Latest News

ডিমেনশিয়া: কারণ, উপসর্গ ও চিকিৎসা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ডিমেনশিয়া হল একধরনের ক্লিনিক্যাল উপসর্গ যেটা মানুষের স্মৃতিশক্তি, চিন্তাভাবনা, সামাজিক ক্ষমতা ইত্যাদিকে প্রভাবিত করে। ডিমেনশিয়া কোনও নির্দিষ্ট একটি রোগ নয়, বিভিন্ন রোগের কারণেই ঘটে। স্মৃতিশক্তি হ্রাসের সঙ্গে ডিমেনশিয়া জড়িয়ে রয়েছে।

এর অনেকগুলি উপসর্গ রয়েছে যা বিভিন্ন রোগে ঘটে। এটি ব্যবহারিক কার্যকারিতায়, একজনের দৈনন্দিন জীবনকে প্রভাবিত করে। এটি একটি বিশ্বব্যাপী সংকট এবং অনেকেই ডিমেনশিয়ার কিছু গঠনের দ্বারা আক্রান্ত।

ডিমেনশিয়ার উপসর্গ

১.শেখার ক্ষমতা কমে যাওয়া।

২.স্মৃতিশক্তি লোপ পাওয়া।

৩.ব্যক্তিত্ব এবং মেজাজ পরিবর্তন।

৪.চিন্তা শক্তি কমে যাওয়া।

৫. দ্বন্দ্বে ভোগা

৬. কমিউনিকেশন বা যোগাযোগ স্থাপনে সমস্যা

এই কারণে মানসিক পরিবর্তন

১.ব্যক্তিত্বে বদল

২. ডিপ্রেশন বা হতাশায় ভোগা

৩. অ্যানজাইটি ইস্যু

৪. হ্যালুসিনেশন

৫. মুড সুইং

ডিমেনশিয়ার প্রকারভেদ

কর্টিকাল ডিমেনশিয়া

মস্তিষ্কের বাইরের স্তর, সেরিব্রাল কর্টেক্সে সমস্যার কারণে এটি ঘটে।

সাবকোর্টিকাল ডিমেনশিয়া

এটি কর্টেক্সের নীচে থাকা মস্তিষ্কের বাকি অংশগুলোর সমস্যার কারণে ঘটে।

ডিমেনশিয়ার কারণ

প্রায় ২০ শতাংশ ডিমেনশিয়া যে কারণে হয়

১. অ্যালকোহল

২. টিউমার

৩. ব্রেনে রক্ত জমাট বেঁধে গিয়ে

৪. ভিটামিন বি১২-এর অভাবে বিপাকীয় সমস্যার কারণে

৫. কম পরিমাণে থাইরয়েড হরমোন থাকা

৬. রক্তে গ্লুকোজ কম থাকা

৭. এইচএএনডি-এইচআইভি সম্পর্কিত নিউরোকগনিটিভ ডিজঅর্ডার

এছাড়াও আরও যে কারণেগুলোর জন্য ডিমেনশিয়া হতে পারে

১.আলঝেইমার

২.ভাসকুলার ডিমেনশিয়া

ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়ার প্রয়োজনীয়তা

খুব কাছের মানুষই এই রোগটি সম্পর্কে আগে বুঝতে পারেন। যদি আপনি বুঝতে পারেন যে আপনার কোনও প্রিয়জন এই সমস্যাতে ভুগছেন তাহলে দেরি না করে যত শীঘ্র সম্ভব তাঁকে ডাক্তারের কাছে নিয়ে যান। অনেকসময় অনেক অসুখের ট্রিটমেন্টের কারণেও অনেকে স্মৃতি হারিয়ে ফেলেন। তাই সবার প্রথমে যেটা দরকার তা হল রোগটাকে আগে চিহ্নিত করা ও বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে পরামর্শ করা।

You might also like