পার্টির হইহুল্লোড়েও শরীর রাখুন ফিট, মেনে চলুন এই চারটি নিয়ম

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

    দ্য ওয়াল ব্যুরো: নতুন বছর আসতে আর মাত্র তিনদিন বাকি। সদ্যই পেরিয়েছে বড়দিন। সব মিলিয়ে শহর জুড়ে এখন উৎসবের আমেজ। সেই সঙ্গে জাঁকিয়ে শীতও পড়ছে কলকাতায়। অতএব বছর শেষের পার্টি করার একদম আদর্শ পরিবেশ।

    তবে পার্টি মানেই তো মশলাদার খাবার। সঙ্গে মদ্যপান। নিদেনপক্ষে ভালমন্দ খাওয়াদাওয়া তো বটেই। আর এইসবের দৌলতে বারোটা বাজে ডায়েটের। সাংঘাতিক স্ট্রিক্ট ডায়েট ফলো করলেও বছর শেষের এই পার্টি ভাইবস আর পেটপুজো মিস করতে মন চায় না। কিন্তু তা বলে তো শরীরকে অবহেলা করা যায় না। কারণ পেটের সমস্যা হোক বা অন্য কিছু, একবার রোগ বাসা বাঁধলে সহজে নিস্তার নেই। শরীর একেবারে বেহাল হয়ে যেতে বেশিক্ষণ লাগে না।

    তাই বছর শেষের হইহুল্লোড়ের মাঝেও খেয়াল রাখতে হবে শরীরের। অনিয়ম হলেও তা যেন লাগামছাড়া না হয় সেদিকে অবশ্যই নজর দিতে হবে। কারণ কথায় আছে, ‘স্বাস্থ্যই সম্পদ’। অতএব ফিট অ্যান্ড হেলদি তো থাকতেই হবে।

    কী কী করা উচিত-

    ১। প্রচুর পরিমাণ জল খান- এমনিতেই শীতকালে জল কম খাওয়া হয়। তার মধ্যে পার্টিতে গিয়ে মশলাদার খাবার সঙ্গে অ্যালকোহল। এইসবের মধ্যে শরীরে জলের ঘাটতি হলে মারাত্মক ভাবে অসুস্থ হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। অতএব সবকিছুর সঙ্গে পরিমাণ মতো জল খাওয়া অবশ্যই প্রয়োজন।

    ২। নতুন বছরে স্বাগত জানানোর আনন্দে ফিটনেস ট্রেনিং বাদ দিলে চলবে না। চলতি মরশুমে বেশ শীত পড়েছে। কিন্তু সেই বাহানায় জিম বাদ দেওয়া যাবে না। যাঁরা বাড়িতেই যোগাসন বা অন্যান্য ফিটনেস ট্রিকস অভ্যাস করেন তাঁরাও সেটা জারি রাখুন। কারণ জানবেন খাওয়াদাওয়ার সামান্য অনিয়ম হলেও রোজের নিয়মিত একসারসাইজ শরীর ফিট রাখতে ভীষণ ভাবে সাহায্য করে।

    ৩। কী খাবেন আর কী খাবেন না সেটা নিজেই ঠিক করুন। বন্ধুদের পাল্লায় পড়ে হাবিজাবি খেয়ে নেবেন না। কারণ আপনার পেটে কী সইবে তা আপনার থেকে ভালো কেউ বুঝবে না। মদ্যপানের অভ্যাস না থাকলে অ্যালকোহল এড়িয়ে চলুন। কখনই লাগামছাড়া হয়ে মদ্যপান করা শরীরের পক্ষে ভাল নয়। অতএব পার্টিতে গেলেও পরিমিত মদ্যপান করলেই শরীরের মঙ্গল। আর অ্যালকোহলের সঙ্গে হাই প্রোটিনজাতীয় খাবার এবং খুব মশলাদার খাবার না খাওয়াই ভাল। এবং অবশ্যই মাথায় রাখবেন খালি পেটে কখনই অ্যালকোহল নেবেন না।

    ৪। হাজার অনিয়মের মাঝে পর্যাপ্ত ঘুম শরীরের সব ক্লান্তি দূর করে দেয়। তাই যাই করুন না কেন রাতেরবেলা পর্যাপ্ত ঘুম অবশ্যই প্রয়োজন। নইলে পার্টির ধকল সইতে না পেরে ঝিমিয়ে পড়ার সম্ভাবনা থেকেই যাবে।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

You might also like

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More