মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ১৭

বর্ষার বাংলায় ঘুরতে যাওয়ার ১০ ঠিকানা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বর্ষায় ঘুরতে যাওয়ার একটা আলাদা মজা রয়েছে। পাহাড়ে গেলে মেঘের ছোঁয়া পাবেন। সমুদ্রে গেলে অবশ্যই পাবেন বিচে বসে রোম্যান্টিক মুডে বৃষ্টি ভেজার সুযোগ। অনেকে অবশ্য বর্ষায় ঘুরতে যেতে পছন্দ করেন না। তবে জেন ওয়াইয়ের কাছে কিন্তু বর্ষায় ঘুরতে বেরনো একটা নেশা। তার জন্য বেশি দূর যাওয়ার প্রয়োজন নেই। এই বাংলাতেই রয়েছে বেশ কিছু মনসুন ডেস্টিনেশন। হাতে ২-৩ দিন থাকলে অনায়াসেই ঘুরে আসতে পারবেন এইসব জায়গায়।

১। শান্তিনিকেতন– এমনিতেই বাঙালিদের অন্যতম পছন্দের জায়গা শান্তিনিকেতন। লালমাটির দেশে যে রয়েছে বাঙালির আবেগ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ছোঁয়া। আর সেখানে কোনও কটেজে বসে বৃষ্টির ফোঁটার সঙ্গে সোঁদা মাটির গন্ধ উপভোগ করার মজাটাই আলাদা।

২। গেঁওখালি– একটু অফবিট জায়গায় যেতে চান? তাহলে ঘুরে আসুন গেঁওখালি। মহিষাদলের কাছে ছোট্ট এই গ্রাম অনবদ্য প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে মোড়া। রূপনারায়ণ ও হুগলি নদীর সঙ্গমস্থলে অবস্থান এই গেঁওখালির। পায়ে হেঁটেই ঘুরে দেখা যায় চারপাশ। ভিড়ভাট্টা, কোলাহল বাদ দিয়ে গেঁওখালি এখনও বেশ নিরিবিলি। তাই এই বর্ষায় একবার ঢুঁ মারা যেতেই পারে।

৩। গড়পঞ্চকোট– পুরুলিয়া জেলার গড়পঞ্চকোট এখন পর্যটকদের অন্যতম পছন্দের ডেস্টিনেশন। পাহাড়ে ঘেরা এই জায়গায় পাবেন ইতিহাসের ছোঁয়াও। চট করে ঘুরে আসা যায় পাঞ্চেত ড্যামও। সব মিলিয়ে ২-৩ দিনের জন্য আদর্শন মনসুন ডেস্টিনেশন।

৪। দিঘা-মন্দারমণি-তাজপুর– বাঙালি মানেই মৎস্য প্রেমী। আর এই বর্ষায় জমিয়ে মাছ ভাজা খেতে চাইলে যেতে হবে সমুদ্রে। তা সে দিঘা হোক কিংবা মন্দারমণি বা তাজপুর। সমুদ্রের বিচে বসে বৃষ্টি উপভোগের সঙ্গে থাকবে গরম ধোঁয়া ওঠা ফ্রেশ মাছ ভাজা। উইকেন্ডের ২-৩ দিন একেবারে জমে যাবে।

৫। ডুয়ার্স-লাটাগুড়ি-চালসা– বর্ষায় পাহাড়ে যেতে অনেকেই পছন্দ করেন না। ভয়ও পান প্রাকৃতিক দুর্যোগের। তবে সে সব কাটিয়ে একবার ঘুরেই আসতে পারেন ডুয়ার্স। জঙ্গল বন্ধ থাকলেও সবুজের কোলে কয়েকটা দিন নিরিবিলিতে ভালই কাটবে।

৬। টাকি– বর্ষায় ইছামতীর তীরে টাকিতেও ঘুরে আসতে পারেন দু-তিনদিন। নদীর উপর নৌকায় বসে বৃষ্টি উপভোগ করার পাশাপাশি দর্শন মিলবে মাছরাঙা দ্বীপের। নদীর ওপারেই দেখতে পাবেন বাংলাদেশ বর্ডার।

৭। ম্যাসাঞ্জোর– উইকেন্ড ভ্রমণের জন্য ম্যাসাঞ্জর আদর্শ। আর তা যদি হয় বর্ষাকালে তাহলে তো সোনায় সোহাগা। ঘন সবুজের মাঝে বসে অবিরাম বারিধারা উপভোগের সুযোগ ছাড়া চলবে না কিন্তু।

৮। মাইথন– অল্প দিনের ছুটিতে ঘুরে আসতে পারেন মাইথনের। বাঁধের ধারে সূর্যাস্ত আর গোধূলি লগ্নের সৌন্দর্য উপভোগের পাশাপাশি চাইলে আপনি বাঁধের চারপাশ ঘুরে আসতে পারেন স্পীড বোটেও।

৯। পারমাদন– বনগাঁ-র কাছে পারমাদন উইকেন্ডে ঘোরার জন্য আদর্শ। ইছামতীর ধারে ৬৮ বর্গকিলোমিটার জায়গা নিয়ে তৈরি হয়েছে পারমাদন অভয়ারণ্য। তবে বর্ষায় সেটা বন্ধ থাকলেও সবুজের কোলে পারমাদন ক’দিনের জন্য বেশ ভালোই লাগবে।

১০। গাদিয়াড়া– দামোদর, রূপনারায়ণ এবং হুগলি নদীর সঙ্গমস্থলে অবস্থিত গাদিয়ারাও হতে পারে আপনার মনসুন উইকেন্ড ডেস্টিনেশন।

Comments are closed.