বৃহস্পতিবার, আগস্ট ২২

দেখি, দিদি দমদমে আমার হেলিকপ্টার নামতে দেন কিনা, বললেন মোদী

দ্য ওয়াল ব্যুরো : পশ্চিমবঙ্গের দমদমে যাচ্ছি। সেখানে জনসভা আছে। দেখি দিদি আমার কপ্টার নামতে দেন কিনা। উত্তরপ্রদেশের মাউতে এক জনসভায় মন্তব্য করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। বৃহস্পতিবারই পশ্চিমবঙ্গে প্রচারের শেষ দিন। গত মঙ্গলবার কলকাতায় অমিত শাহের রোড শো ঘিরে ব্যাপক গোলমাল বাধে। বিদ্যাসাগর কলেজে বিদ্যাসাগরের মূর্তিটিও ভাঙচুর করা হয়। কে মূর্তি ভেঙেছে তা নিয়ে ব্যাপক চাপান উতোর চলে তৃণমূল ও বিজেপির মধ্যে।

অশান্তির জেরে রাজ্যে প্রচারের সময় কমিয়ে দেয় নির্বাচন কমিশন। তা নিয়েও শুরু হয় বিতর্ক। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তো বটেই, কংগ্রেস ও বিএসপির মতো দলও নির্বাচন কমিশনের সমালোচনা করে। তাদের বক্তব্য, বিজেপির চাপেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন।  বৃহস্পতিবার পশ্চিমবঙ্গে মোদীর দু’টি সভা আছে। তার পরেই প্রচার শেষ করে দেওয়া হচ্ছে।

বিএসপি নেত্রী মায়াবতী বলেন, মোদীর সুবিধা করে দেওয়ার জন্যই বৃহস্পতিবারের পরে প্রচার বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। কংগ্রেসের অভিযোগ, স্বাধিকার হারিয়েছে নির্বাচন কমিশন। তাঁকে সমর্থন করার জন্য বিএসপি এবং কংগ্রেসকে ধন্যবাদ দেন মমতা। সেই সঙ্গে বলেন, পশ্চিমবঙ্গের মানুষ বিজেপিকে উপযুক্ত জবাব দেবেন।

অন্যদিকে বিজেপির এক প্রতিনিধি দল নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ করে, পশ্চিমবঙ্গে শান্তিপূর্ণ ভোটের জন্য অবিলম্বে দুষ্কৃতীদের আটক করা হোক।

এই প্রেক্ষিতে মোদী এদিন বলেন, পশ্চিমবঙ্গের দমদমে প্রচারে যাব। দেখি দিদি আমার কপ্টার নামতে দেন কিনা। পারলে তিনি আমার কপ্টার নামতেই দেবেন না। বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙার জন্য তিনি ‘তৃণমূলের গুন্ডাদের’ দোষ দেন। সেই সঙ্গে প্রতিশ্রুতি দেন, ওই জায়গায় বিদ্যাসাগরের আর একটি মূর্তি বানিয়ে দেবেন।

Comments are closed.