লেও কয়েক মাসের মধ্যে হু হু করে সেটা বেড়ে গিয়ে স্টেজ-ফোরে পৌঁছে যাচ্ছে। উন্নত মানের কেমোথেরাপিও রোগ নিয়ন্ত্রণ করতে পারছে না। এক বার রোগ সেরে যাওয়ার কয়েক বছরের মধ্যে দ্বিতীয়বার ক্যানসারের কবলে পড়েছেন এমন উদাহরণ অজস্র। যে কোনও বয়সে, যে কোনও মহিলার স্তন ক্যানসার হতে পারে। আমাদের দেশে ৯১% ক্ষেত্রে স্তন ক্যানসারের কোনও পারিবারিক ইতিহাস থাকে না। তবে যাঁদের পরিবারে আগে এই রোগ হয়েছে, সেখানে অনেক সময়ে এই রোগের ক্লাস্টার দেখা দিতে পারে। কয়েক প্রজন্ম অন্তর অন্তর রোগের প্রাদুর্ভাব ফিরে আসতেই পারে।

ডাঃ সায়ন বলছেন, এই রেডিয়েশন থেরাপির পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই। এক মাসের বেশি থেরাপি চললে প্রতি ১৫ দিন অন্তর রোগীকে হাসপাতালে আসতে হয়। ক্যানসার রোগীর ক্ষেত্রে যা অনেকসময়েই অসম্ভব হয়ে পড়ে। শারীরিক পরিশ্রমও হয়। তাই কম সময়ের মধ্যে রেডিয়েশন শেষ করার জন্য এই আধুনিক থেরাপির প্রয়োগ করা হচ্ছে। এতে সময় লাগবে কম করে সাত দিন। রেডিয়েশনের পরে রোগীর তেমন কোনও শারীরিক অস্বস্তি বা গুরুতর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দেওয়ার সম্ভাবনাও কম।

অ্যাপোলো গ্রুপের ডিরেক্টর অব মেডিক্যাল সার্ভিস ডাঃ সুরিন্দর সিং বলছেন, অ্যাপোলো ক্যানসার সেন্টারে রোগীদের উন্নত থেরাপি দেওয়ার চেষ্টা করা হয়। এই রেডিয়েশন থেরাপি রোগীদের জন্য নিরাপদ ও কার্যকরী হবে।

পড়ুন দ্য ওয়ালের সাহিত্য পত্রিকা সুখপাঠ

You might also like