রবিবার, জানুয়ারি ২৬
TheWall
TheWall

আজ রাজীবের ছুটি শেষ, কাল কী হবে? জানুন ৪ সম্ভাবনা

Google+ Pinterest LinkedIn Tumblr +

দ্য ওয়াল ব্যুরো: তেল পুড়ছে সিবিআইয়ের। কিন্তু রাজীব এখনও বেপাত্তা। কলকাতা থেকে পূজালী, মেচেদা কোথায় না খোঁজ চলছে, চলেছে তবু গোয়েন্দার খোঁজে কোনও সাফল্যই পাননি গোয়েন্দারা।

আজ রাজীবের ছুটি শেষ। এখন অপেক্ষা রাজীব কুমার যদি ছুটির শেষে নিজেই ধরা দেন অথবা কাজে যোগ দিলে তাঁকে যদি গ্রেফতার করা যায়। রাজীব এখন যেন মেঘনদ। সামনে নেই তিনি। কিন্তু আড়ালে থেকে যুদ্ধ চালিয়ে যাচ্ছেন। এই আদালত থেকে ওই আদালতে জামিনের আবেদন জানিয়ে চলেছেন। সিবিআই তো বটেই রাজ্য প্রশাসনও জানিয়ে দিয়েছে রাজীবের অবস্থান সম্পর্কে তারাও অন্ধকারে। গত প্রায় দু’সপ্তাহ ধরে একনাগাড়ে রাজীবকে হন্যে হয়ে খোঁজার আগে রাজ্য প্রশসনের দ্বারস্থ হয়েছিল সিবিআই। রাজীবের খোঁজ পেতে নবান্নে গিয়ে রাজ্য পুলিশের ডিজি, মুখ্যসচিব ও স্বরাষ্ট্র সচিবের কাছে চিঠি দিয়ে কলকাতার প্রাক্তন মহানাগরিকের অবস্থান জানতে চাওয়া হয়। সেই সময়েই তাঁরা জ‌বাবি চিঠিতে জানিয়ে দেন, ৯ থেকে ২৫ সেপ্টেম্বর ছুটিতে আছেন রাজীব। আজ সেই ২৫ সেপ্টেম্বর। রাজীবের ছুটি শেষ। যদিও সূত্রের ‌খবর, রাজীব নাকি ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ছুটি বাড়ানোর আবেদন করেছেন। সেই ছুটি মঞ্জুর হয়েছে কিনা তা সরকারি ভাবে জানা যায়নি।

এখন সামনে চার সম্ভাবনা—

এক) রাজ্য যদি ছুটি মঞ্জুর না করে থাকে তবে রাজীব কুমারকে কাল ২৬ সেপ্টেম্বর কাজে যোগ দিতেই হবে।‌ কালই গ্রেফতার করতে পারে সিবিআই। আবার রাজীব কুমার নিজে আত্মসমর্পণও করতে পারেন। ভবানীভবনে গিয়ে রাজীকে গ্রেফতার করা খুব সহজ নাও হতে পারে। সেজন্যও প্রস্তুত সিবিআই। ইতিমধ্যেই রাজীবের অফিসে নোটিস পাঠিয়ে রেখেছে কেন্দ্র‌ীয় গোয়েন্দা সংস্থা।

দুই) রাজীব নাকি ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ছুটি বাড়িয়ে নিয়েছেন। সেটা রাজ্য মঞ্জুর করে থাকলে সিবিআইকে অপেক্ষা করতে হবে। সেক্ষেত্রে বাকি কয়েকটা দিন তল্লাশি চালু রাখতে পারে আবার নাও পারে সিবিআই।

তিন) সরকারি খাতায় এখনও অবধি ২৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ছুটি নেওয়া রয়েছে রাজীবের। আজই তা শেষ। রাজীব ছুটি বাড়ানোর আবেদন করে থাকলে তা রাজ্য পুলিশের ডিজি চাইলেই মঞ্জুর করতেই পারেন। কিন্তু পুলিশ আগেই জানিয়েছে, রাজীবের সঙ্গে যোগাযোগ করা যাচ্ছে না। ছুটির আবেদন পেয়ে তা মঞ্জুর করলে পরস্পর বিরোধিতা হয়ে যাবে।

চার) রাজ্য সরকার যদি ‌রাজীব কুমারকে বাড়তি ছুটি মঞ্জুর করে থাকে তবে সেটা সরাসরি অসহযোগিতার অভিযোগে রাজ্যের বিরুদ্ধে আদালতে যেতে পারে সিবিআই। সেটা হলে তৈরি হবে নতুন বিতর্ক।

তবে সবকিছুই স্পষ্ট হবে আজ দুপুরে। গত সোমবার হাইকোর্টে রাজীবের তরফে আগাম জামিনের আবেদন পেশ করেন তাঁর স্ত্রী সঞ্চিতা কুমার। এ দিন বিচারপতি সহিদুল্লা মুনশি ও বিচারপতি শুভাশিস দাশগুপ্তের এজলাসে হবে শুনানি। সেই রায়ের উপরে নির্ভর করছে সিবিআইয়ের পরবর্তী পদক্ষেপ। একই সঙ্গে রাজীব কুমারের ভবিষ্যৎ।

Share.

Comments are closed.